channel 24

সর্বশেষ

  • তাজিয়া মিছিলের নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

  • কোটা নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পাল্টাপাল্টি মিছিল

  • একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার কাজ শেষ; রায় ১০ অক্টোবর

  • ইভিএম কিনতে ৪ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন একনেকে

  • বিএনপি নেতা আমীর খসরুর সম্পদ অনুসন্ধানে দুদকের অভিযান

  • ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৭.৮৬ শতাংশ: পরিকল্পনামন্ত্রী

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১২ রানে হারালো বাংলাদেশ

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১২ রানে হারালো বাংলাদেশ

ব্যাট হাতে তামিম-সাকিব আর বল হাতে মোস্তাফিজ-নাজমুলের তোপে, শেষ ওভারের নাটকীয়তায় জয় পেলো বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে স্বাগতিকদের ১২ রানে হারিয়ে সমতা ফেরালো টাইগাররা। কাল একই ভেন্যুতে সিরিজ নির্ধারনী তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ সকাল ছটায়।

প্রথমে ব্যাট করে তামিম-সাকিবের হাফসেঞ্চুরিতে ক্যারিবীয়দের ৫ উইকেটে ১৭২ রানের টার্গেট দেয় বাংলাদেশ। জবাবে, ৯ উইকেটে ১৫৯ রানে থামে উইন্ডিজদের ইনিংস। শেষ ওভারে প্রয়োজন ছিলো ১৫ রান। কিন্তু নাজমুল ইসলামের বোলিং ভেল্কিতে সেটা টপকাতে পারেনি ক্যারিবিয় দৈত্যরা। ম্যাচ সেরা তামিম ইকবাল।
টি-টোয়ন্টিতে টানা পাঁচ ম্যাচ হারের পর অবশেষে স্বস্তির জয় বাংলাদেশের। শেষ ওভারে নাজমুল হোসেন অপুর সুপার পাওয়ারে ভস্ম হয়ে যাওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটসম্যানরা লক্ষ্যে পৌছাতে ব্যর্থ হন। তাতেই ১২ রানের জয় দিয়ে সিরিজ জয়ের আশাও বাঁচিয়ে রাখলো টাইগাররা।

টস হেরে ম্যাচের শুরুটা অবশ্য টিম বাংলাদেশের বিপক্ষেই ছিলো। ব্যর্থতার ধারাবাহিকতায় দলীয় ৪৮ রানেই প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন ওপেনার লিটন দাস, অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিম ও  নিজেকে প্রমানে বিফল সৌম্য সরকার। ব্যাটিং বিপর্যয়ে চাপ সামলাতে তামিমের যোগ্য সঙ্গী সাকিব তখন রীতিমতো লড়াই করছেন।

তবে, টি-টোয়েন্টি ম্যাচ বলে কথা। তাই, উইন্ডিজ বোলারদের বিপক্ষে আক্রমনাত্মক ব্যাটিংয়ের পথ বেছে নেন এই দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ৪০ বলে ৯০ রানের জুটি গড়েন তামিম সাকিব। যা ভিত গড়ে দয়ে দলের বড় সংগ্রহের। ৪৭ রানে তামিম রভম্যান পাওয়েলের ক্যাচ মিসে জীবন পেয়ে ক্যারিয়ারের ৬ষ্ঠ হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন ৩৫ বলে। এরপর যেন আরো ভয়ংকর তামিম। তবে, ৪৪৭ বলে ৭৪ রান করা তামিমকে ফিরিয়ে সেই ঝড় থামান আন্দ্রে রাসেল।

সঙ্গী সাকিব তখন আরেক প্রান্তে সচল ব্যাট হাতে। টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের সপ্তম ফিফটি করতে বেশি সময় নেননি। প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে ৩৮ বলে ৬০ রান করেন এই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। ততক্ষনে ১৭১ রানের চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ পায় টিম বাংলাদেশ। যা স্বাগতিকদের বিপক্ষে টাইগারদের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

জবাবে, ব্যাটিংয়ে নেমে ক্রিজে বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি এভিন লুইস। মুস্তাফিজের বোলিং তোপের সাথে সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণি। ফলাফল ৫৮ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে ব্যাটিংয়ে ধুকতে থাকে স্বাগতিকরা।

ফ্লেচার ও পাওয়েলের জুটি শাসন করতে থাকে বাংলাদেশী বোলারদের। এর মাঝে চৌদ্দতম ওভারে লং অন বাউন্ডারিতে রনির বলে ক্যাচ দিয়েও আরিফুলের ব্যর্থতায় জীবন পান পাওয়েল। ব্যাক্তিগত ৪৩ রানে নাজমুল ইসলাম অপুর বলে ফ্লেচার ফেরার পর ভাটা পড়ে উইন্ডিজদের রানের গতিতে।

১৭ ওভারের শেষ বলে সাকিবের ভুলে পুনরায় জীবন পাওয়া পাওয়েল বেশিদূর যেতে পারেননি। ১৮ তম ওভারে মুস্তাফিজের বলে কাটা পড়ার সাথে জয়ের ভিত রচনা হয়। শেষ ওভারে অপু দুই উইকেট তুলে নিয়ে জয় নিশ্চিত করেন।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্পোর্টস 24 খবর