channel 24

সর্বশেষ

  • করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশকে ৩২৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সহায়তা দেবে জাপান

  • ডা. সাবরিনা ও স্বামী আরিফুলসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল

  • নাসিমকে নিয়ে কটূক্তি: হাইকোর্টে জামিন পেলেন বেরোবি’র সেই বহিষ্কৃত শিক্ষিকা

  • করোনায় বিপর্যস্ত মানুষের মুখে খাবার তুলে দিচ্ছে 'সেইফ ফাউন্ডেশন'

  • নেত্রকোনায় ট্রলারডুবিতে ১৮ জনের মরদেহ উদ্ধার

  • সিনহা নিহতের ঘটনায় দায় ব্যক্তির, কোনো বাহিনীর নয়: সেনাপ্রধান

  • রুপার ইট দিয়ে রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি

  • চট্টগ্রামে প্রকাশনা বন্ধ ৫টি দৈনিক পত্রিকার, অনিশ্চিয়তায় কয়েকশো সাংবাদিক-কর্মচারির ভবিষ্যৎ

  • ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নষ্ট করার চেষ্টা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

  • ইতিবাচক ধারায় ফিরেছে দেশের রপ্তানি বাণিজ্য

  • করোনায় দেশে আরও ৩৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৬৫৪

  • ধীরে ধীরে উন্নতি হচ্ছে দেশের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির

  • নয়াপল্টনে আব্দুল মান্নানের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত

  • ছবিতে লেবাননের বৈরুতে বিস্ফোরন

  • প্রায় ৫ মাস পর আজ থেকে নিম্ন আদালতে বিচারকাজ শুরু

স্মার্ট চিপসেট তৈরীতে যুক্তরাষ্ট্রের চীন নির্ভরতা বাণিজ্য দ্বন্দ্বে প্রভাব ফেলেছে

স্মার্ট চিপসেট তৈরীতে যুক্তরাষ্ট্রের চীন নির্ভরতা বাণিজ্য দ্বন্দ্বে প্রভাব ফেলেছে

চীনা টেক জায়ান্ট হুয়াওয়ে নিয়ে চীন-যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য দ্বন্দ্ব বেশ আলোচিত ঘটনা। স্মার্ট চিপসেট তৈরীতে যুক্তরাষ্ট্রের চীন নির্ভরতা এ দ্বন্দ্বে বেশ প্রভাব ফেলেছে। অন্যদিকে নিত্য নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন আরো জোরদার করেছে হুয়াওয়ে।

এ বছরের মে মাসে চীনা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে যুক্তরাষ্ট্র। তাদের দাবি, স্মার্ট চিপসেট, নেটওয়ার্কে ব্যবহৃত নানা যন্ত্রাংশ ও মোবাইল তরঙ্গ ব্যবহার করে গুপ্তচরবৃত্তি করছে প্রতিষ্ঠানটি। নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছে ডেটা।

প্রথম থেকেই এর প্রতিবাদ জানিয়ে আসছে হুয়াওয়ে। এ নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে চলে যায় বেইজিং ও ওয়াশিংটন। মার্কিন বাণিজ্য বিভাগ প্রতিষ্ঠাটিকে কালো তালিকাভুক্ত করে। ফলে হুয়াওয়ের সাথে ব্যবসা করতে মাত্র তিন মাসে ১৩০টি প্রতিষ্ঠান লাইসেন্সের জন্য আবেদন করলেও তা গ্রাহ্য করা হয়নি। এ নিয়ে মাইক্রোসফটও প্রতিবাদ জানায়। মার্কিন সরকারের কাছে এর কারণ জানতে চাওয়া হলে মেলেনি সদুত্তরও।

নিজেদের অবস্থান তুলে ধরতে নানা মহলে যোগযোগ শুরু করে হুয়াওয়ে। ব্যবসার প্রসারে নেয় নানা পদক্ষেপ। ফলে আবারো শক্তিশালী অবস্থান প্রতিষ্ঠানটি। ৩০ বছরে ১৭০টি প্রতিষ্ঠানের সাথে কাজ করা প্রতিষ্ঠানটির অবস্থান তাই দিনে দিনে আরো সুদৃঢ় করার চেষ্টা চলছে।

হুয়াওয়ের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা ডোনাল্ড পুরডি বলেন, আমাদের দোষারোপের কারণ এখনও পরিষ্কার করতে পারেনি ট্রাম্প প্রশাসন। আমরা সবসময় বলে এসেছি, গ্রাহক সেবা নিশ্চিতে সর্বোচ্চ সতর্কতা হুয়াওয়ে প্রদান করে থাকে। কোন ধরণের আড়িপাতা কিংবা ডেটা চুরির সাথে কোন ভাবেই হুয়াওয়ে যুক্ত নয়। আমরা প্রযুক্তির সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

এদিকে হুয়াওয়ের সাথে বাণিজ্য বন্ধ হয়ে যাওয়ায় প্রায় ৪০ হাজার মানুষের চাকুরি হুমকির মুখে। তবে স্মার্ট চিপসেট উৎপাদন ও নিত্য নতুন ডিভাইস প্রতিনিয়ত বাজারে এনে বাণিজ্য যুদ্ধে নিজেদের শক্ত অবস্থানের কথা ঘোষণা দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

ডোনাল্ড পুরডি বলেন, আমরা চীন সরকারকে কোন তথ্য সরবরাহ করি না। এটা সম্পূর্ণ আন্তর্জাতিক আইনের লংঘন। আমরা ক্রেতা ও ব্যবহারকারীদের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত নিরাপত্তা প্রদান করে থাকি। আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি এ সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। না হলে ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে বিশ্বজুড়ের নানা প্রান্তের ব্যবহারকারীরা।

এ অবস্থান নিজেদের অবস্থান থেকে সরে আসতে চাইছে না কোন পক্ষকে। সংশ্লিষ্টদের মতে, দ্রুত এ অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে না পারলে আদতে ক্ষতিগ্রস্ত হবে সাধারণ গ্রাহকরা।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

তথ্য প্রযুক্তি খবর