channel 24

সর্বশেষ

  • মানিকগঞ্জের পুখুরিয়ায় বাসচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী বাবা-ছেলে নিহত

  • ভোটারদের কেন্দ্রে আনার দায়িত্ব প্রার্থীর, ইসির নয়: সিইসি

  • উন্নয়ন করতে গিয়ে গরিবের ক্ষতি করা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী

  • দায়িত্ব নিচ্ছেন ডাকসুর ভিপি নুর; অফিস বুঝে পেতে চিঠি...

  • ডাকসু নির্বাচন সংক্রান্ত অভিযোগ তদন্তে কমিটি; ৭ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন

  • ঢাকায় পরিবহন খাতে শৃঙ্খলা ফেরাতে ব্যর্থতা স্বীকার ডিএমপি কমিশনারের

  • ছাত্র আন্দোলনে উসকানি বিএনপির দেউলিয়াত্বের প্রমাণ: হানিফ

  • পদ্মাসেতুর জাজিরা প্রান্তে আজ বসানো হচ্ছে না অষ্টম স্প্যান

  • এমপিওভুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে...

  • সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করছে শিক্ষকরা

  • সড়ক দুর্ঘটনায় সিরাজগঞ্জ, খুলনা ও নরসিংদীতে ৩ স্কুলশিক্ষার্থী নিহত

  • রাজধানীর কল্যাণপুরে তেলবাহী লরির ধাক্কায় মাদ্রাসা শিক্ষক নিহত

৬ মাস পর কেউ চাইলেও আপত্তিকর ওয়েবসাইটে যেতে পারবে না: তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী

৬ মাস পর কেউ চাইলেও আপত্তিকর ওয়েবসাইটে যেতে পারবে না: তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানিয়েছেন, আগামী ৬ মাস পর ইন্টারনেটে একটিও আপত্তিকর ওয়েবসাইট থাকবে না।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ইতিমধ্যে ২০ হাজারের বেশি আপত্তিকর ওয়েবসাইট বন্ধ করা হয়েছে।

আরও: প্রকল্পগুলো চলমান রাখাই সামনের দিনগুলোর জন্য বড় চ্যালেঞ্জ

বাংলাদেশি 'লায়লা' হচ্ছেন আঁখি আলমগীর

কি হবে পৃথিবীতে যদি মাত্র ৫ সেকেন্ড অক্সিজেন না থাকে!

আপনার হাতে কি দু’টি বিবাহরেখা? জানেন এর অর্থ?

সোমবার (১১ মার্চ) সকালে নাসিরাবাদ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় (বালক) মাঠে আয়োজিত ই-লার্নিং মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী বলেন, অভিভাবকরা যারা ছেলে-মেয়েদের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত তাদের বলতে চাই আগামী ছয় মাসে এমন ব্যবস্থা করবো যাতে কেউ চাইলেও আপত্তিকর ওয়েবসাইটসাইটে যেতে পারবে না। সবগুলো সাইট বন্ধ করে দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, ইন্টারনেট হচ্ছে জ্ঞানের উৎস। তবে ইন্টারনেটে কিছু খারাপ দিক আছে। আমরা ইন্টারনেট থেকে সেটুকু নেবো যা আমাদের জন্য ভালো।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, একটা সময় স্বপ্ন দেখেছিলাম শিক্ষার্থীরা লেখাপড়ার জন্য খাতা কলমের দরকার হবে না। পরীক্ষার জন্য পরীক্ষার্থীকে হলে যেতে হবে না। এটি এখন স্বপ্ন নয় বাস্তবতা।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আজকের পৃথিবী পাঠ্যপুস্তুকের নির্ভর নয়। পাঠ্যপুস্তক কিছু বাছাই করা জ্ঞান দেয়, যা নিঃসন্দেহে আমার কাজে লাগে। কিন্তু আমি যদি পাঠ্যপুস্তকের বাইরে জ্ঞান অর্জন না করি, তাহলে চলবে না। ডিজিটালাইজেশনের যুগে নিজেকে টিকিয়ে রাখতে হলে পাঠ্যবইয়ের বাইরে জ্ঞান অর্জন করতে হবে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

তথ্য প্রযুক্তি খবর