channel 24

সর্বশেষ

  • নিউজিল্যান্ডে মুক্ত বাতাসে বাংলাদেশ দল

  • বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু যুবা টাইগারদের

  • বিশ্বকাপকে সামনে রেখে চলছে শ্যুটারদের প্রস্তুতি

  • ক্রিকেট খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে কুমিল্লায় কিশোরকে প্রকাশ্যে হত্যার অভিযোগ

  • স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উত্তরণে জাতিসংঘের সুপারিশ আজ

  • পঞ্চম ধাপে পৌর নির্বাচনের প্রচারণা শেষ হচ্ছে মধ্যরাতে

  • দ্রুত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি

  • কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যুতে ক্ষোভ

  • পুনর্বাসনের দাবিতে আবারো আন্দোলনে লালদিয়ারচরের বাসিন্দারা

  • ২০২০ সালে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ১৩০ মামলায় আসামি ২৭১

  • বেগমগঞ্জে মাদ্রাসাছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগে মামলা

  • ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে কবর দেয়ার সময় এসেছে: ডা. জাফরুল্লাহ

  • সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় ১৭ শিয়া মিলিশিয়া নিহত

  • ফেসবুক স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে আফতাবনগরে এক কিশোর খুন

  • খাগড়াছড়িতে ক্ষুদ্র আঙিকে চাষাবাদ করে সাবলম্বী চাষীরা

বৃহত্তর স্বার্থে ঋণের কিস্তি পরিশোধে ডিসেম্বর পর্যন্ত ছাড় দেয়া হয়েছে: অর্থমন্ত্রী

বৃহত্তর স্বার্থে ঋণের কিস্তি পরিশোধে ডিসেম্বর পর্যন্ত ছাড় দেয়া হয়েছে: অর্থমন্ত্রী

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলছেন, দেশের অর্থনীতির বৃহত্তর স্বার্থ এবং ব্যবসায়িদের কথা বিবেচনা করেই ঋণের কিস্তি পরিশোধে ডিসেম্বর পর্যন্ত ছাড় দেয়া হয়েছে।

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে অর্থনৈতিক এবং সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন অর্থমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ঋণের কিস্তি পরিশোধের মেয়াদ না বাড়ালে রপ্তানিসহ বিভিন্ন খাতেই এর নেতিবাচক প্রভাব পড়তো। ব্যবসায়িরা ভালো থাকলে ব্যাংকগুলোও ভালোভাবে চলবে। আমরা আমদানি করছি, এখনই এলসিগুলোর নিষ্পত্তি করতে পারবো না। বিভিন্ন জায়গায় বাধাগ্রস্ত হবে। যেই মুহূর্তে লোনটি ক্লাসিফাইড হবে, সেই মুহূর্তে স্বাভাবিক কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হবে। এই মুহূর্তে আমার মনে হয়, এটা করা ঠিক হবে না। করোনাকালে তাদের (ব্যবসায়ীদের) সাহায্য করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

বর্তমানে সাময়িকভাবে লাভ কিছুটা কম হলেও পরবর্তীতে ব্যাংকগুলোই লাভবান হবে বলে মন্তব্য করেন অর্থমন্ত্রী।

এদিকে আজকের অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। আর সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় অনুমোদনের জন্য চারটি ও বাতিলের জন্য একটি প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর