channel 24

সর্বশেষ

  • রাজধানীর রায়েরবাজারে ড্রেজিংয়ের সময় ৩ জনের মৃত্যু

  • লালমনিরহাটে বিএসএফের গুলিতে ২ বাংলাদেশির মৃত্যু: বিজিবি

বিশ্বকাপ মিশন শেষে কাল দেশ ফিরছে বাংলাদেশ দল

বিশ্বকাপ মিশন শেষে কাল দেশ ফিরছে বাংলাদেশ দল

বিশ্বকাপ মিশন শেষে রোববার বিকেলে দেশে ফিরছে বাংলাদেশ দল। কেমন ছিলো বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন? সেমিফাইনালে খেলা হয়নি। উল্টো টেবিলের তলানীতে বাংলাদেশ। দলগত নৈপুন্য যে দলের শক্তি তারাই অতি নির্ভর ছিলো সাকিব আল হাসানের উপর। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং তিন ডিপার্টমেন্টে কখনোই ধারাবাহিকতা দেখাতে পারেনি বাংলাদেশ। সেটাই কার্যত সফল বলতে দিচ্ছে না বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন।

সাকিব কি ক্ষমা করতে পারবেন তার সতীর্থদের? পারবেন আক্ষেপের আগুন নেভাতে? তার কাছে এটা ছিলো সত্যিকারের বিশ্বকাপ। বাকিদের কাছে?প্রশ্নটা উঠছে। আর উঠছে দলের প্রস্তুতি, পারফরম্যান্স, শরীরি ভাষা, মাঠে প্রয়োগ আর সীমাবদ্ধতা প্রকট হয়ে ওঠায়।

এক পাশে সাকিবের পারফরম্যান্স রেখে বাংলাদেশের ব্যাটিংকে দেখা যাক। আট ম্যাচে দলের ২২৭৮ রানের মধ্যে সাকিবের ৬০৬। অর্থাৎ চার ভাগের এক ভাগ একাই করেছেন একজন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৬৭ রান মুশফিকুর রহিমের। সাকিবের প্রায় অর্ধেক। পরের স্থানে তামিম, মাহমুদুল্লাহ, লিটন, সৌম্য। তামিমের ২৩৫ রান কোনো ম্যাচেই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারেনি। গড় মাত্র ২৯। স্ট্রাইক রেট ৭২।

মুশফিকের সেঞ্চুরি, ফিফটি লিটনের ঝড় তোলা ইনিংস সাইফুদ্দিনের ক্যামিও, ছোটো ছোটো ঝলক, স্মরণীয় মুহূর্ত বটে। কিন্তু কেউই ধারাবাহিকতার প্রতীক ছিলেন না।

আসা যাক বোলিংয়ে। বাংলাদেশের শীর্ষ উইকেট শিকারি মোস্তাফিজুর রহমান। পেয়েছেন ২০ উইকেট। কিন্তু ১২টিই বৃথা। কেননা দল হেরেছে ঐ পাঁচ ম্যাচে। বাংলাদেশের জেতা তিন ম্যাচে কাটার মাস্টারের শিকার মাত্র ৮ উইকেট। 

এবার চোখ দেয়া যাক তার এই ২০ উইকেটের প্রভাবে। যা পেয়েছেন ৪৮৪ রান দিয়ে। প্রথম পাওয়ার প্লেতে উইকেটশূন্য মোস্তাফিজ। দ্বিতীয় পাওয়ার প্লেতে নিয়েছেন মাত্র ৫ উইকেট। বাকি ১৫টি তৃতীয় পাওয়ার প্লেতে। যখন উইকেটের মায়া ভুলে রান তুলতে মরিয়া ব্যাটসম্যানরা। ওভারপ্রতি রান দিয়েছেন ছয় দশমিক সাত শূণ্য করে।

বোলিংয়ে কোনো ম্যাচেই বিধ্বংসী হতে পারেনি বাংলাদেশ। প্রথম পাওয়ার প্লেতে মাত্র ৫ উইকেট ফেলতে পেরেছে বাংলাদেশের বোলাররা। তার মূলে ছয় ম্যাচে নতুন বল হাতে তুলে নেয়া বাংলাদেশ অধিনায়কের অফ ফর্ম। মাত্র এক উইকেট পেয়েছেন নড়াইল এক্সপ্রেস। চার পেসারের কেউই ছয়ের নিচে ওভারপ্রতি রান দিতে পারেননি।

সেই তুলনায় স্পিনাররা একটু হলেও এগিয়ে। সাকিব, মেহেদী, মোসাদ্দেক তিন জনই ছয়ের নিচে রান দিয়েছেন। উইকেটও নিয়েছেন যথাক্রমে ১১, ৬ ও ৩টি। হতশ্রী বোলিংয়ের ফল, বাংলাদেশের বিপক্ষে আট ম্যাচের ছয়টিতেই তিন শতাধিক রান করতে পেরেছে প্রতিপক্ষ। যে নিউজিল্যান্ড আর আফগানিস্তান পারেনি, সেই দুই দল পরে ব্যাটিং করেছে।

ব্যাটিং-বোলিংয়ে পারফরম্যান্সের ঘাটতি সীমাবদ্ধতার অযুহাতে পার পেলেও ফিল্ডিংয়ে কি বলবেন? রোহিত শর্মার ক্যাচ ফেলা তামিম ইকবাল, ওয়ার্নারকে জীবন দেয়া সাব্বির রহমান বা বাবর আজমের ক্যাচ মিস করা মোসাদ্দেক কি নিজেদের ক্ষমা করতে পারবেন?

মুশফিক কি ভুলতে পারবেন কেন উইলিয়ামসনের রান আউট মিস? সেরা চারের স্বপ্ন নিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ, শেষ করেছে শেষের চারে থেকে। কী বলবেন বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন সফল না ব্যর্থ?

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্পোর্টস 24 খবর