channel 24

সর্বশেষ

  • দেড় কোটি টাকায় বিক্রি হলো হুররাম সুলতান

  • প্রার্থী হয়ে লাউয়ের বীজ বিলাচ্ছেন লাল

  • সংবিধানে মুক্তিযুদ্ধ ও বীর মুক্তিযোদ্ধার বিষয় যুক্ত করতে রিট

  • দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে ধাক্কা দিলো ট্রেন

  • নরসিংদীতে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সং ঘর্ষে নি হ ত ২

  • মুসলিম থেকে হিন্দু হলেন ইন্দোনেশিয়ার জাতির জনকের মেয়ে

  • বাংলাদেশ ম্যাচের আগে শক্তি বাড়াল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

  • আরিয়ানের তদন্তকারী সমীরের বিরুদ্ধে ঘুষের অভিযোগ

  • আবাসিক হোটেল থেকে ঢাবি শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত ম র দে হ উদ্ধার

  • গুনে গুনে পাঁচ গোল হজম করল বায়ার্ন মিউনিখ

  • আরিয়ান-কাণ্ডে নতুন মোড়: অন্যতম সাক্ষী কিরণ গোসাভি আটক

  • প্রেমে ব্যর্থ হয়েই সুমাইয়াকে খু ন করে মনির

  • স্ত্রীর ইচ্ছাপূরণে ১৯ লাখ টাকার গহনা দান করে দিলেন স্বামী

  • পাটুরিয়ায় কাত হয়ে যাওয়া ফেরির উদ্ধারকাজ ফের শুরু

  • দৌলতখানে নৌকা সমর্থিত প্রার্থীর অফিসে ভাঙচুর

নিজের দেয়া ঋণ আদায়েই হিমশিম

নিজের দেয়া ঋণ আদায়েই হিমশিম

নিজের দেয়া ঋণ আদায়েই হিমশিম অবস্থা জনতা ব্যাংকের। তারওপর কিনেছে, অন্য ব্যাংকের দায়ও। এতে এখন করুণ দশা, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকটির। সাবেক ব্যাংক নির্বাহীরা বলছেন, অন্য ব্যাংকের দায় কেনা হলো, বৈধভাবে অবৈধ কাজ। যা পুরো ব্যাংক ব্যবস্থায় ধস নামাচ্ছে।

গাজীপুরের মাওনা এলাকার এপেক্স নিট কম্পোজিট লিমিটেডে কারখানা স্থাপনে ২০১০ সালে তিনটি বেসরকারি ব্যাংক থেকে ৪১ কোটি ৬ লাখ টাকা ঋণ নেয়। তবে নানা অব্যবস্থাপনায় বন্ধ হয়ে যায় প্রতিষ্ঠানটি। ধুকতে থাকা এই প্রতিষ্ঠানের পাশে দয়ার সাগর হয়ে হাজির হয়, রাষ্ট্রিয় মালিকানাধিন জনতা ব্যাংক। পর্যাপ্ত জামানত না থাকার পরও ২০১৭ সালে ওই প্রতিষ্ঠানের সব দায় কিনে নেয় ব্যাংকের মতিঝিল কর্পোরেট শাখা। শুধু তাই নয়, নতুন করে প্রতিষ্ঠানটিকে দেয়া হয় সোয়া ৩ কোটি টাকা ঋণ। নিয়ম বহির্ভুতভাবে দেয় ব্যাক-টু-ব্যাক এলসি সুবিধাও।

আরও পড়ুন: ভুয়া রপ্তানি বিল ক্রয়ের দায় নিতে হবে বোর্ডকে

শুধু এপেক্স নিট কম্পোজিট নয়, জনতা ব্যাংকের দায় অধিগ্রহণ তালিকায় আছে মেসার্স ফ্যাশ ক্রাফট নিটওয়্যার লিমিটেড, কে এল ফ্যাশন লিমিটেডের মতো তৈরি পোশাক রপ্তানিকারক বেশ কয়েকটি মৃতপ্রায় প্রতিষ্ঠান। এক তো নিজেদের বিতরণ করা ঋণ আদায় করতে না পেরে ডুবতে বসেছে রাষ্ট্র মালিকানাধীন এই ব্যাংক। তার ওপর অভিশাপ হয়ে দাঁড়িয়েছে অন্য ব্যাংক থেকে কেনা দায়।

আরও পড়ুন: জনতা ব্যাংকে ১৩ হাজার কোটি টাকার ঋণ খেলাপি

অসাধু কর্মীদের ব্যক্তিস্বার্থই এমন অনিয়মের মূল কারণ বলে দাবি করেন, ব্যাংকটির সাবেক চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন। ব্যাংক খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঋণ অধিগ্রহণের নিয়ম আছে ঠিকই, তবে এসব ক্ষেত্রে গুরুত্ব দিতে হয়, প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা এবং ব্যাংকের স্বার্থ।

এসব নিয়ে জনতা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুস সালাম জানান, অনিয়মে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। যদিও কী ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে- তার কিছুই জানাননি তিনি।

এফএইচ

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর