channel 24

সর্বশেষ

  • দেশে করোনায় ২৪ ঘন্টায় প্রাণহানি ৩, নতুন করে শনাক্ত ৫৪

  • র‍্যাবের মহাপরিচালক হলেন চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল-মামুন

  • বেনজীর আহমদকে পুলিশ মহাপরিদর্শক করে প্রজ্ঞাপন

  • করোনা সংক্রমণ রোধে ঢাকার ৫০টির বেশি এলাকার ও বাড়ি লক ডাউন

  • করোনায় ঘরবন্দি বেশিরভাগ মানুষ, সুস্থ থাকতে সুষম খাদ্যাভাস ও শরীর চর্চার পরামর্শ

  • দেশে করোনার সামাজিক সংক্রমণ শুরু, ১৫ জেলায় মিলেছে রোগী

  • মহামারি সংক্রমণ আইন প্রথমবারের মতো কার্যকর, তবে মানছেন না কেউ

  • ঢাকা মেডিকেলে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন যুবকের মৃত্যু

  • বঙ্গবন্ধুর খুনি ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) মাজেদের মৃত্যু পরোয়ানা জারি

  • টাঙ্গাইলে করোনা রোগী শনাক্ত, আশেপাশের ৩৫ টি বাড়ি লকডাউন

  • বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অর্থ তহবিল বন্ধের হুঁশিয়ারি ট্রাম্পের

  • চীনের উহানে খুলে দেওয়া হয়েছে বিমানবন্দর ও রেল স্টেশন

  • করোনা উপসর্গে কাপাসিয়ায় মেডিকেল ছাত্রের মৃত্যু

  • নিউইয়র্ক যেন মৃত্যুনগরী

  • করোনায় প্রাণহাণি ছাড়ালো ৮২ হাজার

যুক্তরাজ্যে পৃথক অভিবাসন নীতি বাস্তবায়নের ঘোষণা

যুক্তরাজ্যে পৃথক অভিবাসন নীতি বাস্তবায়নের ঘোষণা

পৃথক অভিবাসন নীতি বাস্তবায়নের ঘোষণা দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। প্রধানমন্ত্রী জানান, শিক্ষাগত যোগ্যতা, ইংরেজি ভাষায় দক্ষতাসহ পয়েন্টভিত্তিক ভিসা অনুমোদন পদ্ধতি চালু করা হবে। ২০২১ সালের মধ্যে এ নীতি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার। বরিস জনসনের এমন পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছেন ব্রেক্সিটপন্থীরা। তবে সমালোচনাও সহ্য করতে হচ্ছে প্রশাসনকে।

বহু আন্দোলন, আলোচনা আর নাটকীয়তার পর অবশেশে গেলো ৩১শে জানুয়ারি ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে আলাদা হয় হয় যুক্তরাজ্য। তবে এখনও দেশটিতে অবস্থান করছেন ইইউভুক্ত দেশের অনেক নাগরিক। যা নিয়ে বেশ সরগরম যুক্তরাজ্য। এরইমধ্যে অভিবাসন নীতি সংস্কারের ঘোষণা দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রীতি পাটেল বলেন, যুক্তরাজ্যের অভিবাসন নীতি সংস্কারের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত সময় এটি। অর্থনৈতিক উন্নয়নের বিষয় বিবেচনায় নিয়ে দক্ষকর্মী আকর্ষণে পয়েন্টভিত্তিক ভিসা পদ্ধতি চালুর প্রস্তাব সত্যিই প্রশংসনীয়।

ব্রেক্সিটপন্থী নেতা নিগেল ফারাগ বলেন, যুক্তরাজ্যের মূলনীতিতে অভিবাসন, বাণিজ্যসহ সব ক্ষেত্রেই বেশ কিছু ইতিবাচক পরিবর্তন আনবে সরকার। দীর্ঘদিন ধরে এমন পদক্ষেপের অপেক্ষায় ছিলো স্থানীয়রা। তাদের অধিকার রক্ষায় কঠোর অবস্থানে থাকবে বরিস জনসন প্রশাসন।

লেবার পার্টির অভিবাসন মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত ছায়ামন্ত্রী বেল রিবেইরো অ্যাডি বলেন, শিক্ষার্থীদের খণ্ডকালীন কাজের সুযোগ দেয়া হবে। নতুন নীতি বাস্তবায়ন হলে দক্ষ কর্মীদের পছন্দের শীর্ষে থাকবে যুক্তরাজ্য।

লেবার পার্টির ছায়া স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ডায়না অ্যাবোট বলেন, অর্থনীতি ও কর্ম পরিবেশের উন্নয়নে আমাদের দক্ষ কর্মী প্রয়োজন। সেদিক বিশেষ নজর দেয়া হচ্ছে। একইসঙ্গে কম বেতনে কর্মী নিয়োগের বিষয়টিও বিবেচনা করা হচ্ছে।

অভিবাসী গমন সর্বনিম্নে নামানোর চেষ্টা থাকলেও দক্ষ কর্মীদের বিশেষ সুযোগ দেয়া হবে। প্রতিটি ক্ষেত্রেই স্বচ্চতা নিশ্চিত করবে সরকার।

ইউনাইটেড করপোরেশন লিমিটেডের মহাপরিচালক করিম ফাতেহি বলেন, অনেক দক্ষ কর্মী যুক্তরাজ্য ছাড়লেও সরকারের কঠোরতায় শূন্য পদে নিয়োগ দেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

কনফেডারেশন অব ব্রিটিশ ইন্ডাস্ট্রির মহাপরিচালক ক্যারোলিন ফেয়ারব্রেইন বলেন, ব্রেক্সিট কার্যকরের পর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে যোগ্য কর্মীর সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না। আবেদনও অনেক কমে গেছে।  

যুক্তরাজ্যের অভিবাসন মন্ত্রণালয়ের হিসাবে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত ২৭ দেশের ৩০ লাখের বেশি নাগরিক দেশটিতে অবস্থান করছেন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর