channel 24

সর্বশেষ

  • নোয়াখালীতে পরিত্যক্ত ভবনে চলছে হাসপাতালের বহির্বিভাগ ও প্রশাসনিক কাজ

  • বাড়ছে নেইমারের বার্সেলোনায় ফেরার গুঞ্জন

  • কিশোরগঞ্জে চুরির অপবাদ দিয়ে যুবককে নির্যাতন

  • আর্জেন্টিনার অনুশীলনে বাধা ব্রাজিলের প্রচন্ড গরম

  • বগুড়ায় আস্থা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার সিলগালা

  • নরসিংদীর অগ্নিদগ্ধ কলেজছাত্রী ফুলনের শেষকৃত্য সম্পন্ন

  • আজ ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি ভারত

  • অবসরের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এলেন গেইল

  • গোপালগঞ্জে সড়কের মাঝে বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখেই সংস্কার কাজ

  • টঙ্গীর আবাসিক এলাকায় মিলের কালো ধোঁয়ায় অতিষ্ট জনজীবন

  • নকআউট পর্বে প্রথমেই প্যারাগুয়ের মুখোমুখি ব্রাজিল

  • পাবনায় ভাতিজার হাতে চাচা খুন

  • নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে সেমিফাইনালের সম্ভাবনা বাঁচিয়ে রাখলো পাকিস্তান

  • প্রকাশ্যে স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়া হত্যা

  • ব্যাটিং-বোলিং-এর পাশাপাশি ক্রিকেটে গুরুত্বপূর্ণ ফিল্ডিং

২০১৫ বিশ্বকাপ পরবর্তী দলগুলোর পারফরমেন্সের পরিসংখ্যান

২০১৫ বিশ্বকাপ পরবর্তী দলগুলোর পারফরমেন্সের পরিসংখ্যান

মাত্র কয়েক দিনের অপেক্ষা ক্রিকেট শ্রেষ্ঠত্বের মহাযজ্ঞের পর্দা উঠতে। তার আগে আলোচনায় ফেভারিট ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া-ভারত কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকা। কোহলি-বোল্টদের ওপরও স্পটলাইট কম নয়। সব কিছুর মূলে পরিসংখ্যান তথা সংখ্যাতত্ত্ব।

ডাকছে বিশ্বকাপ ইংল্যান্ড তৈরি তার ঐতিহ্য আর আধুনিকতা নিয়ে। চার বছর পর উড়বে নতুনের শ্রেষ্ঠত্বের পতাকা নাকি অব্যাহত থাকবে অজি রাজ? তা জানতে অপেক্ষা ১৪ জুলাই পর্যন্ত। ২০১৫ থেকে ঊনিষের পথচলায় নানা ক্রিকেটীয় হিসাব আর পরিসংখ্যানে একক দাপট নেই কোনো দলের। তবে ইংল্যান্ড-ভারত-অস্ট্রেলিয়া কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকা যে সেরা প্রস্তুতি নিয়ে বিশ্বমঞ্চে নামার অপেক্ষায় তা সন্দেহাতীত। 

২০১৫ বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়ে ইংল্যান্ড আর ভারতের দাপট দেখেছে বিশ্ব। ১৫মে পর্যন্ত পরিসংখ্যানে ৮৬ ম্যাচের ৫৬টায় জয় ইংলিশদের। সমান ম্যাচে জয় সমান হলেও পরাজয়ের সংখ্যা বেশি টিম ইন্ডিয়ার। তিনে দক্ষিণ আফ্রিকা। সময়টা ভালো কাটেনি অস্ট্রেলিয়ার তবে, শ্রীলঙ্কার বিপর্যয় সব ছাপিয়ে। ৮৪ ম্যাচের ৫৫টায় হেরেছে ৯৬-র চ্যাম্পিয়নরা।

শুধু তাই নয় দু বিশ্বকাপের মাঝের সময়টায় লঙ্কানদের ব্যাটিং গড় সর্বনিম্ন..২৬ দশমিক সাত নয়। বোলিং গড় দ্বিতীয় সর্বনিম্ন সবচে খরুচে বোলিং ইউনিট করুণারত্নের দল।বিপরীত অবস্থা  ইংল্যান্ডের। ২০ সিরিজ/টুর্নামেন্টের ১৫টায় শিরোপা স্বাগতিকরা। ২০১৫-থেকে ১৯  পর্যন্ত পাচবার চার শতাধিক স্কোর দেখেছে বিশ্ব যার চারটা করেছে ইংলিশরা। আর ৩শ পেরিয়েছে ৩৮বার। টপ অর্ডারের স্ট্রাইকরেট রীতিমতো ভয় জাগানিয়ে ১০০-র ওপরে।

প্রথম ১০ ওভারে রান তোলায়ও সেরা ইংল্যান্ড। আর রান কম দেয়ার গেলো চার বছরে ধারাবাহিক নিউজিল্যান্ড। ইকোনমি চার দশমিক সাত।

দলগত পরিসংখ্যানে ইংল্যান্ডের সাথে টিম ইন্ডিয়ার লড়াই ছিল চোখে পড়ার মতো। তবে ব্যাট হাতে বিরাট কোহলির আশপাশে নেই কেউ। চার হাজার তিনশতাধিক রান করেছেন প্রায় ৮০ গড়ে। স্ট্রাইকরেট ১০০ ছুইছুই আর সেঞ্চুরি ১৯টি। চার বছরে ওয়ানডেতে ১৯ সেঞ্চুরি নি:সন্দেহে অসাধারণ।

গড়ের হিসাবে কোহলির পরই আছেন রস টেলর প্রায় ৭০ অ্যাভারেজে। রোহিত শর্মা-ডু প্লেসিদের এলিট ক্লাবে বাংলাদেশের ব্যাটিং নির্ভরতা তামিম ইকবাল। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপের পর ৫৮ গড়ে রান করেছেন, বেমানান শুধু স্ট্রাইকরেটটা।

চার বছরে দুবার ডাবল সেঞ্চুরি দেখেছে বিশ্ব। এই ক্লাবের দুই সদস্য চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত-পাকিস্তানের। দুবছর আগে লঙ্কানদের বিপক্ষে করা রোহিত শর্মার ২০৮ রান গেলো বছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ছাড়িয়ে যান ফখর জামান, অপরাজিত ২১০ রানের ইনিংসে।

বল হাতে সেরা আফগান লেগস্পিনার রশিদ খান। ৫৪ ইনিংসে শিকার ১২৩ উইকেট, গড়টাও অবিশ্বাস্য...মাত্র ১৫। পরের অবস্থানগুলোয় ট্রেন্ট বোল্ট, কুলদিপ যাদব, জাসপ্রিত বুমরা। সেরা পাচে আছেন ৪৫ ইনিংসে ৮৩ উইকেট নিয়ে কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ।

প্রথম দশ ওভারের পাওয়ার প্লেতে স্বাভাবিকভাবেই দাপট ফাস্ট বোলারদের। নেতৃত্বে ট্রেন্ট বোল্ট ৪৪ উইকেট নিয়ে, তালিকায় একমাত্র স্পিনার আফগানিস্তানের মুজিব উর রহমান।

দিন তিনেক পরই শুরু হবে ব্যাট-বলের আসল লড়াই। গেলো চার বছরের সংখ্যাতত্ত্ব কতটা কার্যকর হয়..সে পরীক্ষাটা শুরু হবে তখনই।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্পোর্টস 24 খবর