channel 24

সর্বশেষ

  • বান্দরবানের পাহাড়ি এলাকায় কাজু বাদামের চাষের উদ্যোগ

  • মাস্ক ছাড়া সরকারি-বেসরকারি কোনো সেবা নয়

  • প্রেসিডেন্টস কাপের ফাইনালে মুখোমুখি মাহমুদউল্লাহ-নাজমুল একাদশ

  • বিস্ফোরণের দু:সহ অভিজ্ঞতা নিয়ে দেশে ফিরেছে যুদ্ধজাহাজ 'বিজয়'

  • জনগণকে বোকা বানাচ্ছে সরকার: ফখরুল

  • ধর্ষকদের জন্য আওয়ামী লীগের দরজা বন্ধ: কাদের

  • আশুলিয়ায় মিনি ক্যাসিনো থেকে ২১ জন আটক

  • নবীর প্রতি অসম্মান: গাজায় ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

  • গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ: কিশোরগঞ্জে দগ্ধদের মধ্যে এক নারীর মৃত্যু

  • দেশে ফিরলে গ্রেপ্তার হবে পিকে হালদার: অ্যাটর্নি জেনারেল

  • পদ্মাসেতুতে বসানো হলো ৩৪তম স্প্যান

  • সিলেটে আমরণ অনশনে রায়হানের মা ও স্বজনরা

  • মীরসরাইয়ে অর্থনৈতিক অঞ্চলে ভূমি অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরণ দিতে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগ

  • এলএনজি দিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা বাড়াচ্ছে সরকার

  • দুর্নীতির বিচার করতে গিয়ে আ.লীগ দোষের ভাগীদার হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

দশ বছরে বিদ্যুতে ভর্তুকি ৫৮ হাজার কোটি টাকা

দশ বছরে বিদ্যুতে ভর্তুকি ৫৮ হাজার কোটি টাকা

সরকারি হিসাব অনুসারে, এই মুহূর্তে ৯৭ ভাগ জনগোষ্ঠী এসেছে বিদ্যুতের আওতায়। আর এই কাজে গত ১০ বছরে ভর্তুকি ৫৮ হাজার কোটি টাকা।

গ্রামাঞ্চলে যায় ঘটুক, শহরে অন্তত বেশ ভালোই রয়েছে বিদ্যুৎ সরবরাহ। এক দশকে উৎপাদন ক্ষমতা প্রায় ৫ হাজার থেকে ২০ হাজার ৮শ' মেগাওয়াটে নিয়েছে সরকার। এজন্য সরকারের ভরসা তেলভিত্তিক রেন্টাল ও কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র।

দেশে উৎপাদিত সব বিদ্যুৎ পাইকারি দামে কিনে নেয় বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)। সংস্থাটির চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. বেলায়েত হোসেন বলেছেন, বেশি দামে কিনলেও, বেচতে হচ্ছে কমদামে।

উৎপাদিত বিদ্যুতের ৩৫ ভাগই আসে ডিজেল ও ফার্নেস তেল পুড়িয়ে। যাতে প্রতি ইউনিটের খরচ ১৪ টাকার মতো। সেখানে গ্যাস-কয়লার মতো জ্বালানি ব্যবহারে ব্যয় মাত্র ৩ টাকা। সারা দেশে তেলভিত্তিক ছোট ছোট বিদ্যুৎ কেন্দ্র আছে শতাধিক।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক এম শামসুল আলম বলেছেন, উৎপাদন সক্ষমতা বাড়লেও বিদ্যুৎ খাতে হ-য-ব-র-ল পরিস্থিতি তৈরি করেছে সরকার।

যদিও সরকারের বরাবরের দাবি, দ্রুত চাহিদা মেটাতে তেলভিত্তিক বিদ্যুতের কোনো বিকল্প ছিল না। কিন্তু উৎপাদন ক্ষমতার ৪৫ শতাংশ ব্যবহারই করা যাচ্ছে না। চাহিদা আর উৎপাদনের মধ্যে সেই ফারাক থাকার কথা সর্বোচ্চ ৩৫ শতাংশ।

২০১৬ সালে করা মহাপরিকল্পনায়, এ সময়ে বিদ্যুতের যে চাহিদা দেখানো হয়, তা প্রকৃত অবস্থার চেয়ে অনেক বেশি। সেই মহাপরিকল্পনা পর্যালোচনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর