channel 24

সর্বশেষ

  • খুলনায় প্লাজমা থেরাপি দেয়া করোনা রোগীর মৃত্যু

  • বিদ্যুতের বাড়তি বিল হলে পরবর্তীতে সমন্বয় করা হবে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

  • ২ মাস পর চালু হল পুঁজিবাজারে লেনদেন; সূচকে ইতিবাচক ধারা

  • কুষ্টিয়ায় নিজে রান্না করে অসহায় মানুষকে খাবার দিচ্ছেন কলেজ ছাত্রী

  • জিপিএ-৫ না পাওয়ায় ছাত্রীর আত্মহত্যা

  • স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেন চলাচল শুরু

  • এসএসসির ফলাফল এসএমএস ও অনলাইনে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নেই উল্লাসের রঙ

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রিভলবার ও গুলিসহ যুবলীগ নেতা আটক

  • চট্টগ্রামে রাস্তায় নেমেছে বাস; বাড়তি ভাড়া আদায়

  • ঝিনাইদহে পুকুর থেকে দুই ভাই বোনের মৃতদেহ উদ্ধার

  • চট্টগ্রামে চিকিৎসা না পেয়ে মারা গেলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক

  • রাষ্ট্রপতির ক্ষমায় ফাঁসি মওকুফ পাওয়া আসলাম আবারও হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার

  • ভার্চুয়াল কোর্টে ১০ কার্যদিবসে ২১ হাজার আসামির জামিন

  • করোনায় এনটিভির অনুষ্ঠান বিভাগের প্রধান মোস্তফা কামালের মৃত্যু

  • এসএসসিতে চট্টগ্রামে পাশের হার উর্ধ্বমুখী, পাশ করেছে ৮৪.৭৫

বুড়িমারী স্থলবন্দর ব্যবহারে আগ্রহ নেই আমদানিকারকদের, কর্মহীন শ্রমিকরা

বুড়িমারী স্থলবন্দর ব্যবহারে আগ্রহ নেই আমদানিকারকদের, কর্মহীন শ্রমিকরা

স্থবির হয়ে পড়েছে বুড়িমারী স্থলবন্দর। শুরু থেকে এ বন্দর দিয়ে ২৪টি পণ্য আমদানি হলেও বর্তমানে হচ্ছে ১০টি। যার ৯৫ ভাগই আবার পাথর। ফলে বন্দরটি ব্যবহারে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন আমদানিকারকরা। এর কারণ হিসেবে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য বন্দর সিএন্ডএফ সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের। আর পরিস্থিতি উন্নয়নে যথাযথ পদক্ষেপ চান আমদানিকারকরা।

ভারত, নেপাল ও ভুটানের সাথে আমদানি-রপ্তানি বাড়াতে ১৯৮৮ সালে লালমনিরহাটে স্থাপন করা হয় বুড়িমারী স্থলবন্দর। দ্রুততম সময়ে স্থলবন্দরটি জমে উঠলেও বর্তমানে প্রায় অচল অবস্থায় রয়েছে এটি।

এই স্থলবন্দর দিয়ে শুরু থেকে ২৪টি পণ্য আমদানি হলেও এখন তা নেমে এসেছে দশে। আর আমদানি হওয়া পণ্যের শতকরা ৯৫ ভাগই পাথর।
এর ফলে আমদানীকারকরা আগ্রহী হচ্ছে অন্য বন্দর ব্যবহারে। আর কর্মহীন হয়ে পড়ছেন শ্রমিকরা।

শ্রমিকরা জানান, বর্তমানে আমরা ট্রাকওয়ালারা খুব বেকায়দায় আছি। মাল আসেও না যায় না। পুলিশ কে চাঁদা দিতে হয়, হাইওয়েকে চাঁদা দিতে হয়, বিভিন্নভাবে ড্রাইভাররা বেকায়দায় আছে। আগে বুড়িমারী বন্দর খুব চালু ছিল এখন কামাই নাই আমরা বেকার বসে আছি।

স্থানীয় সিএন্ডএফ সভাপতি বলছেন, রাস্তার বেহাল দশা, বিদ্যুৎ সংকট ও বেশিরভাগ পণ্য আমদানিতে নিষেধাজ্ঞাই বন্দরে স্থবিরতার মূল কারণ। তবে স্থানীয় সংসদ সদস্যের দাবি, এর পেছনে দায়ী সিন্ডিকেট ও চাঁদাবাজি।

বুড়িমারী স্থলবন্দরের সিএন্ডএফ সভাপতি আলহাজ্ব রুহুল আমিন বাবলু জানান, 'যদি ১৪টি আইটেম আমদানীতে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়, তাহলে কস্টিংটা কমে যাবে, সুলভ মুল্যে আমাদের ভোক্তারা সুবিধাটা পাবে।'

লালমনিরহাট- ১ আসনের সংসদ সদস্য মো. মোতাহার হোসেন বলেন, মাল আসে সেখানে অনিয়ম, ট্রাকে যায় সেটা অনিয়ম, চাঁদাবাজি সেটা অনিয়ম, সব অনিয়মের হেডকোয়াটার হল বুড়িমারী।

এ বন্দরে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২৮ শতাংশ বেশি রাজস্ব আদায় হয়। তবে পরের বছর রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ বাড়লেও পূরণ হয়নি লক্ষ্যমাত্রা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর