channel 24

সর্বশেষ

  • কুষ্টিয়ায় ট্যাংকের বিষক্রিয়ায় ২ শ্রমিকের মৃত্যু

  • ফেনীতে মাদ্রাসাছাত্রীকে জবাই: চাচাতো ভাই আটক

  • সার্কভুক্ত দেশগুলোতে ব্যাপকহারে বাড়ছে আক্রান্ত ও প্রাণহানি

  • দেশে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির পেছনে দক্ষিণ আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্ট

  • সাকিব-মোস্তাফিজকে ছাড়াই শুরু টাইগারদের অনুশীলন

  • রাজধানী ছাড়ছে মানুষ, দুই ঘাটে উপচেপড়া ভিড়

  • ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণে নষ্ট ১৫০ কোটি চিংড়ি পোনা

  • জুমাতুল বিদায় মসজিদে মুসল্লিদের ঢল

  • খুলে দেয়া হলো হলিডে মার্কেট

  • প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরে উঠতে পারছেন না হতদরিদ্ররা

  • বিধিনিষেধের মধ্যেই রাজধানী ছাড়ছে মানুষ

  • করোনায় ভালো নেই মা হাজেরা ও তার পথশিশুরা

  • ধুঁকছে মানিকগঞ্জের হাসপাতালগুলো, বাড়ছে দুর্ভোগ

  • চারদিন পরে নিভল সুন্দরবনের আগুন

  • বাংলাদেশের দেয়া চিকিৎসা সামগ্রী উপহার গেল ভারতে

অবাধ আমদানিতে ন্যায্যমূল্য বঞ্চিত লবণ চাষীরা

অবাধ আমদানিতে ন্যায্যমূল্য বঞ্চিত লবণ চাষীরা

কক্সবাজারে চলতি মৌসুমেও ন্যায্যমূল্য পাচ্ছেন না প্রায় ৫৫ হাজার লবণ চাষী। পাশাপাশি সঠিক দাম না পেয়ে অবিক্রিত রয়ে গেছে গেল বছরের সাড়ে ৩ লাখ টন লবণ। সব মিলিয়ে বিপুল ক্ষতির মুখে চাষীরা। অবাধে ইন্ডাস্ট্রিয়াল লবণ আমদানির কারণেই এমন সংকট বলে দাবি তাদের।

উপকূলজুড়ে লবণচাষের কর্মযজ্ঞ। কেউ মাঠ তৈরীতে ব্যস্ত, কেউ জমিতে সাগরের লবণাক্ত পানি জমিয়ে তাতে দিচ্ছেন সূর্যের তাপ। 

ঘাম ঝরানো এই পরিশ্রমে লবণ উৎপাদনের পরও চরম দুঃশ্চিন্তায় কক্সবাজারের ৫৫ হাজার চাষী। কারণ গত বছরের মত এবারও মিলছে না ন্যায্যমূল্য। ফলে বড় ক্ষতির মুখে তারা। 

চাষীদের দাবি, প্রতিমণ লবণ উৎপাদনে খরচ ৪০০ টাকা হলেও, বিক্রি করতে হয় ১৪০ টাকায়। এছাড়া ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় অবিক্রিত রয়ে গেছে গত বছরের প্রায় সাড়ে তিন লাখ টন লবণ। 

এই খাতকে বাঁচাতে অপ্রয়োজনীয় ইন্ডাস্ট্রিয়াল লবণ আমদানি এবং ফড়িয়াদের তৎপরতা বন্ধের দাবি চাষিদের।   

চলতি মৌসুমে দেশে লবণ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২২ লাখ টনের বেশি। গতবছর যা ছিলো সাড়ে ১৮ লাখ টনের মতো। লবণ চাষের প্রায় সবটাই হয় কক্সবাজার ও চট্টগ্রামে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর