channel 24

সর্বশেষ

  • র‍্যাবের মহাপরিচালক হলেন চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল-মামুন

  • বেনজীর আহমদকে পুলিশ মহাপরিদর্শক করে প্রজ্ঞাপন

  • করোনা সংক্রমণ রোধে ঢাকার ৫০টির বেশি এলাকার ও বাড়ি লক ডাউন

  • দেশে করোনার সামাজিক সংক্রমণ শুরু, ১৫ জেলায় মিলেছে রোগী

  • মহামারি সংক্রমণ আইন প্রথমবারেরমতো কার্যকর, তবে মানছেন না কেউ

  • ঢাকা মেডিকেলে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন যুবকের মৃত্যু

  • বঙ্গবন্ধুর খুনি ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) মাজেদের মৃত্যু পরোয়ানা জারি

  • টাঙ্গাইলে করোনা রোগী শনাক্ত, আশেপাশের ৩৫ টি বাড়ি লকডাউন

  • বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অর্থ তহবিল বন্ধের হুঁশিয়ারি ট্রাম্পের

  • চীনের উহানে খুলে দেওয়া হয়েছে বিমানবন্দর ও রেল স্টেশন

  • করোনা উপসর্গে কাপাসিয়ায় মেডিকেল ছাত্রের মৃত্যু

  • নিউইয়র্ক যেন মৃত্যুনগরী

  • করোনায় প্রাণহাণি ছাড়ালো ৮২ হাজার

  • হজযাত্রী নিবন্ধন সময় ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত বৃদ্ধি

  • করোনা আক্রান্তদের বহনে প্রস্তুত বিমান বাহিনীর বিশেষ হেলিকপ্টার

ব্যাংকিং খাতের উন্নয়ন ছাড়া শেয়ার বাজার ঘুরে দাঁড়াবে না

ব্যাংকিং খাতের উন্নয়ন ছাড়া শেয়ার বাজার ঘুরে দাঁড়াবে না

পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের জন্য প্রতিটি ব্যাংক বিশেষ সুবিধায় দুইশো কোটি টাকা তহবিল গঠন করতে পারবে। সম্প্রতি এমন প্রজ্ঞাপন জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। যদিও পুঁজিবাজারের বর্তমান পরিস্থিতিতে ব্যাংকগুলো আদৌ এ সুবিধা নিতে আগ্রহী হবে কি না, তা নিয়ে শঙ্কিত বিশ্লেষকরা। তাদের মতে, শেয়ার বাজারের ইতিবাচক ধারা টেকসই না হলে এবং বিনিয়োগকারীদের আস্থা না ফিরলে এই খাতে উন্নতি অসম্ভব। তবে সবকিছুর আগে প্রয়োজন ব্যাংকিং খাতের দুরবস্থা দূর করা।

পুঁজিবাজারে বিনিয়োগে প্রত্যেক ব্যাংক ২শ কোটি টাকার তহবিল গঠন করতে পারবে বলে সম্প্রতি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সুযোগ দেয়া হয়েছে পুন:অর্থায়নযোগ্য তহবিল গঠনের। একই সাথে ব্যাংকগুলোর একক বিনিয়োগের ক্ষেত্রে যে বিধি নিষেধ ছিল সেটিও প্রত্যাহার করা হয়েছে।

বিশ্বব্যাংকের সাবেক লিড ইকোনমিস্ট ড. জাহিদ হোসেন বলেন, গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে এই ধরণের লিকুইডিটি ফ্যাসিলিটি দেওয়া হয়েছে যদিও ওখানে ইন্টারেস্ট ৬% ছিল। সেখানে একটা ব্যাংক ছাড়া অন্য কেউ আগ্রহ দেখায় নাই। এখন এইবারেরটাতে আগ্রহ দেখাবে কিনা সেটা শেয়ার বাজারের আস্থার যে সংকট সেখানে খুব একটা উন্নতি হয় নাই। যেহেতু আগামীতে দাম বাড়ার প্রত্যাশা আছে বর্তমানে সেখানে শেয়ার কিনা হয় লাভের আশায়। সেটা সাময়িক শেয়ার বাজার চাঙ্গা হওয়ায় আশা আছে। তবে ব্যাংকরা যদি আগ্রহ না দেখায় তাহলে এই প্রত্যাশাটা পরিপূর্ণ হবে না।

তবে এই সুযোগ গ্রহণে ব্যাংকগুলো কতটা আগ্রহী হবে তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন বিশ্লেষকরা।

তাদের মতে, নতুন এ উদ্যোগ সাময়িকভাবে বাজারের সূচক বাড়াতে পারে। কিন্তু সেটি টেকসই না হলে এবং ব্যাংকিং খাতের দুর্বলতা দূর না হলে দীর্ঘমেয়াদে কোন ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে না।

বিনিয়োগে আস্থা ফেরানো এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থার শক্তিশালী পদেক্ষেপ নিশ্চিতের বিষয়েও গুরুত্ব দেন তারা।

পিআরআই'র নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, আস্থার অবক্ষয় এবং সেটা ফিরে আসছে না। কোম্পানি বা মার্কেটের যে ফান্ডামেন্টাল আছে সেখানে দুর্বলতা আছে। ব্যাংকে তারল্য সঙ্কটের কারণে ইচ্ছা করলেও টাকা পেতে অনেক সময় দেরি হয়।
 
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নতুন প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, ব্যাংকগুলো সম্মিলিতভাবে সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকার বেশি পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করতে পারবে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর