channel 24

সর্বশেষ

  • খালেদা জিয়ার মুক্তিতে দলীয়ভাবে ব্যর্থ হয়ে...

  • বিএনপি সরকারের ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছে: সেতুমন্ত্রী

  • সমঝোতা নয়, আইনি পথেই খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে: মওদুদ

  • মানহানির ২ মামলায় হাইকোর্টে খালেদা জিয়ার ৬ মাসের জামিন

  • মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি বন্ধ ও ধ্বংসের নির্দেশ হাইকোর্টের...

  • একমাসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ

  • শেষ ধাপে ২০ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে...

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী নাসিমার বাড়িতে দুর্বৃত্তের অগ্নিসংযোগ...

  • সিরাজগঞ্জে আ.লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে আহত ২...

  • কারচুপির অভিযোগে গাজীপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইজাদুরের ভোট বর্জন

  • বিশ্বকাপ: আফগানিস্তানের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করছে ইংল্যান্ড

সময় কেন শুধু সামনেই এগোয়, পেছনে নেয়?

সময় কেন শুধু সামনেই এগোয়, পেছনে নেয়?

কখনো ভেবেছেন ঘড়ির কাঁটা কেন সব সময় সামনের দিকে ঘোরে পেছনে নয়? অথচ মানুষ কেবল অতীতকেই মনে রাখতে পারে, ভবিষ্যত কেন থাকে অজানা? এমন প্রশ্নের উত্তর রয়েছে পদার্থবিজ্ঞানের গভীরে। পদার্থবিদ আর দার্শনিকরা বলছেন, বিগ ব্যাং বা মহাবিস্ফোরণের মাধ্যমে পৃথিবী সৃষ্টির আদিতে রয়েছে এর সমাধান। তাদের ধারণা, এনট্রপির কারণেই সময় সামনের দিকে আগায়, পেছনে নয়।

গ্লাসে দুধ ঢেলে তা আবার উঠিয়ে নেয়া, ডিম ভেঙে তা আবার জোড়া লাগানো কিংবা কফিতে ক্রিম মিশিয়ে তা আবার তুলে নেয়া যত চেষ্টাই করেন না কেন কিছুতেই সম্ভব নয়।

কারণ সময়ের যাত্রা একমুখী। বর্তমান থেকে ভবিষ্যতের দিকে। অতীতের দিকে নয়। বিজ্ঞানীরা একে বলেন, অ্যারো অব টাইম বা সময়ের তীর। আর এজন্য অতীত মনে থাকলেও ভবিষ্যতে জানি না আমরা।

প্রশ্ন আসে এই অ্যারো অব টাইম কি শুধু দার্শনিক চিন্তা নাকি এটি পৃথিবী সৃষ্টির বিধানের সাথে জড়িত? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে মহাবিশ্ব সৃষ্টির শুরুতে যেতে হবে আমাদের।

মহাবিশ্বে সবকিছুই একটি সুশৃঙ্খল অবস্থা থেকে বিশৃঙ্খল অবস্থার দিকে ধাবিত হচ্ছে। আর এজন্য ডিম ভাঙার পর এটাকে জোড়া লাগানো যায় না। একটি বাড়ি দীর্ঘদিন অব্যবহৃত পড়ে থাকলে ভেঙে যায়। সময়ে সাথে মানুষ বুড়িয়ে যায়। বিজ্ঞানীরা একে বলেন এনট্রপি।

কম বা লো এনট্রপিতে থাকা বস্তু সুশৃঙ্খল থাকে। তাই এর টিকে থাকার সম্ভাবনা কম। অন্যদিকে হাই এনট্রপির বস্তু বিশৃঙ্খল হয়। তাই তারা টিকে থাকে বেশি। এনট্রপি সবসময় বাড়তে থাকে। কারণ বস্তুর সুশৃঙ্খল থা      কার চেয়ে বিশৃঙ্খল থাকার প্রবণতা বেশি। একই কারণে আমোদের ঘর পরিষ্কার আর গোছানো থাকার চেয়ে অপরিষ্কার আর অগোছালো থাকার প্রবণতা বেশি।

একই কথা সত্য আমাদের মহাবিশ্বের জন্যও। মহাবিশ্ব শুরু হয়েছিলো চরম সুশৃঙ্খল অবস্তায় লো এনট্রপিতে। কিন্তু বিগ ব্যাং বা মহাবিস্ফোরণের পর মহাবিশ্ব সম্প্রসারিত হতে শুরু করে। হতে থাকে বিশৃঙ্খল। বাড়ছে এর এনট্রপি। প্রশ্ন আসে...এনট্রপির সাথে সময়ের সম্পর্ক কি?

এই এনট্রপির মাধ্যমেই সময়ের ভবিষ্যতের যাত্রাকে ব্যাখ্যা করা যায়। বিজ্ঞানীরা বলেন, এনট্রপির কারণেই সময় শুধু সামনের দিকে এগিয়ে যায়। তাদের যুক্তি, যদি পুরো বিশ্বে কম এনট্রপি থেকে বেশি এনট্রপির দিকে এগিয়ে যায়, তাহলে আমরা কখনোই কোন ঘটনাকে পিছিয়ে যেতে দেখবো না। কফিতে একবার ক্রিম মেশালে তা আর উঠিয়ে আনা যাবে না। ঘড়ির কাটাও ঘুরবে না উল্টো দিকে।

এর মানে হচ্ছে, সময়ের অস্তিত্ব রয়েছে, কারণ, একটি সুশঙ্খল অবস্থা থেকে বিগ ব্যাংয়ের মাধ্যমে পৃথিবীর সৃষ্টি হয়েছিলো বলে। কিন্তু প্রকৃতির নিজেরই যেহেতু বিশৃঙ্খলতার দিকে প্রবণতা রয়েছে তাহলে পৃথিবী কিভাবে সুশৃঙ্খল অবস্থা থেকে শুরু হলো? এ প্রশ্নের উত্তর এখনো দিতে পারেনি পদার্থবিজ্ঞান।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

তথ্য প্রযুক্তি খবর