channel 24

সর্বশেষ

  • কোচিং বাণিজ্য: উইলস লিটল স্কুলের ৩০ শিক্ষককে দুদকের শোকজ

  • নাটোরের বাগাতিপাড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের নিহত ৩

  • রোহিঙ্গা ইস্যুর সমাধান দীর্ঘায়িত হলে বাংলাদেশ সমস্যায় পড়বে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • এসএসসি ও সমমান পরীক্ষাকালীন কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে: শিক্ষামন্ত্রী

  • জামায়াত ও যুদ্ধাপরাধীর সন্তানরা যেন সরকারি চাকরি না পায়...

  • তার জন্য আইন করতে হবে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

  • সমাজে ব্যাধির মতো ছড়িয়ে গেছে দুর্নীতি: প্রধানমন্ত্রী...

  • সব অপরাধ দমনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে তৎপর থাকার নির্দেশ

  • ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে সাংবাদিকদের...

  • উদ্বেগের বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করছে সরকার: তথ্যমন্ত্রী

  • রিজার্ভ চুরি: চলতি মাসেই নিউইয়র্কে মামলা- অর্থমন্ত্রী

  • হলি আর্টিজান মামলার আসামি জঙ্গিনেতা মামুন ৫ দিনের রিমান্ডে

  • ডিপিডিসির নির্বাহী পরিচালক রমিজ উদ্দিন সরকার ও...

  • তার স্ত্রীর সম্পদের হিসাব দিতে দুদকের নোটিশ

বিমানের জরুরী অবতরণ এবং পাইলটদের লোমহর্ষক অভিজ্ঞতা

বিমানের জরুরী অবতরণ এবং পাইলটদের লোমহর্ষক অভিজ্ঞতা

নেপালে বিধ্বস্ত ইউএস-বাংলার বিমানটি যে মডেলের সেই ড্যাশ-এইট প্লেন এর আগেও দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছিল। 

এই ঘটনা ২০১৭ সালের। ওইদিন সৈয়দপুর বিমানবন্দর থেকে উড়াল দেয়ার সময় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের উড়োজাহাজটির একটি চাকা খুলে পড়ে যায়। পরে বৈমানিকদের দক্ষতায় নিরাপদে অবতরণ করে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। উড়োজাহাজের জরুরী অবতরণ এক অনিশ্চয়তার নাম। যান্ত্রিক ত্রুটি কিংবা খারাপ আবহাওয়াসহ নানা কারণে মাঝেমধ্যেই বিশ্বের নামি দামি বিমান সংস্থার উড়োজাহাজের জরুরী অবতরণের কথা শোনা যায়।   

এই গত ৩১ শে অক্টোবরও প্যারিস থেকে আমেরিকা যাওয়ার পথে ইঞ্জিনে ত্রুটি দেখা দিলে ৫১৮ যাত্রী নিয়ে আটলান্টিক মহাসাগরে জরুরি অবতরণে বাধ্য হয় এয়ার ফ্রান্সের একটি এয়ারবাস। ভালো খবর হলো এতে কোনো প্রাণহানি ঘটেনি। সাগরের বুকে না হলেও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজের যাত্রীদের জরুরি অবতরণের অভিজ্ঞতা বিরল নয়। তথ্য বলছে, ১৯৭২ সাল থেকে এ পর্যন্ত ১৮টির মতো দুর্ঘটনার মুখে পড়ে বাংলাদেশ বিমান। ঘটে হতাহতের ঘটনাও। 

সবশেষ গত ২৫ শে অক্টোবর সৈয়দপুর থেকে ৭১ জন আরোহী নিয়ে উড্ডয়নের সময় ড্যাশ-৮ বিমান একটি চাকা খুলে পড়ে। অবশ্য বৈমানিকদের দক্ষতায় নিরাপদেই অবতরণ করে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। যাদের দক্ষতায় এড়ানো গেল বড় ধরনের প্রাণহানি, তারা হলেন-ক্যাপ্টেন আতিকুর রহমান ও ফার্স্ট অফিসার সরফরাজ ইয়ামিন। সেদিনের সেই রোমহর্ষক অভিজ্ঞতার বর্ণনা দিলেন ক্যাপ্টেন আতিক। এই ক্যাপ্টেনের পরামর্শ বিমান পরিচালনার সময় সবাইকে যে কোন পরিস্থিতিতে মাথা ঠাণ্ডা রাখতে হবে। আর যাত্রীদের উচিৎ কেবিন ক্রুট নির্দেশনা অনুসরণ করা। 

 

 

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর