ব্র্যান্ডিং দুর্বলতায় আতুড় ঘরেই রয়ে গেছে পর্যটন শিল্প

দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কিংবা বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন, পর্যটন আকর্ষনের অনেক কিছুই রয়েছে বাংলাদেশে। কিন্তু বাস্তবতা হলো, আজ পর্যন্ত প্রত্যাশিত পথে হাঁটেনি দেশের পর্যটন শিল্প। সংশ্লিষ্টরা এ জন্য দুষছেন ব্র্যান্ডিং দুর্বলতাকে। তারা বলছেন, সমন্বিত পরিকল্পনার মাধ্যমে দেশের আকর্ষণীয় স্থানগুলোকে বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরতে পারলে, পাল্টে যাবে এ খাতের চেহারা।

বিশ্বের কাছে নিজের দেশকে আকর্ষণীয়ভাবে তুলে ধরতেই, এমন আয়োজন মালয়েশিয়া সরকারের। ব্র্যান্ডিংয়ের এ পথে হাঁটতে দেখা যায় ভারত, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, মালদ্বীপসহ অনেক দেশকেই।

দীর্ঘদিন ধরে সম্ভাবনাময় খাতের তালিকায় থাকলেও, দেশের পর্যটন এগোয়নি কাঙ্খিত পথে। অথচ বহু দেশের অর্থনীতির ভীত গড়ে দিয়েছে এ খাত। ওয়াল্ড ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম কাউন্সিলের তথ্য বলছে, দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশের জিডিপিতে পর্যটন খাতের অবদান সবচেয়ে কম। ২০১৬ সালে যা ছিল, মাত্র ২ দশমিক ২ শতাংশ। কিন্তু পাশের দেশ ভারত এ হার  ৩ দশমিক ৩। আর নেপাল ৩ দশমিক ৬, শ্রীলঙ্কা ৫ দশমিক ১, পাকিস্তান ২ দশমিক ৭ আর ও মালদ্বীপে ৪০ শতাংশ।

বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড বলছে, বিশ্বের কাছে দেশকে তুলে ধরতে, ঘাটতি আছে প্রচারণার কৌশলের। এ দুর্বলতা দূর করতে দরকার সরকারি এ প্রতিষ্ঠানটির শক্ত ভিত্তি।

বেসরকারি ট্যুর অপারেটরদের অভিযোগ, পর্যটন খাতের বিকাশে নেই কোনো সমন্বিত পরিকল্পনা। বাজেটে দেয়া হয়না পর্যাপ্ত বরাদ্দও।

তবে সবারই পরামর্শ, বিদেশি পর্যটক আকর্ষণে বিশ্বের কাছে দেশের ইতিবাচক ভাবমূর্তি তুলে ধরার।

চ্যানেল 24

387 South, Tejgaon I/A
Dhaka-1208, Bangladesh
Email: newsroom@channel24bd.tv
Tel: +8802 550 29724
Fax: +8802 550 19709

Save

Save

Like us on Facebook
Satellite Parameters
Webmail

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save

Save