channel 24

সর্বশেষ

  • কুষ্টিয়ায় এনআইডি জালিয়াতি: এজাহারভুক্ত আরও ২ জন গ্রেপ্তার

  • বিভিন্ন দেশের জাল পাসপোর্ট ও ভিসা তৈরি চক্রের হোতা আটক

  • গোপালগঞ্জে তুহিন হত্যাকান্ডের প্রধান আসামী গ্রেপ্তার

  • খুলনা মডেল স্কুল থেকে চুরি হওয়া ২১টি ল্যাপটপ ঢাকায় উদ্ধার

  • নানা আয়োজনে শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন পালন

  • মাত্র ২৫ হাজার টাকা ঋণে করা কারখানায় কাজ করছে ২০০ শ্রমিক

  • ভারতে নারী পাচারকারী চক্রের ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি

  • জ্বালানি খাতের প্রতিষ্ঠান লুব-রেফ এর আইপিও অনুমোদন

  • বেসরকারি মেডিকেলে ২৫ ভাগের বেশি পার্টটাইম শিক্ষক রাখা যাবে না

  • আটকা পড়া প্রবাসীদের পাঠানোর বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে নির্দেশ

  • করোনায় দেশে আরও ৩২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৪০৭

  • ভদ্রবেশি অপরাধীদের জন্য সাহেদের বিরুদ্ধে রায় সতর্কবার্তা: আদালতের পর্যবেক্ষণ

  • আপাতত শ্রীলঙ্কা সফরে যাচ্ছে না বাংলাদেশ

  • ইতালিয়ান লিগে জুভেন্টাসের ড্র

  • ভার্ডির হ্যাটট্রিকে ম্যান সিটিকে লজ্জার হার উপহার দিলো লেস্টার

মূলধারার অর্থনীতির সাথে যুক্ত হচ্ছে চীনের প্রান্তিক অঞ্চলের বাসিন্দারা

মূলধারার অর্থনীতির সাথে যুক্ত হচ্ছে চীনের প্রান্তিক অঞ্চলের বাসিন্দারা

বিশ্ববাজারে নিজেদের বাণিজ্য পরিধি আরো বাড়াতে ২০১৯ সালে সম্প্রসারিত অর্থনীতির দিকে নজর দেয় চীন। এরই ধারাবাহিকতায় দেশটির পার্বত্য অঞ্চলে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে মূল ধারার অর্থনীতিতে যোগ করছে দেশটি। দরিদ্রের হার কমাতে প্রতিটি পরিবার থেকে অন্তত একজনকে কাজে নিয়োগ দেয় প্রশাসন। স্থাপন করা হয়েছে স্থানীয় বাণিজ্য কেন্দ্র। অনলাইনে পণ্য কেনাবেচায় যুক্ত হয়েছে গ্রামাঞ্চলের মানুষও।

কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় সম্প্রসারিত অর্থনীতির দিকে ২০১৯ সাল থেকে নজর দিচ্ছে চীন। উন্নত হয়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থাও। দুর্গম পার্বত্য অঞ্চলের বাসিন্দাদের সরিয়ে সমতলে পুনর্বাসন করেছে প্রশাসন দিয়েছে নানা প্রশিক্ষণ।

কনজো কাউন্টির প্রধান কর্মকর্তা তাসি বলেন, অর্থনৈতিক দূরাবস্থা থেকে উত্তরণে পার্বত্য অঞ্চলে বসবাসকারীদের বিভিন্ন গ্রামে স্থানান্তর করা হয়েছে। কৃষি, মাছ চাষ, গৃহপালিত পশু পালন, ঘর নির্মাণসহ বৈদ্যুতিক কাজ তাদের শেখানো হচ্ছে।

মূল ধারার অর্থনীতির সাথে সম্পৃক্ত হয়েছে প্রান্তিক অঞ্চলের মানুষ। দরিদ্রের হার কমাতে প্রতি পরিবার থেকে অন্তত একজনকে কাজে নিয়োগ দিচ্ছে প্রশাসন। প্রশিক্ষণ নিয়ে আত্মকর্মসংস্থানেও মনোনিবেশ করছেন কেউ কেউ।

গত কয়েক বছরে অর্থনীতিতে দারুণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। ক্রমান্বয়ে কমেছে বেকারত্ব ও দরিদ্রতা। গৃহহীনদের ঘরও দিয়েছে সরকার।

দাগজে জেলা উপপ্রধান সেওয়াং ডরজে বলেন, প্রশিক্ষিতদের নানা কাজে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। প্রত্যেকের জন্যই কাজের সমান সুযোগ রয়েছে। প্রতি পরিবার থেকে কমপক্ষে একজন এবং বড় পরিবারগুলো থেকে দুইজনকে কাজ দেয়া হচ্ছে।

ইন্ডাস্ট্রিয়াল প্রজেক্ট অব রোড কমিউনিটির পরিচালক হুরাঝবেক তুলান বলেন, সরকারের নানা পদক্ষেপের পাশাপাশি বেসরকারি উদ্যোগে অনেক কর্মসংস্থান হয়েছে। দরিদ্রদের অনেকেই ছোট ছোট ব্যবসা শুরু করেছে। নিজেদের কর্মসংস্থানের পাশাপাশি অন্যদেরও আয়ের ব্যবস্থা করছে তারা। দরিদ্রসীমা অতিক্রম করেছে অনেক মানুষ।

সদ্য সমাপ্ত বছরে প্রান্তিক অঞ্চলের বাসিন্দাদের জন্য চিকিৎসা, শিক্ষা, নিরাপদ পানীয়সহ সব ধরনের সেবা নিশ্চিত করেছে সরকার। এ সময়ে নানা অঞ্চলে স্থাপন করা হয়েছে বাণিজ্য কেন্দ্র। একইসাথে অনলাইনে পণ্য কেনাবেচায় যুক্ত হয়েছে গ্রামাঞ্চলের মানুষও।

ত্রয়োদশ পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় ২০২০ সালের মধ্যে দারিদ্রের হার সর্বনিম্নে নামানোর লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে প্রশাসন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর