channel 24

সর্বশেষ

  • ঈদের তৃতীয় দিনেও বিনোদনকেন্দ্রগুলোতে ছিল লোকসমাগম

  • মুগদা হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীদের থাকার ব্যয়ের বিষয়ে জানতে চায় দুদক

  • করোনার সমাধান সহজে নাও মিলতে পারে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

  • কষ্টে বেঁচে আছেন বন্যাদুর্গত এলাকার মানুষ, বাড়ছে পানিবাহিত রোগ

  • সাবেক সেনা কর্মকর্তা নিহতের ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে বিএনপির বিবৃতি

  • কক্সবাজারে সাবেক সেনা কর্মকর্তা নিহত: তদন্ত কমিটি কাল থেকে কাজ শুরু করবে

  • নিদিষ্ট সময়ে কোরবানির পশুর বর্জ্য পরিষ্কারে খুশি নগরবাসী

  • দাম না পেয়ে রাস্তায় চামড়া ফেলে দিলেন ব্যবসায়ীরা

  • ঈদ যাত্রায় করোনার সংক্রমণ বাড়তে পারে; আশঙ্কা স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

  • চট্টগ্রামে কোরবানির পশুর চামড়া সংগ্রহ হয়েছে তিনলাখ

  • বর্জ্য অপসারণে এবার স্বস্তি মিলেছে চট্টগ্রাম মহানগরীতে

  • মেধা আর অদম্য শক্তিতে সংসারের হাল ধরলেন বিরল রোগে আক্রান্ত ফাহিমুল

  • নতুন মৌসুমে নেইমার ও মার্তিনেজকে কিনবে না বার্সেলোনা

  • ডিএনসিসির প্রতিটি এলাকা, শতভাগ বর্জ্যমুক্ত ঘোষণা

  • করোনায় দেশে আরও ৩০ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৩৫৬

নাসায় সফটওয়্যার প্রকৌশলী হিসেবে নিয়োগ পেলেন সিলেটের মেয়ে মাহজাবিন

নাসায় সফটওয়্যার প্রকৌশলী হিসেবে নিয়োগ পেলেন সিলেটের মেয়ে মাহজাবিন

যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণার প্রতিষ্ঠান নাসায় সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সিলেটের মেয়ে মাহজাবিন হক। তার নিয়োগের মধ্য দিয়ে সিলেট তথা বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে আরো একবার পরিচয় করিয়ে দিলেন তিনি। বিশ্বমঞ্চে লাল সবুজের পতাকাকে আরো একবার তুলে ধরলেন তিনি। চলতি বছরের ৭ই অক্টোবর তার কর্মস্থলে যোগ দেবেন মাহজাবিন।

মাহজাবীন হক এ বছরই মিশিগান রাজ্যের ওয়েইন স্টেইট ইউনির্ভাসিটি থেকে কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ব্যাচেলর ডিগ্রি সম্পন্ন করেছেন। তার এমন সাফল্যে শুধু মিশিগানে বসবাসরত কমিউনিটির লোকজনই নয় বরং সিলেট তথা পুরো বাংলাদেশের মানুষই গর্ববোধ করছে তাকে নিয়ে। 

দেশে মাহজাবিন সিলেটের খাজাঞ্চিবাড়ি স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন। ২০০৯ সালে পরিবারের সাথে যুক্তেরাষ্ট্রে পাড়ি জমানোর পর, দু’বছর নিউইয়র্ক সিটিতে ছিলেন। ২০১১ সালে মেশিনগানে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করার পর তিনি ভর্তি হন হামট্রাম্ক হাই স্কুলে। সেখানের পড়া লেখা শেষ করে তিনি ওয়েইন স্টেইট ইউনির্ভাসিটিতে ভর্তি হন কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে। ইউনির্ভাসিটিতে অধ্যয়নকালেই তিনি দুই দফায় টেক্সাসের হিউস্টনে অবস্থিত নাসার জনসন স্পেস সেন্টারে ইন্টার্নশিপ করেছেন। প্রথম দফায় তিনি ডাটা এনালিস্ট এবং দ্বিতীয় দফায় সফটওয়্যার ডেভেলপার হিসেবে মিশন কন্ট্রোলে কাজ করেন।

দুই দফায় দীর্ঘ ৮ মাস ২টি গুরুত্বপূর্ণ বিভাগে কাজ করার পর তিনি সাম্প্রতিক সময়ে নাসার মিশন কন্ট্রোল সেন্টারে (এমসিসি) সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে নিয়োগ পান। মিশন কন্ট্রোল হলো নাসার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিল্ডিং যেখান থেকে নাসা রকেট লঞ্চ নিয়ন্ত্রণ করে । 

মাহজাবীন হক শুধু একজন সফল শিক্ষার্থীই নন, তিনি একজন ভালো সংগঠকের পাশাপাশি পেইন্টিং ও ডিজাইনে দক্ষ যেমন তেমনি নাচে গানেও সমান পারদর্শী। ইউনির্ভাসিটিতে অধ্যয়নকালে তিনি ২০১৬ সালে সহপাঠী ও বাঙালি শিক্ষার্থীদের নিয়ে গঠন করেন বাংলাদেশ স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন (বিএসএ)। শুরুতে সেক্রেটারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরের বছর প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। প্রত্যক্ষ ভোটে প্রতি বছর এ নির্বাচন হয়ে থাকে। তিনি প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালনকালে ভল্টারিং কার্যক্রম চালু করেন। 

মাহজাবীন হক বর্তমানে স্থায়ীভাবে মিশিগানে বসবাস করছেন। সাথে আছেন মা ফেরদৌসী চৌধুরী ও একমাত্র ছোট ভাই সৈয়দ সামিউল হক যিনি বর্তমানে ইউএস আর্মিতে আছেন। পিতা সৈয়দ এনামুল হক কর্মসূত্রে দেশে অবস্থান করছেন। তিনি একটি ব্যাংকের (পূবালী ব্যাংক) সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার। পৈত্রিক নিবাস সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার কদমরসুল গ্রামে হলেও তারা সিলেট নগরীর কাজীটুলাস্থ হক ভবনের স্থায়ী বাসিন্দা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

তথ্য প্রযুক্তি খবর