channel 24

সর্বশেষ

  • তাজিয়া মিছিলের নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

  • কোটা নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পাল্টাপাল্টি মিছিল

  • একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার কাজ শেষ; রায় ১০ অক্টোবর

  • ইভিএম কিনতে ৪ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন একনেকে

  • বিএনপি নেতা আমীর খসরুর সম্পদ অনুসন্ধানে দুদকের অভিযান

  • ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৭.৮৬ শতাংশ: পরিকল্পনামন্ত্রী

শিশু আইনের দুর্বলতার সুযোগ নিচ্ছে প্রাপ্তবয়স্ক আসামিরা

শিশু আইনের দুর্বলতার সুযোগ নিচ্ছে প্রাপ্তবয়স্ক আসামিরা

শিশু আইনে অভিযোগ প্রমাণ হলেও, মৃত্যুদণ্ড বা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়ার বিধান নেই। এছাড়া, আসামি প্রাপ্তবয়স্ক হলে, তাকে শাস্তি দিতে শিশু আদালত পারবে কিনা, তার উল্লেখ নেই আইনে। আইনজীবীরা বলছেন, আইনের এই দুর্বলতার সুযোগ নিচ্ছে আসামিরা।

 

২০১৬ সালে রাজধানীর উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের শিক্ষার্থী রিশা, ছুরিকাঘাতে নিহত হন। ফলে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা করেন রিশার মা। পরে, এটি হত্যা মামলায় রূপান্তরিত হয়।

মামলার একমাত্র আসামি ওবায়দুলের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্রও দাখিল করে পুলিশ। অভিযোগ গঠনের পর শুরু হয় বিচার। কিন্তু কয়েকজন সাক্ষী শিশু থাকায়, সাক্ষ্য গ্রহণের একপর্যায়ে মামলাটি শিশু আদালতে বদলির আবেদন করে আসামিপক্ষ। যা গ্রহণ করে, অষ্টম অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত থেকে মামলাটি শিশু আদালতে বদলির আদেশ দেন  ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত। 

কিন্তু, শিশু আদালতে আসামি প্রাপ্তবয়স্ক হলে; অভিযোগ প্রমাণিত হবার পর, তার শাস্তি কী হবে, সেটি শিশু আইনে বলা নেই। ফলে এর সুযোগ নিচ্ছে আসামিরা।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আব্দুর রহমান বলছেন, এসব ক্ষেত্রে মামলা শিশু আদালতে বদলির আগে, হাইকোর্ট বিভাগে পরামর্শের জন্য পাঠানো উচিত।

এছাড়া, শিশু আইনের অষ্পষ্ট বিষয়গুলো দূর করার দাবিও জানান, এই আইনজীবী।

 

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর