channel 24

সর্বশেষ

  • গণপরিবহনে জীবাণুনাশকের বদলে সাবান-পানির স্প্রে

  • করোনা সংক্রমণ ঝুঁকি থাকায় শিগগিরই চালু হচ্ছে না পাসপোর্টের বায়ো এনরোলমেন্ট

  • চট্টগ্রামে সরকারি হিসাব ও দাফন-সৎকারে গড়মিল

  • ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত

  • মন্ত্রী বীর বাহাদুর করোনায় আক্রান্ত

  • ঠাকুরগাঁওয়ে বাসের ধাক্কায় শ্রমিক ইউনিয়নের দপ্তর সম্পাদকের মৃত্যু

  • বিশ্বে করোনায় প্রাণহানি চার লাখ ছুঁই ছুঁই

  • ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস আজ

  • রাজধানীতে জোনভিত্তিক লকডাউন শুরু আজ

  • অ্যালকোহল কারখানার বর্জ্যে দূষিত হচ্ছে নদীর পানি; হুমকিতে মাছসহ জলজ প্রাণী

  • অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রধান পিআরও কর্মকর্তার ইন্তেকাল

  • জ্বর ও সর্দি-কাশি নিয়ে আজও প্রাণ গেলো ৯ জনের

  • যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জো বাইডেনের মনোনয়ন নিশ্চিত

  • 'পোশাক কারখানার শ্রমিক ছাঁটাইয়ের কথা বলেননি বিজিএমইএ সভাপতি'

  • সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসকসহ ২৭৭ কর্মকর্তা-কর্মচারী বেতন পান না দু'মাস

বাংলা বন্ড: বিনিয়োগে নতুন যুগের সূচনার প্রত্যাশা

বাংলা বন্ড: বিনিয়োগে নতুন যুগের সূচনার প্রত্যাশা

বাংলা বন্ড যা দিয়ে বিশ্ব পুঁজিবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করে বিনিয়োগ করা হবে বাংলাদেশে। এখান থেকে প্রথমবার ঋণ পাওয়া প্রাণ গ্রুপের চেয়ারম্যান বলছেন, বেসরকারি খাতে অর্থায়নে নতুন যুগের সূচনা করবে এই উদ্যোগ। অর্থনীতিবিদ ড. জাহিদ হোসেন মনে করেন, বিশ্ব পুঁজিবাজারে এই অন্তর্ভুক্তি অর্থনীতির জন্য ইতিবাচক।

লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জ। বিশ্ব পুঁজিবাজারে অন্যতম তীর্থকেন্দ্র। যেখান থেকে বন্ড ছেড়ে কাড়ি কাড়ি অর্থ সংগ্রহ করছে পূর্ব ও দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো।

গত ১১ নভেম্বর এই বাজারে প্রথমবারের মতো ঘণ্টা বাজলো বাংলাদেশের নামে। বাজারে এলো বাংলা বন্ড। বিশ্বব্যাংকের সহযোগি প্রতিষ্ঠান আইএফসির মাধ্যমে এই বন্ড দিয়ে এরইমধ্যে সংগ্রহ করা হয়েছে ১৬০ কোটি টাকারও বেশি অর্থ।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব পুঁজিবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করে বাংলাদেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ খাতে বিনিয়োগের মাধ্যমে আরও শক্তিশালী হবে দেশের অর্থনীতি।

বাংলা বন্ডের মাধ্যমে আসা টাকায় শুরুতেই ঋণ পেয়েছে দেশি কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ। যা বাংলাদেশি টাকায় ৮০ কোটি।
প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও সিইও আহসান খান চৌধুরী বলেন, বেসরকারি বিনিয়োগে নতুন দিগন্ত আনবে বাংলা বন্ড।

বিশ্ব বন্ড বাজারে বাংলাদেশ নতুন হলেও ভারতসহ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলো বেসরকারি খাতে বিনিয়োগের অর্থায়নেরে উৎস হিসাবে বেছে নিয়েছে এই বন্ড মার্কেটকেই। গত ২ বছরে মাসালা বন্ড ছেড়ে প্রায় আড়াই হাজারে কোটি রুপি সংগ্রহ করে ভারত। কিছু নীতিমালা ঠিক করলে সেই সুযোগ আছে বাংলাদেশের সামনেও।

অর্থনীতিবিদ ড. জাহিদ হোসেন বলেন, বাংলা বন্ডের মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থের ঋণ পরিশোধ হবে দেশি মুদ্রায়। যার ফলে বিশ্ব বাজারেও পরিচিত লাভ করবে এই মুদ্রা। এই বিষয়টিকে অর্থনীতির জন্য বেশ বড়ো সুযোগ বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদ ড. জাহিদ হোসেন।

বাংলা বন্ডের মাধ্যমে এক বছরের মধ্যেই অন্তত ১ বিলিয়ন ডলার বা সাড়ে ৮ হাজার কোটি টাকা সংগ্রহের আশা করছে আইএফসি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর