channel 24

সর্বশেষ

  • আবরার হত্যার আসামি নাজমুস সাদাত ৫ দিনের রিমান্ডে

  • ঋণ খেলাপিদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সিদ্ধান্ত সঠিক...

  • এ নিয়ে রিট গ্রহণযোগ্য নয়: হাইকোর্টকে অর্থ মন্ত্রণালয়

  • বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা: ২০ জনের জামিন; ৩ জন কারাগারে

  • রংপুরে পুলিশ হেফাজতে আসামির মৃত্যুর ঘটনায় ৫ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

  • সড়ক দুর্ঘটনা এড়াতে সবাইকে সচেতন হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী...

  • ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন..

  • ঢাকা-কুড়িগ্রাম আন্তনগর ট্রেন সার্ভিসের উদ্বোধন

  • আবরার হত্যা: চার্জশিট হওয়ার আগ পর্যন্ত একাডেমিক অসহযোগ থাকবে...

  • চার্জশিটের পর স্থায়ী বহিষ্কার সাপেক্ষে সিদ্ধান্ত: আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা...

  • তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের পর জড়িতদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত: বুয়েট ভিসি

  • মানবতাবিরোধী অপরাধ: এনএসআইয়ের সাবেক মহাপরিচালক...

  • ওয়াহিদুলের বিচার শুরু; সাক্ষ্যগ্রহণ ২৪ নভেম্বর

  • দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায়...

  • ২০ জনের জামিন মঞ্জুর; ৩ জনকে কারাগারে প্রেরণ

  • অবৈধ সম্পদ অর্জন: গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের...

  • প্রশাসনিক কর্মকর্তা ওবায়দুলসহ ৯ জনকে দুদকে তলব

  • রংপুরের পীরগঞ্জে আসামিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ...

  • এলাকাবাসীর বিক্ষোভ; পুলিশ দাবি আত্মহত্যা

২০১৫ বিশ্বকাপ পরবর্তী দলগুলোর পারফরমেন্সের পরিসংখ্যান

২০১৫ বিশ্বকাপ পরবর্তী দলগুলোর পারফরমেন্সের পরিসংখ্যান

মাত্র কয়েক দিনের অপেক্ষা ক্রিকেট শ্রেষ্ঠত্বের মহাযজ্ঞের পর্দা উঠতে। তার আগে আলোচনায় ফেভারিট ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া-ভারত কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকা। কোহলি-বোল্টদের ওপরও স্পটলাইট কম নয়। সব কিছুর মূলে পরিসংখ্যান তথা সংখ্যাতত্ত্ব।

ডাকছে বিশ্বকাপ ইংল্যান্ড তৈরি তার ঐতিহ্য আর আধুনিকতা নিয়ে। চার বছর পর উড়বে নতুনের শ্রেষ্ঠত্বের পতাকা নাকি অব্যাহত থাকবে অজি রাজ? তা জানতে অপেক্ষা ১৪ জুলাই পর্যন্ত। ২০১৫ থেকে ঊনিষের পথচলায় নানা ক্রিকেটীয় হিসাব আর পরিসংখ্যানে একক দাপট নেই কোনো দলের। তবে ইংল্যান্ড-ভারত-অস্ট্রেলিয়া কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকা যে সেরা প্রস্তুতি নিয়ে বিশ্বমঞ্চে নামার অপেক্ষায় তা সন্দেহাতীত। 

২০১৫ বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়ে ইংল্যান্ড আর ভারতের দাপট দেখেছে বিশ্ব। ১৫মে পর্যন্ত পরিসংখ্যানে ৮৬ ম্যাচের ৫৬টায় জয় ইংলিশদের। সমান ম্যাচে জয় সমান হলেও পরাজয়ের সংখ্যা বেশি টিম ইন্ডিয়ার। তিনে দক্ষিণ আফ্রিকা। সময়টা ভালো কাটেনি অস্ট্রেলিয়ার তবে, শ্রীলঙ্কার বিপর্যয় সব ছাপিয়ে। ৮৪ ম্যাচের ৫৫টায় হেরেছে ৯৬-র চ্যাম্পিয়নরা।

শুধু তাই নয় দু বিশ্বকাপের মাঝের সময়টায় লঙ্কানদের ব্যাটিং গড় সর্বনিম্ন..২৬ দশমিক সাত নয়। বোলিং গড় দ্বিতীয় সর্বনিম্ন সবচে খরুচে বোলিং ইউনিট করুণারত্নের দল।বিপরীত অবস্থা  ইংল্যান্ডের। ২০ সিরিজ/টুর্নামেন্টের ১৫টায় শিরোপা স্বাগতিকরা। ২০১৫-থেকে ১৯  পর্যন্ত পাচবার চার শতাধিক স্কোর দেখেছে বিশ্ব যার চারটা করেছে ইংলিশরা। আর ৩শ পেরিয়েছে ৩৮বার। টপ অর্ডারের স্ট্রাইকরেট রীতিমতো ভয় জাগানিয়ে ১০০-র ওপরে।

প্রথম ১০ ওভারে রান তোলায়ও সেরা ইংল্যান্ড। আর রান কম দেয়ার গেলো চার বছরে ধারাবাহিক নিউজিল্যান্ড। ইকোনমি চার দশমিক সাত।

দলগত পরিসংখ্যানে ইংল্যান্ডের সাথে টিম ইন্ডিয়ার লড়াই ছিল চোখে পড়ার মতো। তবে ব্যাট হাতে বিরাট কোহলির আশপাশে নেই কেউ। চার হাজার তিনশতাধিক রান করেছেন প্রায় ৮০ গড়ে। স্ট্রাইকরেট ১০০ ছুইছুই আর সেঞ্চুরি ১৯টি। চার বছরে ওয়ানডেতে ১৯ সেঞ্চুরি নি:সন্দেহে অসাধারণ।

গড়ের হিসাবে কোহলির পরই আছেন রস টেলর প্রায় ৭০ অ্যাভারেজে। রোহিত শর্মা-ডু প্লেসিদের এলিট ক্লাবে বাংলাদেশের ব্যাটিং নির্ভরতা তামিম ইকবাল। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপের পর ৫৮ গড়ে রান করেছেন, বেমানান শুধু স্ট্রাইকরেটটা।

চার বছরে দুবার ডাবল সেঞ্চুরি দেখেছে বিশ্ব। এই ক্লাবের দুই সদস্য চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত-পাকিস্তানের। দুবছর আগে লঙ্কানদের বিপক্ষে করা রোহিত শর্মার ২০৮ রান গেলো বছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ছাড়িয়ে যান ফখর জামান, অপরাজিত ২১০ রানের ইনিংসে।

বল হাতে সেরা আফগান লেগস্পিনার রশিদ খান। ৫৪ ইনিংসে শিকার ১২৩ উইকেট, গড়টাও অবিশ্বাস্য...মাত্র ১৫। পরের অবস্থানগুলোয় ট্রেন্ট বোল্ট, কুলদিপ যাদব, জাসপ্রিত বুমরা। সেরা পাচে আছেন ৪৫ ইনিংসে ৮৩ উইকেট নিয়ে কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ।

প্রথম দশ ওভারের পাওয়ার প্লেতে স্বাভাবিকভাবেই দাপট ফাস্ট বোলারদের। নেতৃত্বে ট্রেন্ট বোল্ট ৪৪ উইকেট নিয়ে, তালিকায় একমাত্র স্পিনার আফগানিস্তানের মুজিব উর রহমান।

দিন তিনেক পরই শুরু হবে ব্যাট-বলের আসল লড়াই। গেলো চার বছরের সংখ্যাতত্ত্ব কতটা কার্যকর হয়..সে পরীক্ষাটা শুরু হবে তখনই।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্পোর্টস 24 খবর