channel 24

সর্বশেষ

  • ভারতের কেরালায় ১৯১ যাত্রী নিয়ে বিমান দুর্ঘটনা, নিহত ১৫

  • ফুটবলারদের করোনা টেস্ট নিয়ে বিব্রত ফেডারেশন

  • শ্রীলঙ্কা সফরে ফিরছেন সাকিব আল হাসান

  • কাল আবার শুরু ক্রিকেটারদের একক অনুশীলন

  • সাবেক মেজর সিনহা হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন

  • ওসি প্রদীপ ও লিয়াকতসহ আসামিদের এখনও জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেনি র‍্যাব

  • মুজিব বর্ষেই বঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে এনে বিচার করা হবে: পররাষ্টমন্ত্রী

  • কাশিমপুর কারাগার থেকে কয়েদি নিখোঁজের ঘটনায় ৬ জন সাময়িক বরখাস্ত

  • বরিশালে টেম্পু-বাস শ্রমিকদের সংঘর্ষ

  • দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ঢাকা ফেরা মানুষের ভিড়

  • চট্টগ্রামে বন্ধুকে খুন করে জানাজা-দাফনে অংশ নিল কিশোর

  • ১৭ আগস্ট থেকে চালু হচ্ছে কক্সবাজারের সব পর্যটনকেন্দ্র

  • সিনহা ইস্যুতে কেউ কেউ সরকার হটানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে: কাদের

  • করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে আক্রান্ত রোগীর সেবা দিবে রোবট

  • কাশিমপুর কারাগার থেকে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত কয়েদি নিখোঁজ

পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা: গ্যাস অনুসন্ধানে নেই পরিকল্পনা, নজর আমদানিতে

পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা: গ্যাস অনুসন্ধানে নেই পরিকল্পনা, নজর আমদানিতে

পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় বিদ্যুৎ খাতে ব্যাপক উন্নয়নের লক্ষ্য থাকলেও একরকম উপেক্ষিত দেশীয় জ্বালানি খাত। গ্যাস অনুসন্ধানে নেই বড় কোনো পরিকল্পনা। ফলে নজর বাড়ছে আমদানির দিকে। আর এসবের পেছনে খরচের লক্ষ্যমাত্রা ১৫ বিলিয়ন ডলার। প্রতিমন্ত্রী বলছেন, এখনও ছোটবড় বাধা রয়ে গেছে জ্বালানি খাতের সার্বিক উন্নয়নে। যা নিয়ে চিন্তিত বিশেষজ্ঞরাও।

গত চারযুগে অর্থনীতির আয়তন, ভিত্তি এবং সক্ষমতা বাড়াতে বড় অবদান ছিল জ্বালানি খাতের। তবে শেষ দশকে এই খাতের উন্নয়নে গতি ছিল কম। ফলে উৎপাদনের ক্ষেত্রে দেশীয় প্রতিষ্ঠানের বদলে অংশ বেড়ে গেছে বিদেশি তেল কোম্পানিগুলোর। সেই সাথে নজর বেড়েছে আমদানির দিকে। যা সস্তা জ্বালানির কারণে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকা উৎপাদনশীল খাতকে ফেলেছে কিছুটা দুশ্চিন্তায়।

ঢাকা চেম্বারের সাবেক সভাপতি আবুল কাশেম খান বলেন, ফরেন সোর্সের উপর নির্ভরতা বেড়ে গেলে অনেক ক্ষেত্রেই প্রতিযোগীতার জায়গাটা হারিয়ে যাবে।  

এমন বাস্তবতায় পরের পাঁচ বছরের জন্য নেয়া হয়েছে নতুন পরিকল্পনা। যেখানে আগের ১০৫টি কূপ খনন থেকে সরে সেই সংখ্যা নামিয়ে আনা হয়েছে ৫ ভাগের একভাগে। অর্থাৎ কমানো হয়েছে দেশীয় উৎস থেকে সরবরাহের লক্ষ্যমাত্রা। অন্যদিকে, পূর্ণ রূপরেখা দেয়া হয়নি সাগরে গ্যাস অনুসন্ধানে। তাই বিশ্লেষকরা বলছেন, বিদ্যুৎ খাতের সাথে সমান্তরালে গুরুত্ব দেয়া জ্বালানি খাতে।

জ্বালানী বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক বদরুল ইমাম বলেন, আগামী ৫ থেকে ১০ বছরের মধ্যে যে সমস্ত বিদ্যুৎ কেন্দ্র চালু হতে যাচ্ছে সেগুলোর জন্য দেশীয় গ্যাস বা জ্বালানী সরবরাহের কোন পরিকল্পনা নেই।

২০২৫ সাল পর্যন্ত জ্বালানি খাতে মোট খরচের চিন্তা ১৫ বিলিয়ন ডলার বা ১ লাখ ২৭ হাজার কোটি টাকা। যার যোগান আসবে সরকারি, বেসরকারি, এবং বিদেশি বিনিয়োগের মাধ্যমে। অথচ কূপ খনন, সংস্কার এবং জরিপের পেছনে বরাদ্দ মাত্র ৭ হাজার কোটি। বাকিটা যাবে বিতরণ, সঞ্চালনসহ অন্যান্য খাতে। তার মানে হলো, নিজস্ব অনুসন্ধানের বদলে বেশি মনোযোগ দেয়া হচ্ছে আমদানির অবকাঠামো তৈরি এবং ব্যবস্থাপনার দিকে।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু বলেন, গ্যাস উত্তোলনে অনেক ধরণের বাধা রয়েছে।  

দেশের ২৭টি গ্যাস ক্ষেত্রের মধ্যে উৎপাদনে ২০টি। আর চাহিদা এবং সরবরাহের মধ্যে থাকা দৈনিক ১শ কোটি ঘনফুটের ঘাটতি মেটাতে হচ্ছে এলএনজি আমদানি করে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর