channel 24

সর্বশেষ

  • সশস্ত্র বাহিনী দিবস: শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা...

  • বীরশ্রেষ্ঠসহ খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা

  • বিচারপতি আবু জাফর সিদ্দিকীর ছেলে জুম্মান সিদ্দিকীকে...

  • বিশেষ বিবেচনায় হাইকোর্টে সনদ দেয়ার ঘটনা চ্যালেঞ্জ করে রিট

  • স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাসে পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার...

  • খুলনাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় এখনও বাস চলাচল বন্ধ

২০১০ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ৮০ লাখ মানুষ দারিদ্র্য থেকে মুক্তি পেয়েছে: বিশ্বব্যাংক

২০১০ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ৮০ লাখ মানুষ দারিদ্র্য থেকে মুক্তি পেয়েছে: বিশ্বব্যাংক

দাতাসংস্থা বিশ্বব্যাংক মনে করছে, জোরালো অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও শ্রম আয় বৃদ্ধির মাধ্যমে বাংলাদেশের দারিদ্র্য বিমোচনে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে। বাংলাদেশ প্রোভার্টি এসেসমেন্ট শীর্ষক এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, ২০১০ থেকে ২০১৬ সাল সময়ের মধ্যে ৮০ লাখ মানুষ দারিদ্র থেকে বেরিয়ে এসেছে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের দারিদ্র্যের চিত্র সম্পর্কে ধারণা পেতে মূল্যায়ন প্রতিবেদন করে থাকে, আন্তর্জাতিক ঋণদাতা সংস্থা বিশ্বব্যাংক। তারই অংশ হিসেবে প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ প্রোভার্টি এসেসমেন্ট রিপোর্ট। যাতে বলা হচ্ছে, বাংলাদেশের দারিদ্র্য কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে। তবে এই কমাটা ছিলো অসম। 

বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন বলছে, ২০১০ সাল থেকে রংপুর বিভাগে দারিদ্র্যের হার বেড়েছে। একই অবস্থানে আছে রাজশাহী ও খুলনা। চট্টগ্রামে কমেছে পরিমিতভাবে। তবে দ্রুতলয়ে কমেছে বরিশাল, ঢাকা ও সিলেটে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ৯০ শতাংশই দারিদ্র্য কমেছে গ্রামাঞ্চলে। কিন্তু বেড়েছে আয় বৈষম্য। 

তবে এ পরিসংখ্যানে ভিন্নমত অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামালের। তার মতে, শহর ও গ্রামে দারিদ্র্য কমেছে সমভাবে। দারিদ্র্য থেকে বেরিয়ে আসার পরিসংখ্যান বর্তমানে আরো অনেক বেশি।

অর্থমন্ত্রীর দাবি, উন্নত বিশ্বের তুলনায় বাংলাদেশে গরীব মানুষের সুবিধা বেশি। তাদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে, সুনির্দিষ্ট রূপরেখা রয়েছে চলতি বাজেটেও।

আয় বৈষম্য কমাতে সরকার সচেষ্ট বলেও জানান অথমন্ত্রী।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর