channel 24

সর্বশেষ

  • বিড়াল উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিস!

  • মুজিব বর্ষ উপলক্ষ্যে সুপ্রিমকোর্টে ক্ষণ গণনার ঘড়ি উদ্বোধন

  • করোনা ভাইরাস: শাহজালাল বিমানবন্দরে বসানো হয়েছে স্ক্যানিং মেশিন

  • শেষ হল নারী ফুটবল লিগের দলবদল

  • নড়াইলে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী ষাঁড়ের লড়াই

  • মৌলভীবাজার আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে তিনদিন ধরে সার্ভারে সমস্যা

  • এক নারীকে নির্যাতনের পর পিকআপ থেকে ফেলে দেয়ার অভিযোগ

  • মিথ্যা ঘোষণায় আনা ১ কন্টেইনার সিগারেট জব্দ

  • বাংলাদেশকে অন্ধকার থেকে আলোতে এনেছে আ.লীগ: পরিকল্পনামন্ত্রী

  • কলেজছাত্রী হত্যা মামলায় প্রভাষকের মৃত্যুদণ্ড, এডভোকেটের যাবজ্জীবন

  • তেঁতুলিয়ায় শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে নিহত ১, আহত অর্ধশতাধিক

  • হামলা-মামলার বিষয়ে কূটনীতিকদের অবহিত করলো বিএনপি

  • নিখুঁতভাবে কৃষিকাজ করছে রোবট

  • ইলিশের পুষ্টিগুণ, ডিমছাড়া নাকি ডিমওয়ালা ইলিশটি বেশি স্বাদের?

  • মাছকে খাবার দিবে যন্ত্র! দেশেও শুরু হয়েছে এই প্রযুক্তি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার 'সীমান্ত হাটে' চলছে অসম বেচাকেনা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার 'সীমান্ত হাটে' চলছে অসম বেচাকেনা

ভারত-বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের নিয়ে গড়ে উঠা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সীমান্ত হাটে চলছে অসম বেচাকেনা। চলতি বছর ভারতীয় পণ্য বিক্রি হয়েছে প্রায় চার কোটি টাকার। এর বিপরিতে বাংলাদেশি পণ্য বিক্রির পরিমাণ মাত্র ৫৪ লাখ টাকা। এতে ক্ষতির মুখে দেশীয় ব্যবসায়ীরা। ভারতীয় ক্রেতাদের চাহিদা বুঝে পণ্য বিক্রির পরিকল্পনা নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে বর্ডার হাট কমিটি।

২০১৫ সালে ভারত-বাংলাদেশ যৌথ মালিকানায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা সীমান্তে শুরু হয় 'সীমান্ত হাট'।শুরু থেকেই এ হাটে নিজ দেশের ১৫ থেকে ১৬টি পণ্য বিক্রি করছেন দুই দেশের ৫০ জন ব্যবসায়ী। শুরুতে বাজার চাঙ্গা থাকলেও এখন মন্দার দিকেহাটের বাণিজ্য।

ব্যবসায়ীরা জানান, বেশিরভাগ দোকানদার সারাদিন মশা মারে। আলটিমেটলি দুইটাকে যদি তুলনা করে বিচার করা হয় তাহলে দেখা যায় ইন্ডিয়ার যদি ১০ লক্ষ টাকা বিক্রি হয় তাহলে আমাদের ১ লক্ষ টাকাও বিক্রি হয় না। ওরা লোকজন কম ছাড়তেছে, আর আমাদের লোকজন বেশি হচ্ছে। ইন্ডিয়ার লোক আসে ২৫০ এর মতো আর আমাদের বাংলাদেশি লোক আসে প্রায় ১০০০।

এ বছরে ‌হাটটিতে ভারতীয় পণ্য বিক্রি হয়েছে প্রায় ৪ কোটি টাকার। যেখানে বাংলাদেশের পণ্য বিক্রি হয়েছে মাত্র ৫৩ লাখ টাকার। এমন অসম বিক্রির ফলে বিপাকে দেশীয় ব্যবসায়ীরা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া বর্ডার হাট কমিটির সভাপতি শামসুজ্জমান বলেন, যে সকল প্রোডাক্ট ইন্ডিয়ায় চাহিদা রয়েছে সেগুলো যেন ব্যবসায়ীরা তাদের দোকানে সাজায় সে ব্যাপারে আমার তাদের সাথে আলোচনা করবো।
 
ভারতীয় ক্রেতাদের চাহিদা বুঝে পণ্য বিক্রির পরিকল্পনা নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে বর্ডার হাট কমিটি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর