channel 24

সর্বশেষ

  • করোনায় মারা গেছেন সাহেদের বাবা

  • সাহারা খাতুন মারা গেছেন

  • পশ্চিমবঙ্গের ক্যান্টনমেন্টে কড়া লকডাউন শুরু

  • ভেঙে ফেলা হচ্ছে স্মৃতি বিজড়িত এফডিসির ৩ ও ৪ নম্বর ফ্লোর

  • ইংল্যান্ডের সাথে টেস্ট সিরিজ বাতিল করতে যাচ্ছে বিসিসিআই

  • বাতিল হচ্ছে ভারত-ইংল্যান্ড ৫ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ

  • নামিদামি ফার্মেসিতে ভেজাল বিদেশি ওষুধ

  • পিছিয়ে গেল এশিয়া কাপ, আয়োজন করবে শ্রীলঙ্কা

  • সিলেটে সন্তানদের না জানিয়ে ঋণ নেয়ায় বাবাকে নির্যাতন

  • একে একে খুলছে সাহেদের অপরাধের প্যান্ডোরার বাক্স

  • অপকর্মের দোসররা গ্রেপ্তার হলেও অধরা রিজেন্ট বস সাহেদ

  • অপকর্মের জন্য সাহেদের শাস্তি হলেও আপত্তি নেই স্ত্রীর

  • নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত ও ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার জন্য স্থায়ী প্রকল্প নেয়া হবে: উপমন্ত্রী

  • উত্তরায় বিদেশি নামিদামি ব্র্যান্ডের ওষুধ নকলকারী চক্র ধরতে অভিযান

  • অবৈধভাবে রাইফেল আনার অভিযোগে শ্যুটারদের ফের জিজ্ঞাসাবাদ

পেঁয়াজের ঝাঁজে দিশেহারা পুরো দেশ

পেঁয়াজের ঝাঁজে দিশেহারা পুরো দেশ

পেঁয়াজের ঝাঁজে দিশেহারা পুরো দেশ। হঠাৎ করেই কেজিতে দ্বিগুন দাম বাড়ায় হিমশিম অবস্থা ক্রেতাদের। বিক্রেতারা বলছেন, পাইকার ও আড়তদারদের কাছ থেকে বেশি দামে কিনতে হয়েছে বলে চড়া মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। আর আড়তদারদের দাবি, দামের এমন উর্ধ্বগতিতে হাত নেই তাদের। এজন্য আমদানিকারকদের সাথে সরকারের বসার আহবান তাদের।

রংপুর নগরীর বড় পাইকারী বাজারে পেঁয়াজের পাল্লা বিক্রি হচ্ছে ৫'শ টাকায়। দুদিন আগে যার মূল্য ছিল আড়াইশো টাকা। একই অবস্থা পেয়াজ উৎপাদনে পরিচিত জেলা, ফরিদপুরের। এছাড়া স্থল বন্দর এলাকা যশোর, দিনাজপুরেও পণ্যটির দাম লাগামহীন।

ক্রেতারা বলছেন, দেশে যেমন ক্যাসিনো জুয়া খেলা হচ্ছে, পেঁয়াজ নিয়েও হচ্ছে তেমনি জুয়া খেলা। বিক্রেতারা যেভাবে দাম বলছেন সেভাবেই দিতে হচ্ছে ক্রেতাদের। তাই এই বিষয়ে সরকারের দৃষ্টি কামনা করছেন ক্রেতারা।

খুচরা বাজারে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকায়। এতে রীতিমত হিমশিম অবস্থা ক্রেতাদের।

ক্রেতারা আরও বলছেন, পেঁয়াজই যদি এত টাকা দিয়ে কিনি তবে অন্যান্য জিনিস কিভাবে কিনবো। আবার অনেকেই ক্রয়সীমার বাইরে চলে গেছে পেঁয়াজের দাম বলেও অভিযোগ করছেন।

বিক্রেতারা বলছেন, পেঁয়াজের দাম বাড়ার কারণে লোকসানে পড়তে হচ্ছে তাদেরও। আগে যে পরিমাণ বিক্রি হতো তা এখন নেমে দাঁড়িয়েছে অর্ধেকে।

বাজারের এ অস্থিতিশীল পরিবেশ নিয়ন্ত্রণে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে বৈঠক করেছে, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন।

আড়তদারদের দাবি, দামের এমন উর্ধ্বগতিতে হাত নেই তাদের। তাই এটি নিয়ন্ত্রণ করতে হলে, আমদানিকারকদের সাথে বসার পরামর্শ তাদের।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর