channel 24

সর্বশেষ

  • বান্দরবানে ঘুমধুম সীমান্তে বিজিবির সাথে 'বন্দুকযুদ্ধে'...

  • ২ রোহিঙ্গা মাদক ব্যবসায়ী নিহত

  • চট্টগ্রামের পাথরঘাটায় গ্যাস লাইন বিস্ফোরণে দেয়ালধস...

  • নিহত ৭, কয়েকজন গুরুতর আহত; ২০ জন চট্টগ্রাম মেডিকেলে ভর্তি

  • ঘটনা তদন্তে ২টি কমিটি; আহতদের সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস মেয়রের

  • আজ থেকে নতুন সড়ক পরিবহন আইন কার্যকর...

  • হেলমেটবিহীন মোটরসাইকেল চালকরা অধিকাংশই রাজনৈতিককর্মী: কাদের

  • সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়স ৬০: আপিল বিভাগ

  • স্বাধীন প্রসিকিউশন কমিশন কেন গঠন করা হবে না: হাইকোর্টের রুল

  • পেঁয়াজ নিয়ে নৈরাজ্যের ঘটনা তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে রিট

  • সুষ্ঠু পরীক্ষা নিতে জেলা, বিভাগ পর্যায়ে মনিটরিং সেল...

  • প্রশ্নফাঁসের কোনো খবর নেই: প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী

  • দুর্নীতি মামলা: যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা সম্রাট ৬ দিনের রিমান্ডে

  • অনলাইন ক্যাসিনো ব্যবসায়ী সেলিম প্রধানকে...

  • ৭ দিনের রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে দুদক

  • বনানীর এফ আর টাওয়ারের নকশা জালিয়াতির মামলায় জমির মালিক...

  • ফারুকসহ ৩ জনের জামিন বাতিল, কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ

দেশে ডলারের কৃত্রিম সংকট

দেশে ডলারের কৃত্রিম সংকট

বেসরকারি খাতে বড় ধরনের আমদানি দায় পরিশোধ এবং দুর্নীতিবিরোধী সাম্প্রতিক অভিযানকে কেন্দ্র করে, ডলারের কৃত্রিম সংকট তৈরি হয়েছে। খোলাবাজারে ডলার বিক্রি হচ্ছে ৮৭ টাকারও বেশি দরে। তবে ব্যাংকাররা বলছেন, ব্যাংকিং চ্যানেলে ডলারের সংকট নেই। যে কারণে গত এক মাসে কোনো ডলার বিক্রি করেনি বাংলাদেশ ব্যাংক।

পদ্মা সেতুর কিংবা অন্যান্য মেগা প্রকল্পের যন্ত্রাংশ আমদানি। এসবের জন্য যথেষ্ট পরিমানলের বৈদেশিক মুদ্রার জোগান আছে ব্যাংকিং চ্যানেলে। তার পরও খোলা বাজারে হঠাৎ করেই দেখা দিয়েছে ডলার সংকট। ব্যাংকাররা বলছেন, বেসরকারি খাতে আমদানি দায় পরিশোধে কিছু চাহিদা বাড়লেও তা তীব্র নয়।

অগ্রণী ব্যাংকের এমডি  শামসউল- ইসলাম বলেন, আমরা এ পর্যন্ত পদ্মা সেতুকে ১ বিলিয়ন দিয়েছি। কিন্তু এর মধ্যে ১ ডলারও বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে আনিনি। তবে এলএনজি আনার পরে কিছুটা চাপ রয়েছে।

সদ্যবিদায়ী ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ব্যাংগুলোর কাছে ২৩৩ কোটি ৯০ লাখ ডলার বিক্রি করেছে, কেন্দ্রীয় ব্যাংক। গত তিন মাসের পরিসংখ্যান বলেছে, ডলারের চাহিদা গত বছরের মতো তীব্র নয়। গত জুলাই মাসে বিক্রি করে ৩ কোটি ৬০ লাখ ডলার, আগস্টে বিক্রি করে ২ কোটি ৩০ লাখ ডলার। সেপ্টেম্বরে কোন ডলার বিক্রি করেনি বাংলাদেশ ব্যাংক।

এবিবি ব্যাংকের সভাপতি সৈয়দ মাহবুবর রহমান বলেন, মুদ্রার প্রচলন কম থাকায় ডিমান্ড বেশি হতেই পারে।

হঠাৎ করে খোলা বাজারে ডলারের সংকট বাড়ার কারণ হিসেবে ব্যাংকাররা বলছেন, সাম্প্রতিক দুর্নীতি বিরোধী অভিযানের ফলে একটি গোষ্ঠির মধ্যে বিদেশে যাওয়ার প্রবণতা বেড়ে গেছে। আবার অনেকেই টাকা পরিবর্তন করে ডলার রাখাকে নিরাপদ মনে করছেন। এর প্রভাবেই দুই মাসের ব্যবধানে খোলা বাজারে টাকার বিপরীতে ডলারের দর বেড়েছে প্রায় ১ টাকা ৭০ পয়সা।

ব্যাংকিং চ্যানেলে সংকট না থাকায় ও রেমিট্যান্সে প্রনোদনা চালু হওয়ায় ডলারের দাম স্থিতিশীল হয়ে আসবে বলেও মনে করছেন ব্যাংকার এবিবি ব্যাংকের সভাপতি সৈয়দ মাহবুবর রহমান।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর