channel 24

ব্রেকিং নিউজ

  • অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসা: রাজধানীর গুলশানে ঢাকা মহানগর...

  • দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ ভূঁইয়া আটক...

  • মতিঝিলে ফকিরেরপুল ইয়ংমেনস ক্লাবে অভিযানে আটক ১৪২

বিশ্বকাপে দলের মিডিল অর্ডারের চাপ নিতে প্রস্তুত মিঠুন

বিশ্বকাপে দলের মিডিল অর্ডারের চাপ নিতে প্রস্তুত মিঠুন

বিশ্বকাপ দলের ব্যাকআপ উইকেটরক্ষক তিনি। তবে মোহাম্মদ মিঠুনের উপর ভরসা দলের মিডিল অর্ডারের। ক্রিকেটই ছিলো তার ধ্যান-জ্ঞান। মাঝে লক্ষ্য থেকে লাইনচ্যুত হলেও স্ত্রীর প্রেরণায় আর পরিবারের আস্থায় নতুন মিঠুনের পূর্নজন্ম হয়েছে গতবছর থেকে।

টেস্ট অভিষেকটা ভুলে যেতে চাইবেন মোহাম্মদ মিঠুন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে শূণ্য রানে বিদায়। অথচ ৮৮ প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতায় হৃদ্ধ হয়ে খেলতে নেমেছিলেন ক্রিকেটের রাজসিক আসরে।

ভুল থেকে শিক্ষা নেয়াটাই তার জীবনের গন্তব্য।২০০৮-এ যুব বিশ্বকাপ খেলার ছয় বছর পর পেয়েছিলেন জাতীয় দলের জার্সি। টেস্ট খেলতে লেগেছে এক দশক। মাঝে বাদ পড়েছেন।

চার বছর অপেক্ষা করতে হয়েছে তৃতীয় ওয়ানডে খেলতে। দীর্ঘ বিরতির পর আবারো ফিরেছেন নতুন রুপে।

পূর্নজন্মে নিয়মিত কঠিন পরিশ্রমের প্রমান দিচ্ছেন। এশিয়া কাপে গুরুত্বপূর্ণ দুটি ফিফটি। নিউজিল্যান্ড সফরেও বিপর্যয়ের মধ্যে দুই অর্ধশতক। তার এই লড়াকু মনোভাব বিশ্বকাপ দলে জায়গা দিয়েছে।

সঙ্গে অবদান স্ত্রীর। নিগার সুলতানাকে বিয়ে করে সন্তানের জনক হয়েছেন আরো আগেই।তারই প্রেরণায় ক্রিকেটকে নিয়েছেন সিরিয়াসভাবে। নিয়মিত অনুশীলন, জিমে যাওয়া, খাদ্যাভাস সবই স্ত্রীর কথার সূত্র ধরে।

যেমন সিরিয়াস ছিলেন না ছোটবেলায় পড়াশোনায়। পড়ার চেয়ে খেলাটাকেই বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। পড়তে না চাওয়ায় মা-বাবার বকুনি-পিটুনি খেয়েছেন। কিন্তু ক্রিকেট ছাড়েননি।এখন অবশ্য তাকে নিয়ে গর্বের সীমা নেই পরিবারের।

বড় ভাইয়ের কথায় ঢাকায় এসেছিলেন ক্রিকেট প্রতিভার প্রমান দিতে। ২০০২ সালে বিকেএসপির ট্রায়ালে টিকে যাওয়ায় আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।

১৮ ওয়ানডের ক্যারিয়ারে রান করেছেন ৪২০। চার ফিফটির সবগুলোই এসেছে গত এক বছরে। গড় ৩২-এর উপরে। স্ট্রাইক রেট আশির কাছাকাছি।

মূলত উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হলেও জাতীয় দলে এখন তার পরিচয় শুধুই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। মিঠুনের জন্ম কুষ্টিয়ায়, ১৯৯১ সালের ২ মার্চ। ৫ ফুট দশ ইঞ্চি উচ্চতার মিঠুন তিন ভাই-বোনের আদরের।

আদর্শ মানেন অ্যাডাম গিলক্রিস্টকে। তবে ওয়ানডেতে তার মত আক্রমনাত্মক ব্যাটিং করার সুযোগ নেই। কেননা মিডল অর্ডারে দলের হার ধরাই যে মিঠুনের কাজ।

বিশ্বকাপেও মিঠুনের উপর আস্থা রেখেছে দল, আস্থা রাখছে কোটি বাংলাদেশি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্পোর্টস 24 খবর