channel 24

সর্বশেষ

  • নারায়ণগঞ্জ জেলা সম্পূর্ণরূপে লকডাউন

  • বিশ্বে প্রাণহানি ৭৮ হাজার ছাড়ালো, জাপানে জরুরি অবস্থা জারি

  • অভিনব কায়দায় মাস্ক চুরি করলো যুক্তরাষ্ট্র!

  • করোনা আতঙ্কের মাঝে সুখবর দিলেন সাকিব ও মাহমুদউল্লাহ

  • ২২০টি করোনা শনাক্তের কিট দিলেন সাবেক এমপি রুহী

  • করোনায় আক্রান্ত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি

  • জামালপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুটি বিশেষ বাজার চালু

  • ঢাকার বাইরে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত নারায়ণগঞ্জবাসী, টাঙ্গাইল লকডাউন

  • করোনা উপসর্গ নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে ৪ জনের মৃত্যু

  • চিকিৎসা না দিয়ে ফিরিয়ে দেয়ায় রাস্তায় নবজাতক প্রসব

  • কর্মহীন হয়ে পড়া খেটে খাওয়া মানুষদের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন অনেকেই

  • বান্দরবানে নিজস্ব উদ্যোগে সুরক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তুলেছে ম্রো জনগোষ্ঠি

  • বঙ্গবন্ধুর খুনি আব্দুল মাজেদ গ্রেপ্তারের পর কারাগারে

  • লকডাউনের মাঝেই জার্মানিতে বায়ার্ন মিউনিখের অনুশীলন শুরু

  • মারা গেলেন ফুটবল কোচ রাদোমির অ্যান্টিচ

দেশে দেশে বন্ধ হচ্ছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, চাকরি হারানোর শঙ্কায় কোটি মানুষ

দেশে দেশে বন্ধ হচ্ছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, চাকরি হারানোর শঙ্কায় কোটি মানুষ

করোনাভাইরাসের কারণে সব ধরনের ব্যবসায়িক কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ জারি করেছে বিভিন্ন দেশের সরকার। একইসঙ্গে কর্মীদের বাধ্যতামূলক ছুটির নির্দেশও দেয়া হচ্ছে। এর মধ্যেই দীর্ঘমেয়াদে চাকরি হারানোর শঙ্কায় রয়েছেন কোটি মানুষ। এ বৈশ্বিক মহামারিতে চাকরি হারাতে পারে, অন্তত ৫৩ লাখ নিম্ন আয়ের শ্রমিক। সবচেয়ে বেশি ঝুঁকির মধ্যে পর্যটন ও খাবার দোকানের কর্মীরা।

করোনাভাইরাস বিশ্বব্যাপী এমন সব ঘটনার জন্ম দিচ্ছে যা এর আগে কখনোই হয় নি। সংকুচিত হচ্ছে, ব্যবসায়িক কার্যক্রম- বন্ধের ঝুঁকিতে- উৎপাদন ও আমদানি-রপ্তানি। যার ফলে চাকরি হারানোর আশঙ্কায় আছেন সারাবিশ্বের কয়েক কোটি মানুষ।

গ্রে অ্যান্ড ক্রিসমাসের আহ্বায়ক অ্যান্ডি চ্যালেঞ্জার বলেন, প্রতি সপ্তাহে শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই অন্তত ৭০ হাজার মানুষ চাকরি হারাচ্ছে। গেলো কয়েক বছরে কোনো দেশই এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়নি।

আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা- আইএলও এর হিসাবে, ২০১৯ সাল পর্যন্ত বিশ্বে মোট বেকার ছিলো ১৮ কোটি ৮০ লাখ মানুষ। এর সঙ্গে চলতি বছরেই, যোগ হতে পারে আরো অন্তত আড়াই কোটি। এ বৈশ্বিক মহামারিতে চাকরি হারানোর শঙ্কায় রয়েছে অন্তত ৫৩ লাখ নিম্ন আয়ের শ্রমিক। আর মধ্য ও উচ্চ আয়ের মানুষের মধ্যে বেকার হবে ২ কোটি ৪৭ লাখের বেশি মানুষ।

গ্রে অ্যান্ড ক্রিসমাস আহ্বায়ক অ্যান্ডি চ্যালেঞ্জার বলেন, প্রতি সপ্তাহেই বিভিন্ন দেশ ও রাজ্যে দোকান, রেস্ট্যুরেন্টসহ সব ব্যবসায়িক কার্যক্রম বন্ধের ঘোষণা দিচ্ছে প্রশাসন। চাকরিচ্যুতির সংখ্যা দিন দিন ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে। এক অজানা পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে চলেছে বিশ্ব অর্থনীতি।

ইন্টারন্যাশনাল লেবার অর্গানাইজেশনের মহাপরিচালক গাই রাইডার জানান, করোনাভাইরাস মহামারি রূপ নেয়ায় বিশ্বব্যাপী একের পর এক ব্যবসা বন্ধ হচ্ছে। প্রতিদিনই কাজ হারাচ্ছে দিনমজুরসহ বিভিন্ন শ্রেণির কর্মী। ভাইরাসের মতোই দ্রুত বাড়ছে বেকারের সংখ্যা। অবস্থায় অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা ধরে রাখা আমাদের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট তো এরইমধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি ৫ জনে চাকরি হারাতে পারে অন্তত একজন। সতর্ক করে বলেছেন, এপ্রিলের মধ্যেই সব ধরনের ব্যবসায়িক কার্যক্রমে স্থবিরতা দেখা দিবে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় ৪ লাখ কোটি ডলারের জরুরি ত্রাণ তহবিল ঘোষণা করেছেন মার্কিন অর্থমন্ত্রী।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, দৈনিক প্রচুর মানুষ তাদের আয়ের উৎস হারাচ্ছে। শুধু আমেরিকার চিত্র দেখলেই বিশ্ব সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। পরিস্থিতি সামাল দেয়ার মতো কোনো পরিকল্পনা আমাদের কাছে নেই। করোনাভাইরাস সংক্রমণ বন্ধ হলেও নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে অনেক সময় ব্যয় হবে।

এর আগে ২০০৮-০৯ এ বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দায় চাকরি হারিয়েছিলেন ২ কোটি ২০ লাখ মানুষ।

 

 

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর