channel 24

সর্বশেষ

  • ডেঙ্গু জ্বরে সাতক্ষীরায় গৃহবধূর মৃত্যু

  • সাফ অনূর্ধ্ব ১৫ ফুটবল: ভূটানকে ৫-২ গোলে বিধ্বস্ত করলো বাংলাদেশ

  • রোহিঙ্গাদের আরাম কমানো হবে, যাতে ফিরতে রাজি হয়: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বিশ্বকাপে সেরা ওপেনারদের কাতারে তামিম ইকবাল

বিশ্বকাপে সেরা ওপেনারদের কাতারে তামিম ইকবাল

বিশ্বকাপে যে কজনার দিকে তাকিয়ে পুরো দেশবাসী তাদের একজন তিনি। গেল কবছরে লাল সবুজের জার্সিতেতো বটেই ব্যাট হাতে বিশ্বের অন্যতম ধারাবাহিকও তিনি। আর কেউ নন বলছি বাংলাদেশের ড্যাশিং ওপেনার তামিমের কথা।

উপমহাদেশের ওপেনাররা যেমন অগ্নিঝড়া ততটাই ধ্রুপদী ধ্রুবতারা। ভয়ঙ্কর সেহওয়াগ জয়াসুরিয়াদের সঙ্গে সাঈদ আনোয়ার শচীন টেন্ডুলকারকে মনে করেই দেখুন না।  

যে কোন বিচারে এই অঞ্চলের সেরা ওপেনারদের কাতারে থাকবে তামিম ইকবালের নামটাও। শেষ দুই বছরের পরিসংখ্যান ধরলে এখনকার বিশ্বসেরা তামিম-ই।  

রোহিত শর্মা, ইমাম উল হক, ওয়ার্নার বেয়ারস্টো ফখর জামানদের ছাড়িয়ে ওপেনারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশী গড়। প্রায় চুয়াত্তর।

২০০৭ বিশ্বকাপে ভারত বধরের নায়ক ১৮ বছর বয়সী এক তরুন। ডাউন দ্য উইকেটে এসেএ জহির খানকে ছক্কা হাকিয়েই বুঝিয়েছেন ক্রিকেটের কঠিন পথে নেমেছেন, অনেক দূর যেতে।

ওই বছরেই ওয়ানডে আর টি টোয়েন্টিতে অভিষেক। তবে টেস্টের জন্য নিজেকে উপযোগী প্রমান করতে লেগে গেলো আরো এক বছর।

অথচ এই টেস্টেই বেশী ধারাবাহিক, ক্ল্যাসিক তামিম ইকবাল। ২০১০ এ বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে লর্ডের অনার্স বোর্ডে নাম তোলেন। ওই সিরিজে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি।

বিশ্বকাপে ২১ ম্যাচ খেলে ৪৮৩ রান। তামিমের আক্ষেপ বিশ্বমঞ্চে কোন সেঞ্চুরি নেই। এখন পর্যন্ত খেলা তিন বিশ্বকাপে আহামরি সাফল্য নেই তামিমের। ২০১৫ বিশ্বকাপে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ৯৫ রান তার সেরা।

১৯৩ ওয়ানডেতে সাড়ে ছয় হাজারের ওপরে রান। সর্বাধিক ১১ সেঞ্চুরি তামিম ইকবালের। তিন ফরম্যাটেই দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ রানের মালিক তামিম। তিন ফরম্যাটেই  সেঞ্চুরি করা একমাত্র ক্রিকেটার।

অথচ সমালোচনায় বিদ্ধ জীবন পাড়ি দিয়ে আজকের অবস্থানে দেশের সেরা ব্যাটসম্যানের। কি দু:সময়ই না গেছে। সমর্থকদের কটুক্তি সহ্য করেও নিজেকে অবিচল রেখেছেন। পারফর্ম করেছেন কঠিন মানসিকতায়।
 
২০১২ এশিয়া কাপের দল থেকে বাদ পড়ার ঝাঁজ মিটিয়েছেন চার অর্ধশতকে। সমালোচনার সেই জবাব তো দেশের ক্রিকেটেরই ইতিহাস।

দেশের কিংবদন্তীতুল্য এই ব্যাটসম্যানের ক্যারিয়ারকে এক ঝটকায় বলে ফেলা মুশকিল। এক যুগের ক্যারিয়ারে বাংলাদেশের অনেক প্রথমের সঙ্গে জড়িয়ে তামিম। দেশের প্রত্যেকটা স্মরণীয় অর্জনে যেমন ছিলেন, দু:সময়ে এক হাতেও দাড়িয়েছেন ব্যাট হাতে।

চট্টগ্রামের কাজীর দেউড়ির বিখ্যাত  খান পরিবারের সন্তান। বাবা ইকবাল খান ছিলেন ফুটবলার। বড় ভাই নাফিস ইকবাল বাংলাদেশের টেস্ট ওপেনার। খেলা যার রক্তে মিশে, প্রত্যাশাটা  তাঁর কাছেই বেশী।

আকরাম খানের হাতে ৯৭ আইসিস ট্রফি ওই পরিবারের সারাজীবনের গর্ব। এবার বিশ্বকাপ জিতে চাচাকে ম্লান করার সেরা সুযোগ তামিম ইকবালের সামনে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্পোর্টস 24 খবর