channel 24

সর্বশেষ

  • এক্সিম ব্যাংকের এমডিকে হত্যাচেষ্টা, জানেনা কেন্দ্রীয় ব্যাংক

  • ঈদে থানায় প্রীতি ভোজ: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড়

  • ডলফিনের সবচেয়ে বড় বিচরণক্ষেত্র হালদা নদীই যেন এখন মৃত্যুকুপ

  • করোনায় দেশে আরও ২২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৫৪১

  • শুরু থেকে লকডাউন দিলে পরিস্থিতি এতোটা ভয়োবহ হতো না: ফখরুল

  • তামিম ইকবালের সাথে একান্ত আলাপচারিতায় চ্যানেল ২৪

  • আম্পানে বাঁধ ভেঙ্গে ভেসে গেছে ৪ হাজারেরও বেশি চিংড়ি ঘের

  • মুন্সিগঞ্জে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মাইক্রোবাস খাদে পড়ে নিহত ৩

  • কৃষি বিজ্ঞানী ও কর্মকর্তাদের প্রণোদনার কথা ভাবছেন কৃষিমন্ত্রী

  • দিনাজপুরে বিষাক্ত মদপানে ৪ জনের মৃত্যু, অসুস্থ ১

  • ঝড়-বৃষ্টিতে রাজধানীর বেশ কিছু স্থানে গাছ উপড়ে পড়ে যান চলাচল বন্ধ

  • করোনায় থমকে গেছে কমিউনিটি সেন্টার ও কনভেনশন হলের ব্যবসা

  • করোনা মহামারীর নতুন কেন্দ্র: পেলে, রোনালদো, নেইমারদের দেশ ব্রাজিল

  • নিজের আইনজীবীর কাছে মামলার ভবিষ্যত জানতে চান খালেদা জিয়া

  • করোনায় মৃতের পাশে নেই স্বজনরা, দাফন-সৎকারে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন

করোনা মোকাবিলায় দেশেই তৈরি হচ্ছে চিকিৎসা সরঞ্জাম

করোনা মোকাবিলায় দেশেই তৈরি হচ্ছে চিকিৎসা সরঞ্জাম

যখন চারিদিকে করোনার নানা সরঞ্জাম নিয়ে হাহাকার, তখন দেশেই চিকিৎসা সরঞ্জাম তৈরির কারখানা দেখাচ্ছে আশার আলো। আন্তর্জাতিক মানদন্ড বজায় রেখে দেশেই এখন তৈরি হচ্ছে নানা ধরনের বেড, গ্লাভস, নেবুলাইজার থেকে শুরু করে স্পর্শকাতর নানা ডাক্তারি যন্ত্রাংশ। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এর মাধ্যমে নতুন একটি ক্ষেত্র যেমন তৈরি হলো, তেমনি বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয়, কর্মসংস্থান ও ডাক্তারি যন্ত্রাংশের দেশীয় বাজারে সহজলভ্য হলো।

করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বজুড়েই সংকট দেখা দিয়েছে, চিকিৎসা সামগ্রির। যোগান ঠিক রাখতে, হিমশিম খাচ্ছে উন্নত দেশগুলো।

তবে, দেশেই চিকিৎসা সামগ্রি তৈরি করছে, প্রমিস্কো গ্রুপ। ২০০০ সালে যাত্রা শুরু করা প্রতিষ্ঠানটি, কোনো রোগীর হাসপাতালে প্রবেশের পর থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা পর্যন্ত, যত ধরণের চিকিৎসা সরঞ্জাম লাগে, তার অর্ধেকই উৎপাদন করে। এছাড়া, নতুন ১১ ধরনের স্পর্শকাতর মেডিকেল ইকুইপমেন্ট তৈরির প্রস্তুতিও চলছে, জোরেশোরে।

প্রমিস্কো গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মৌসুমী ইসলাম বলেন, হাসপাতালে প্রবেশের শুরুতেই যে ট্রলি বা হুইলচেয়ার থেকে শুরু করে আইসিইউ পর্যন্ত সব ধরণের পণ্য আমরা দিতে পারছি।

যেকোনো দুর্যোগকালীন পরিস্থিতির যে ধরনের চিকিৎসা সরঞ্জাম সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন হয়, সেগুলোর ব্যাপারে আগে থেকেই প্রস্তুতি নেয়ার কথা জানালেন, প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার। যাতে সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও তাদের কাছ থেকে প্রতিনিয়ত পণ্য কিনছেন।

মৌসুমী ইসলাম বলেন, শক্তিশালী স্বাস্থ্য ব্যবস্থার জন্য যে আইসোলেশন দরকার সেই আইসোলেশনের সব ধরণের ব্যবস্থা আমরা করতে পারবো।

দেশের ৯৫ শতাংশ চিকিৎসা সরঞ্জামই আমদানি নির্ভর। এটি কমাতে সরকারের কাছে প্রণোদনা নয়, নীতিগত সহায়তার দাবি জানান, তিনি। সেই সাথে গবেষণা ও মানোন্নয়নে আধুনিক ল্যাবরেটরি এখন সময়ের দাবি।

গার্মেন্টস কিংবা চামড়াজাত শিল্পের মত এবার সয়ংসম্পূর্নতার পথে হাটছে বাংলাদেশের মেডিকেল ইকুইপমেন্ট শিল্প। তবে যাত্রপথ আরও বহুদূর বাকী। সংশ্লিষ্টা জানালেন এই সময়ের মধ্যে সরকারের নীতিগত সহায়তা পেলে ২০২৫ সালের মধ্যে এই খাতকে আরও বহুদূর এগিয়ে নেওয়া যাবে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর