channel 24

সর্বশেষ

  • নিউজিল্যান্ডে মুক্ত বাতাসে বাংলাদেশ দল

  • বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু যুবা টাইগারদের

  • বিশ্বকাপকে সামনে রেখে চলছে শ্যুটারদের প্রস্তুতি

  • ক্রিকেট খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে কুমিল্লায় কিশোরকে প্রকাশ্যে হত্যার অভিযোগ

  • স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উত্তরণে জাতিসংঘের সুপারিশ আজ

  • পঞ্চম ধাপে পৌর নির্বাচনের প্রচারণা শেষ হচ্ছে মধ্যরাতে

  • দ্রুত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি

  • কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যুতে ক্ষোভ

  • পুনর্বাসনের দাবিতে আবারো আন্দোলনে লালদিয়ারচরের বাসিন্দারা

  • ২০২০ সালে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ১৩০ মামলায় আসামি ২৭১

  • বেগমগঞ্জে মাদ্রাসাছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগে মামলা

  • ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে কবর দেয়ার সময় এসেছে: ডা. জাফরুল্লাহ

  • সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় ১৭ শিয়া মিলিশিয়া নিহত

  • ফেসবুক স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে আফতাবনগরে এক কিশোর খুন

  • খাগড়াছড়িতে ক্ষুদ্র আঙিকে চাষাবাদ করে সাবলম্বী চাষীরা

দুই বছর পর উড্ডয়ন অনুমতি পেল বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স

দুই বছর পর উড্ডয়ন অনুমতি পেল বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স

কয়েক দফা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর চলতি বছরের শেষদিকে যাত্রী নিয়ে আকাশে উড়বে বোয়িং 737 ম্যাক্স। মার্কিন স্থানীয় সময় বুধবার সংশ্লিষ্ট অনুমতিপত্রে সই করেন, মার্কিন ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাসোসিয়েশন- FAA এর প্রশাসক। তবে সংস্থাটির বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ তুলে বোয়িং 737 ম্যাক্স বিমানে ভ্রমণ প্রত্যাহারের আহ্বান জানান, ২০১৮ ও ২০১৯ সালের দুর্ঘটনায় প্রাণ হারানোদের স্বজনেরা।

উড্ডয়ন বাধা কাটলো, বোয়িং 737 ম্যাক্স বিমানের। প্রায় দুই বছরের তদন্ত শেষে, বুধবার এই বিমানে যাত্রী পরিবহনের অনুমতি দেয় ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাসোসিয়েশন- FAA। বোয়িং 737 ম্যাক্স মডেলের বিমান দিয়ে যাত্রী পরিবহন আবারো শুরু করার অনুমতি দেয়া হয়েছে। আগামী বছরে বিভিন্ন সংস্থায় চলবে ২০১৯ সালের ১৩ মার্চে বন্ধ হওয়া এই বিমান।

সংস্থাটি জানায়, কয়েক দফায় বিমানটির সফটওয়্যার মানোন্নয়ন রিপোর্ট পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে। দীর্ঘ বিরতির পর আগামী ২৯ ডিসেম্বর 737 ম্যাক্স বিমান দিয়ে প্রথম ফ্লাইট পরিচালনা করবে ইউএস এয়ারলাইন্স। বোয়িং 737 ম্যাক্স সংস্কার পর্যবেক্ষণ টিমের সদস্য হিসেবে কাজের সুযোগ পেয়ে বেশ আনন্দিত। আমি শতভাগ নিশ্চিত বিমান পরিবহনে মাইলফলক হয়ে থাকবে প্রায় দুই বছরের এই তদন্ত কার্যক্রম। ভ্রমণ নিরাপত্তাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়ার এই কার্যক্রমে বেশ কিছু সংস্কার উদ্যোগ নিয়েছে বোয়িং।

তবে এর বিরোধিতা করছেন 737 ম্যাক্স বিমান দুর্ঘটনায় জীবন হারানো ব্যক্তিদের স্বজনেরা। FAA এর বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগও করেন কেউ কেউ। যদিও কোনো অনিয়ম হয়নি বলে দাবি FAA প্রশাসকের।

মিশেল স্টুমো বলেন, 737 ম্যাক্স বিমানের সফটওয়্যারে সমস্যা পাওয়া গেছে। ককপিট সত্যিই ত্রুটিপূর্ণ। তা সত্বেও এ বিমান উড্ডয়নের অনুমতি দেয়া লজ্জাজনক। যারা এ বিমানে টিকিট কিনেছেন তাদের অন্য কোনো বিমানে ভ্রমণের অনুরোধ করছি।

নাদিয়া মিলেরন বলেন, নিজেদের বিমানকে সব সময়ই নিরাপদ দাবি করেছে বোয়িং। এ কথা সত্য হলে কয়েকদিনের মধ্যে দুই বার বিধ্বস্ত হতো না। দুইবারই ককপিটের সমস্যা দেখা গেছে। আমাদের যে ক্ষতি হয়েছে তা অন্য কারো জীবনে হোক সেটা আমি চাই না।

ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাসোসিয়েশন প্রশাসক স্টিফেন ডিকসন জানান, 737 ম্যাক্স বিমানের উড্ডয়ন অনুমতি দেয়ার আগে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও ওই বিমানে আগে ভ্রমণ করা ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলেছি। আন্তর্জাতিক পাইলট প্যানেলের অভিজ্ঞতা পুনর্মূল্যায়ন করা হয়েছে। ককপিট সংস্কার ও সফটওয়্যারের মানোন্নয়নে দারুণ দক্ষতা দেখিয়েছে বোয়িং। কোনো পক্ষই আমাদের সিদ্ধান্তকে প্রভাবিত করেনি।

২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর, ১৮৯ আরোহী নিয়ে বিধ্বস্ত হয়, ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সে থাকা বোয়িং 737 ম্যাক্স বিমান। ২০১৯ সালের ১০ মার্চে ৩৪৬ আরোহী নিয়ে বিধ্বস্ত হয় একই মডেলের আরেকটি বিমান। এরপরই 737 ম্যাক্স বিমান দিয়ে যাত্রী পরিবহন বন্ধের নির্দেশ দেয় FAA।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর