channel 24

সর্বশেষ

  • করোনায় বিশ্বে প্রাণহানি প্রায় ৫৯ হাজার; আক্রান্ত ১০ লাখের বেশি

  • ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে মানুষের ঢল

  • পণ্যের পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকলেও ক্রেতা নেই রাজধানীর কাঁচাবাজারে

  • ব্রিটেনে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ৬৮৪ জনের প্রাণহানি

  • চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত প্রথম একজন শনাক্ত, বাড়ি লকডাউন

  • সাধারণ ছুটিতে বিপাকে ছিন্নমূল ও খেটেখাওয়া মানুষেরা

  • করোনার থাবায় নাস্তানাবুদ গোটা বিশ্ব, আক্রান্ত ছাড়ালো ১০ লাখ

  • খুলনায় বেশিরভাগ হাসপাতালে মিলছে না চিকিৎসা, ভোগান্তিতে রোগীরা

  • কিশোরগঞ্জে অটোরিকশার সিরিয়ালকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, নিহত ১

  • যে ছবি ভাইরাল হয়েছে

  • অনেক পণ্যের দাম কমলেও চট্টগ্রামে বেড়েছে চাল, ডালের মূল্য

  • একমাস লকডাউনের ঘোষণা সিঙ্গাপুরের

  • চট্টগ্রামে ত্রাণ বিতরণে সমন্বয় নেই, নেই হতদরিদ্রদের তালিকা

  • চট্টগ্রামে করোনা মোকাবিলায় ১০টি আইসিইউ শয্যা বরাদ্দ

  • খাগড়াছড়িতে পিকআপ ভ্যান উল্টে ১৮ পুলিশ সদস্য আহত

ফুরিয়ে যাচ্ছে দেশের গ্যাস, অনুসন্ধানে নেই অগ্রগতি

ফুরিয়ে যাচ্ছে দেশের গ্যাস, অনুসন্ধানে নেই অগ্রগতি

ফুরিয়ে যাচ্ছে দেশের গ্যাস। অন্যদিকে গত ১০ বছরে স্থলভাগে গ্যাস অনুসন্ধানে নেই কোন অগ্রগতি। জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী বলছেন, সমন্বিত পরিকল্পনা নিয়ে গ্যাস অনুসন্ধানের পরিধি বাড়াতে চাচ্ছেন তারা। একজন বিশেষজ্ঞ বলছেন, সুষ্ঠু পরিকল্পনার অভাবেই মুখ থুবড়ে পড়েছে গ্যাসের অনুসন্ধান কার্যক্রম।

দেশের ২২টি ক্ষেত্রের ১১৩টি কূপ থেকে তোলা হচ্ছে গ্যাস। এগুলোর অবস্থান মূলত সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগে।

২০০৯ সাল থেকে স্থলভাগে গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলন কার্যক্রমের দায়িত্বভার দেয়া হয়, রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান বাপেক্সকে। এক দশকে ১টি ক্ষেত্রে অনুসন্ধান কার্যক্রম চালিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। সাফল্য মাত্র দুটিতে। এরমধ্যে সুন্দলপুর, গাজীপুরের কাপাসিয়া, সুনেত্র, রূপগঞ্জ কিংবা পাবনার মোকারকপুর ক্ষেত্র সম্পর্কে পেট্রোবাংলার প্রথম দিকের কথা পরে পরিণত হয় নিরাশায়।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলছেন, এই হতাশা কাটাতে নতুন করে ভাবতে চান তারা।

দেশের উত্তর-পূর্ব, হাওর এলাকা আর পার্বত্য অঞ্চলে কোনো অনুসন্ধান কার্যক্রমই সেভাবে চালায়নি পেট্রোবাংলা। এমনকি সিলেটের ছাতক গ্যাসফিল্ডের পূর্ব দিকেও রয়েছে সম্ভাবনা।

বিশেষজ্ঞ এবং বাপেক্সের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মর্তুজা আহমেদ ফারুক বলছেন, খুব জোরেশোরে এসব এলাকায় অনুসন্ধান কার্যক্রম হাতে নেয়া উচিত।

আবিষ্কৃত ক্ষেত্রগুলো থেকে দৈনিক তিন হাজার মিলিয়ন ঘনফুটের কিছু বেশি গ্যাস উত্তোলন করা হয়। এভাবে তুলতে থাকলে, নতুন ক্ষেত্র আবিষ্কার না হলে, এক দশকেই ফুরিয়ে যাবে সব গ্যাস।

বাপেক্সের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মর্তুজা আহমেদ ফারুক বলেন, কাজ করতে হলে সুষ্ঠ পরিকল্পনা দরকার। সেই পরিকল্পনার ভিত্তিতেই এগুতে হবে। বাপেক্সের সক্ষমতা অনুযায়ী কার্যক্রম নেওয়াটাই এখানে সুষ্ঠু পরিকল্পনা।

বারবার উদ্যোগ নিলেও, পার্বত্য অঞ্চলে তেল-গ্যাস অনুসন্ধানে কোনো সহযোগী খুঁজে পাচ্ছে না বাপেক্স।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর