channel 24

সর্বশেষ

  • বর্তমানে মাথাপিছু আয় ১ হাজার ৯০৯ ডলার: অর্থমন্ত্রী...

  • চলতি অর্থবছরে জিডিপি হবে ৮.১৩ শতাংশ

  • রাঙ্গামাটির বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি...

  • সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত

  • রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ৭ জনের মরদেহ...

  • ময়নাতদন্তের জন্য নেয়া হয়েছে খাগড়াছড়ি জেনারেল হাসপাতালে..

  • আশঙ্কাজনক ৭ জনকে ঢাকা সিএমএইচে আনা হয়েছে...

  • আহত আরও ১০ জন চট্টগ্রাম সিএমএইচে চিকিৎসাধীন...

  • তদন্তের পর দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা: চট্টগ্রামে সিইসি

  • রাজধানীর প্রগতি সরণিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বিইউপির ছাত্র নিহত...

  • সড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

যেভাবে ইভিএম কাজ করে..

যেভাবে ইভিএম কাজ করে..

যন্ত্রে আঙ্গুলের ছাপ দিলেই সামনে থাকা ডিসপ্লেতে ভেসে উঠবে আপনার পরিচয়। যা প্রিজাইডিং অফিসার দেখে নিশ্চিত হলে আপনাকে পাঠাবেন ভোটদানের গোপন কক্ষে। যেখানে প্রার্থী দেখে সুইচ চাপলেই দেয়া হয়ে যাবে ভোট। অন্য কেউ এসে আপনার ভোট দিয়ে যাবে, তার কোনোই সুযোগ নেই। বলছিলাম, ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন, ইভিএমের কথা। যা এবারই প্রথম জাতীয় নির্বাচনে মোট ৬টি আসনে ব্যবহার করা হচ্ছে।

দেশজুড়ে এখন নির্বাচনি হাওয়া। চায়ের কাপে ভোটের উত্তাপ। যা লেগেছে আমাদের গায়েও। কন্ট্রোল এর এই পর্বের বিষয় তাই ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন, ইভিএম।

স্থানীয় নির্বাচনে সাধারণের সাথে যার পরিচয় হয়েছে আগেই। তবে এটিই প্রথম জাতীয় নির্বাচন যেখানে ব্যবহার করা হবে ইভিএম। যা নিয়ে সাধারণের মাঝে এখনো অজ্ঞতা কিংবা শংকাও কম নয়। এই যন্ত্র কিভাবে কাজ করে তা বুজতেই কন্ট্রোল এর এ পর্বে আমরা তাই গেলাম রাজধানীর আগারগাওয়ের ইলেকশন কমিশনে।

যেখানে আমাদের জন্য আগে থেকেই একটি ইভিএম সহ প্রস্তুত ছিলেন নির্বাচন কমিশনের পরিকল্পনা ও যোগাযোগ বিভাগের অপারেশন ইনচার্জ স্কোয়াড্রন লিডার মাহমুদ আরাফাত ও তার সহকর্মীরা। তার দাবি, এতটা উচ্চ প্রযুক্তির ইভিএম এর আগে ব্যবহার হয়নি কোন দেশেই।

এই ইভিএম এর সফটওয়ার কেনা হয়েছে মাইক্রোসফটের কাছ থেকে। তবে এর স্বত্বাধিকারী ইলেকশন কমিশন। বিভিন্ন দেশ থেকে যন্ত্রাংশ আমদানি করে যা বানানো হয়েছে সরকারেরই আরেক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরিতে।

ইভিএম এর অংশ তিনটি। কন্ট্রোল, ব্যালট ও ডিসপ্লে ইউনিট। প্রথমে কন্ট্রোল ইউনিটে ভোটারের তথ্য সংবলিত এসডি কার্ড প্রবেশ করানো হয়। ফলে মেশিনে তথ্য নেই, এমন কেউ সেখানে ভোট দিতে চাইলে তা সম্ভব হবে না। পরে প্রিজাইডিং অফিসারের কাছে থাকা নির্দিষ্ট অডিট কার্ড প্রবেশ করিয়ে পাসওয়ার্ড দিলেই শুধু এই মেশিন কার্যকর হবে, তাও যখন ভোট শুরু হবে ঠিক তখন থেকে।

ভোটার তার আঙ্গুলের ছাপ দিলেই যন্ত্র স্বয়ংক্রিয়ভাবে তাকে চিনে নিয়ে তার ছবি সহ তথ্য ডিসপ্লে ইউনিটে প্রদর্শন করবে। তবে বিভিন্ন কারণে আঙ্গুলের ছাপ না মিললে, ভোটার আইডি, স্মার্ট কার্ড অথবা ভোটার নম্বর এই ৩টির যেকোন একটি মেশিনে ইনপুট দিয়ে ভোট দেয়া যাবে। তবে এক্ষেত্রে ভোটারের ছবি সহ অন্যান্য তথ্য মিলে গেলেই শুধু প্রিজাইডিং অফিসার তার নিজের আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে তাকে ভোট দেয়ার সুযোগ করে দিতে পারবেন।

প্রতিটি কেন্দ্রে মোট ভোটারের মাত্র ২৫ ভাগের ক্ষেত্রেই এমনটা করা যাবে, এর বেশি নয়। গোপন কক্ষে থাকা ব্যালটবক্সে প্রার্থীর নাম ও মার্কা দেখে সাদা বোতামটি চেপে তা নিশ্চিত করতে তারপরে সবুজ বোতাম চাপলেই ভোট প্রদান শেষ। সাথে সাথেই কন্ট্রোল ইউনিটে থাকা পোলিং কার্ডে যেই তথ্য জমা হবে। নিজের সামনে থাকা স্ক্রিনে ভোটারও দেখতে পারবেন কাকে ভোট দিলেন।

তবে ইভিএম তৈরিতে গঠিত পরামর্শক কমিটি যন্ত্রটিতে ভ্যারিয়েবল পেপার অডিট ট্রেইল, সহজভাবে বললে যা ভোট প্রদানের কাগুজে দলিল, যা পাশের দেশ ভারতেও ব্যবহার হচ্ছে, যুক্ত করার সুপারিশ করলেও কারিগরি বিভিন্ন কারনে তা রাখেনি ইসি।  

দৈবচয়নের ভিত্তিতে দেশের ৩শ আসনের মধ্যে নির্বাচিত ৬টির সবকটি কেন্দ্রে এবার ইভিএম ব্যবহার করা হবে।

সর্বশেষ সংবাদ

তথ্য প্রযুক্তি খবর