channel 24

সর্বশেষ

  • বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত করেছে জাতিসংঘ

  • লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি খুনে মাফিয়াদের বিচার চান স্বজনরা

  • বাসভাড়া বৃদ্ধি মরার উপর খাড়াঁর ঘা

  • সীমিত পরিসরে সেবার নামে বাসভাড়া ৮০ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব

  • চট্টগ্রামে এবার চিকিৎসা পেলেন না স্বাস্থ্য পরিচালকের মা!

  • কক্সবাজারে নতুন করে ২৬ জন করোনায় আক্রান্ত

  • ভার্চুয়াল শপথ নিলেন ১৮ বিচারপতি

  • করোনাকালে অসহায়দের পাশে 'ওল্ড ল্যাবরেটরি অ্যাসোসিয়েশন'

  • মেহেরপুরে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন তিন চিকিৎসক

  • রিয়াল বেতিস-সেভিয়া ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরছে লা লিগা

  • প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসা ছাড়া কোনো রোগীকে ফেরত দেওয়া যাবে না

  • সোমবার শুরু হচ্ছে অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চলাচল

  • কাল শুরু হচ্ছে সীমিত আকারে ট্রেন চলাচল

  • চট্টগ্রামে ১০ দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুন

  • চলে গেলেন সাবেক তারকা ফুটবলার গোলাম রব্বানী হেলাল

করোনায় নাজুক স্বল্পআয়ের দেশগুলো, ধনী দেশগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান

করোনায় নাজুক স্বল্পআয়ের দেশগুলো, ধনী দেশগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান

বৈশ্বিক মহামারিতে রূপ নিয়েছে করোনাভাইরাস। হাজারো প্রাণহানির পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে অর্থনীতিও। বরাবরের মতোই সবচেয়ে বেশি আর্থিক ক্ষতিতে অনুন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলো। তাদের সহায়তায় আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক সংস্থা ও উন্নত দেশগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল-আইএমএফ ও জাতিসংঘ।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে সম্প্রতি জি20 নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল- আইএমএফের মহাপরিচালক ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা। এরপর এক সংবাদ সম্মেলনে বৈশ্বিক অর্থনীতির বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরেন তিনি। জানান, ২০২০ ও ২১ সালে কমে যাবে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির গতি।

আইএমএফ এর মহাপরিচালক ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা বলেন, সবদিকে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। বিশ্বে তারল্য সংকট তীব্রতর হচ্ছে। এবারের অর্থনৈতিক সংকট ২০০৯ সালের বৈশ্বিক মন্দাকে ছাড়িয়ে গেছে। ২০২১ সালের মধ্যে এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে প্রকল্প নেয়া হচ্ছে। প্রবৃদ্ধি পূর্বাভাস পরিবর্তনে কাজ করছে বিশেষজ্ঞ দল।

বৈশ্বিক মন্দা মোকাবিলায় সবাইকে একসাথে কাজ করারও আহ্বান জানান আইএমএফ মহাপরিচালক। নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদরদপ্তর থেকে, অংশ নেয়া এক ভিডিও কনফারেন্সে অনেকটা একই ধরনের প্রস্তাব দেন জাতিসংঘের মহাসচিবও।

 ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা বলেন, সার্বিক বাজারের উন্নয়নে প্রয়োজন অন্তত আড়াই লাখ কোটি মার্কিন ডলার। নিজস্ব মজুদ ও কাঁচামাল দিয়ে এ সংকট মোকাবিলা সম্ভব নয়। পরিস্থিতি মোকাবিলায় সবার একইসঙ্গে কাজ করতে হবে। বিশ্বব্যাংক ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক সংস্থাগুলোর মধ্যেও সমন্বয় প্রয়োজন।

জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস বলেন, অনুন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলোতে সার্বিক সহযোগিতার জন্য বিশেষ বরাদ্দ দেয়া উচিৎ। এ লক্ষ্যে এগিয়ে আসতে পারে উন্নত দেশগুলো। বিশেষ সহায়তা তহবিল গঠনের উদ্যোগ নিতে পারে বিশ্বব্যাংক, আইএমএফসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক সংস্থাগুলো।

করোনা পরিস্থিতিতে নুয়ে পড়া আর্থিক সংকট মোকাবিলায় নেয়া পদক্ষেপের মধ্যে সমন্বয়ের লক্ষ্যে, ১৮৯ দেশের প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক করেছে, দ্য ইন্টারন্যাশনাল মানিটরি অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল কমিটি- আইএমএফসি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর