channel 24

সর্বশেষ

  • সাউদাম্পটন টেস্টে ইংল্যান্ডকে হারালো ওয়েস্ট ইন্ডিজ

  • অবৈধভাবে নদী থেকে বালু ও পাথর তোলায় ভাঙনের কবলে শতাধিক ঘর-বাড়ি

  • টাকা না থাকায় শিশুকে রেখে উধাও বাবা-মা; দায়িত্ব নিলেন এসপি

  • ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ভার্চুয়ালি বসলো আপিল বেঞ্চ

  • স্থবিরতা কাটতে শুরু করেছে পুঁজিবাজারে

  • করোনার অনিশ্চয়তায় মেট্রোরেল প্রকল্প

  • ঝড়ের কবলে পড়ে আশ্রয় নিতে গিয়ে ইয়েমেনে বন্দিদশায় ৫ বাংলাদেশি

  • বিশ্বে একদিনে সর্বোচ্চ ২ লাখ ৩০ হাজার ৩৭০ জন করোনায় আক্রান্ত

  • ডা. সাবরিনা ৩ দিনের রিমান্ডে

  • ময়ূর-২ এর মাস্টার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার

  • করোনায় সিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনারের মৃত্যু

  • দেশের ১১ জেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি

  • বিদেশ যেতে হলে করোনার সার্টিফিকেট নিতে হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • ভুয়া ডাক্তার, নিষিদ্ধ ওষুধ ও লাইসেন্স না থাকায় এসএইচএস হাসপাতাল সিলগালা

  • রিজেন্ট-জেকেজির জালিয়াতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিবৃতি দায়সারা

এডিপিতে এবার বিদ্যুৎখাতে বরাদ্দ প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকা

এডিপিতে এবার বিদ্যুৎখাতে বরাদ্দ প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকা

আগামী অর্থ বছরে বিদ্যুৎ সঞ্চালন আর প্রাকৃতিক গ্যাস অনুসন্ধান-উত্তোলনে জোর দিতে চায় সরকার। এরইমধ্যে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে বিদ্যুৎ খাতে তৃতীয় সর্বোচ্চ ২৪ হাজার ৮শ কোটি টাকা বরাদ্দ অনুমোদন করা হয়েছে। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী বলছেন, পুরনো কয়েকটি কেন্দ্রের সংস্কার ও সঞ্চালন লাইন নির্মাণেই ব্যয় করা হবে এডিপির টাকা। একজন বিশেষজ্ঞ মনে করেন, এডিপির এই বরাদ্দ ব্যবসায়ীদের পকেট ভারী করতেই নেয়া হয়েছে।

এই মুহূর্তে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা, প্রায় সাড়ে ২৩ হাজার মেগাওয়াট। বিপরীতে গত ২৯ মে সর্বোচ্চ উৎপাদন ছিল ১২ হাজার ৮৯৩ মেগাওয়াট। সক্ষমতার অর্ধেকই প্রায় অলস। এই অবস্থাও অহরহই চলছে বিদ্যুৎ বিভ্রাট।

আগামী অর্থবছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি-এডিপিতে বিদ্যুৎ খাতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকা। যার বেশিরভাগই ব্যয় হবে, পুরনো বিদ্যুৎ কেন্দ্র মেরামত আর সঞ্চালন লাইনে।

বেশি দামের জ্বালানি-এলএনজি আমদানি করে গ্যাসের ঘাটতি মেটাচ্ছে সরকার। আর এ খরচ সমন্বয়ের অজুহাতে, বছর বছর বাড়ছে গ্যাসের দাম। বিদ্যুৎ খাতে সরকার বরাদ্দ দিলেও, জ্বালানি খাত চলে নিজের টাকায়। এলএনজি নির্ভরতা না বাড়াতে, এবার দেশেই গ্যাস উত্তোলন-অনুসন্ধানে বেশ আগ্রহী মন্ত্রণালয়।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক এম শামসুল আলম মনে করেন, উৎপাদিত বিদ্যুৎ সঞ্চালনে সক্ষমতা রয়েছে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানির। তাই করোনাকালে, এ খাতের বরাদ্দকে ঠিক মনে করছেন না তারা।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের উন্নয়নে বাজেটের বরাদ্দ ও নিজেদের তহবিল মিলিয়ে প্রায় ২৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করবে মন্ত্রণালয়।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর