channel 24

সর্বশেষ

  • রোববার শাহবাগে শিক্ষার্থীদের প্রতীকী লা শে র মিছিল

  • ইনস্টগ্রাম অ্যাকাউন্ট যেভাবে ভেরিফাইড করবেন

  • একুশে পদকপ্রাপ্ত ভাষা সৈনিক গোলাম হাসনায়েন আর নেই

  • চাকরি দিচ্ছে ঢাকা ব্যাংক

  • মিরপুর টেস্টের প্রথম দিন তাইজুল ও বাবরের

  • রোববার থেকে সাশ্রয়ী মূল্যে মিলবে টিসিবির পণ্য

  • শেখ রবিউল হকের জন্মবার্ষিকীতে চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন

  • রাশিয়ায় করোনায় এক মাসে ৭৫ মানুষের মৃত্যু

  • চাকরির বাজারে বিশ্ববিদ্যালয় সনদ পর্যাপ্ত নয়: সিপিডি

  • মেধার পাশাপাশি শারীরিকভাবে যোগ্যদের বাছাই করছি: আইজিপি

  • নারীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা, শিলের আঘাতে প্রবাসীর মৃ ত্যু

  • বগুড়ায় কমছে আলু আবাদ, বিকল্প চাষে ঝুঁকছেন কৃষকরা

  • সড়কে শৃঙ্খলা আনতে যাত্রী কল্যাণ সমিতির ২০ দফা সুপারিশ

  • যৌন নি র্যা তনের বিরোধ নিষ্পত্তিতে উবারকে গুনতে হচ্ছে ৭৭ কোটি টাকা

  • ঢাকা ওয়াসার আয় বেড়েছে ৪ গুণ

সমুদ্র পথে ভাড়া বৃদ্ধিতে দীর্ঘমেয়াদে ক্ষতির আশঙ্কা (ভিডিও)

সমুদ্র পথে ভাড়া বৃদ্ধিতে দীর্ঘমেয়াদে ক্ষতির আশঙ্কা (ভিডিও)

করোনায় বিশ্বব্যাপী চাহিদার কারণে কয়েকগুণ ভাড়া বেড়ে গেছে সমুদ্রপথে পণ্য পরিবহনে। ফলে, মারাত্মক প্রভাব পড়ছে রপ্তানিতে। যদিও উদ্যোক্তাদের অনেকের মতে, এই চাপের বেশিরভাগই নিচ্ছেন বিদেশি ক্রেতারা। কিন্তু সঙ্কট দীর্ঘ হলে পরোক্ষভাবে ক্ষতিতে পড়ার শঙ্কা তাদের। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন এই ক্ষতির কিছুটা হয়তো কাটানো সম্ভব বন্দরগুলোর দক্ষতা বাড়িয়ে। 

আরও পড়ুন: বিচারহীনতাই বারবার সাম্প্রদায়িক সহিংসতার কারণ: ইসকন

২০২১ সালে নতুন কারখানা চালু করে পোশাক খাতের বড় রপ্তানিকারক ইপিলিয়ন গ্রুপ। কিন্তু, করোনায় সম্ভব হয়নি প্রত্যাশিত উৎপাদন কিংবা কর্মসংস্থান তৈরি করা। শেষ প্রান্তিকে এসে অবস্থা ভালোর দিকে গেলেও শঙ্কা তৈরি হয়েছে ক্রেতার কাছে সময়মতো পণ্য পৌঁছানো নিয়ে। কারণ, বিশ্বব্যাপী পরিবহন সঙ্কট, সেই সঙ্গে ভাড়াও বেড়েছে কয়েকগুণ। গ্রুপের চেয়ারম্যান রিয়াজউদ্দিন আল মামুন বলছেন, ব্যবসার শর্ত অনুযায়ী, এই প্রভাব দেশে পড়ার সম্ভাবনা কম। কিন্তু, সঙ্কট দীর্ঘ হলে, পরোক্ষভাবে চাপ বাড়বে উৎপাদকদের ওপর।

ইপিলিয়ন গ্রুপের চেয়ারম্যান রিয়াজউদ্দিন মামুন বলেন, আমরা বাংলাদেশ থেকে যে মালগুলো এক্সপোর্ট করি সেটা আমরা এফওবি বেসিসে করি। সুতরাং ফ্রেডের ব্যাপারটা বায়ার হ্যান্ডেল করে। কিন্তু যে কোনও ক্ষেত্রে যে কোনও কিছুর দাম বাড়লেই সেটা ম্যানুফ্যাক্চারদের ঘাড়ে এসে পড়ে। সেটার একটা চাপ এখন এবং সামনের দিকে থাকবে। সেটা আমরা কিভাবে হ্যান্ডেল করি সেটা আমাদের দক্ষতা ও যোগ্যতার ব্যাপার।

বছরের শেষভাগে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করায় বিশ্বব্যাপী বেড়েছে আমদানি রপ্তানি। ফলে, হঠাৎ করেই বেড়ে গেছে পণ্য পরিবহনের জন্য কন্টেইনার এবং জাহাজের চাহিদা। বিপরীতে, দীর্ঘ সময়ের স্থবিরতার কারণে, সম্ভব হচ্ছে না পর্যাপ্ত যোগান দেয়া। যে কারণে, কয়েকগুণ বেশি ভাড়া দিতে হচ্ছে ব্যবহারকারীদের। তথ্য বলছে, ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে ৪০ ফুট মাপের প্রতিটি কন্টেইনার পরিবহনে যেখানে ব্যয় হতো সোয়া দুই হাজার ডলার, সেটিই ঠিক এক বছর পর সাড়ে চার গুণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৩২৩ ডলারে। আর দুই বছরে এই অঙ্ক বেড়েছে ৮ গুণ!

সৈয়দ এরশাদ বলেন, যেহেতু ডিমান্ডটা একসময় কমে গিয়েছিল। জাহাজ কমিয়ে দিয়েছিল। হঠাৎ করে ডিমান্ডটা বেড়ে গেছে, যার ফলে এখানে মূল্যবৃদ্ধি হয়ে যাচ্ছে। কিছুদিন আগে সিলেটে যে ঘটনাটা ঘটলো ওটাও কিন্তু একটা বাধার সম্মুখীন হয়েছে। এর বাইরে যেটা হচ্ছে সেটা হলো বিভিন্ন পোর্টের এগেইন্সটে লেবার শট।

বৈশ্বিক এই সঙ্কটের কারণে এরই মধ্যে কম বেশি চাপে পড়েছেন রপ্তানিকারকরা। যে কারণে, অনেককেই ব্যবহার করতে হচ্ছে আকাশপথ। ফলে, ব্যয় বেড়ে যাচ্ছে কয়েকগুণ। অন্যদিকে, বিমানবন্দরের কার্গো ব্যবস্থাপনা চাহিদা মাফিক না হওয়ায়, সঙ্কটে পড়তে হচ্ছে সেখানেও।

এরশাদ বলেন, বাংলাদেশ থেকে যে এয়ার ফ্ল্যাইট বেড়েছে এটার একমাত্র কারণ যে বৈশ্বিক কারণ তা না। আমাদের লোকাল মিস ম্যানেজমেন্টও কিছু আছে।

রপ্তানির বাইরে, আমদানি কার্যক্রম সচল রাখতেও হিমশিম খাচ্ছেন উদ্যোক্তারা।

এএ

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর