channel 24

সর্বশেষ

  • বিদেশ যেতে হলে করোনার সার্টিফিকেট নিতে হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • ভুয়া ডাক্তার, নিষিদ্ধ ওষুধ ও লাইসেন্স না থাকায় এসএইচএস হাসপাতাল সিলগালা

  • রিজেন্ট-জেকেজির জালিয়াতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিবৃতি দায়সারা

  • টক-মিষ্টি স্বাদের লটকন

  • এখনো পাওনা এক টাকাও পায়নি ব্রাদার্স ইউনিয়ন ক্রিকেটাররা

  • কক্সবাজার সৈকতে ভাসছে বর্জ্য, মারা গেছে ২০টি কচ্ছপ

  • পাঁচ প্রতিষ্ঠানের করোনা নমুনা পরীক্ষা স্থগিত

  • ৩ বছর বন্ধের পর কক্সবাজারে পুনরায় শুরু হচ্ছে জন্মনিবন্ধন প্রক্রিয়া

  • সাবরিনা-আরিফ দম্পতির রূপকথার জীবনের নানা গল্প

  • খাগড়াছড়িতে সাবেক ছাত্রদল নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

  • চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ছাত্রলীগের দু'গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ৭

  • স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডিজি আবুল কালাম আজাদকে শোকজ

  • এরশাদের মৃত্যুবার্ষিকীর দিন উপনির্বাচন পেছাতে ইসিতে জাপা

  • ডা. সাবরিনা জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট থেকে বরখাস্ত

  • জ্বর-সর্দি ও শ্বাসকষ্টে দেশের বিভিন্ন স্থানে ১০ জনের মৃত্যু

করোনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশের ব্যাংক খাত

করোনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশের ব্যাংক খাত

করোনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশের ব্যাংক খাত। বলছে, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট-বিআইবিএম। ঋণ ও ঋণের সুদ পরিশোধ না করা ও আমানতের প্রবৃদ্ধি না থাকায়, তারল্য ব্যবস্থাপনা করা ব্যাংক খাতের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করেন ব্যাংক নির্বাহীরা। অবস্থা উত্তরণে ব্যাংকগুলোর সম্ভাব্য ঝুঁকির বিষয় চিহ্নিত করে, অবকাঠামোগত পরির্বতনের প্রস্তুতি নিতে পরামর্শ বিশ্লেষকদের।

কভিড-নাইনটিনের বিরূপ প্রভাব পড়েছে, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ দেশের অর্থনীতিতে। যা মোকাবিলায় ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। এটি বাস্তবায়নে ২৫ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে হবে, বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে।

তবে, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট-বিআইবিএমের পরিচালক ড. শাহ মো. আহসান হাবীব বলেন, করোনার ধাক্কায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশের ব্যাংক খাত। এতে বলা হয়, আমদানি-রপ্তানি ও প্রবাসী আয় কমে যাওয়ার পাশাপাশি সীমিত হচ্ছে ব্যবসায়িক কার্যক্রমও।

সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আতাউর রহমান প্রধান জানান, ঋণের সুদ ও বিভিন্ন ফি, ব্যাংকের আয়ের প্রধান উৎস। কিন্তু, করোনাকালে এটি এখন প্রায় বন্ধ। ঋণ পরিশোধ না করা ও আমানতের প্রবৃদ্ধি না থাকায়; তারল্য ব্যবস্থাপনা ঠিক রাখা বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাড়িয়েছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, অবস্থা উত্তরণে ব্যাংকগুলোর সম্ভাব্য ঝুঁকির চিহ্নিত করে, অবকাঠামোগত পরির্বতনের প্রস্তুতি নিতে হবে। অর্থনীতিতে তারল্য বাড়াতে, বিনিয়োগ পরিকল্পনা নেয়ারও পরামর্শ তাদের।

প্রণোদনার প্যাকেজের সর্বোচ্চ সুষ্ঠু ব্যবহারের তাগিদও দেন তারা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর