channel 24

সর্বশেষ

  • ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে সারা দেশে উদযাপিত হচ্ছে ঈদুল আজহা...

  • জাতীয় ঈদগাহে প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত...

  • নামাজ শেষে পশু কোরবানি করছেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা

  • শোকের মাঝেও মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে কাজ করছি...

  • গণভবনে সর্বসাধারণের সাথে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে প্রধানমন্ত্রী...

  • বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়

  • নির্বাচনে না এসে বিএনপি এবারও সহিংসতার চেষ্টা করলে...

  • জনগণকে নিয়ে প্রতিহত করা হবে: নোয়াখালীতে সেতুমন্ত্রী

  • ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় তারেক রহমানকে জড়িয়ে...

  • প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য মামলার রায়কে প্রভাবিত করবে: ফখরুল

  • বগুড়ার শাজাহানপুরে বাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ৩

সময় কোথায় চিঠি লিখবার?

সময় কোথায় চিঠি লিখবার?

একটা সময় চিঠি আদান-প্রদানে পোস্ট অফিস বা ডাকঘরই ছিলো একমাত্র ভরসা। কিন্তু, প্রযুক্তি আর সময়ের পালাবদলে, বদলেছে সেই চিত্র। ইন্টারনেট কিংবা মুঠোফোনেই মানুষ এখন বেশি নির্ভরশীল। তবে, ডাক বিভাগকে সব শ্রেণির মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে, উন্নত হয়েছে সেবার মান, যুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন সেবা।

 

কুষ্টিয়ার জগদী গ্রামের ছোট্ট ডাকঘরেই কেটেছে ২০ বছর। তারপরও এতটুকু দমে যাননি জাকির হোসেন। ফলা হাতে ডাক নিয়ে প্রতিনিয়তই ছুটে চলা প্রাপকের কাছে। সঙ্গী বাইসাইকেল। প্রেরকের বার্তা, তার কাছে আমানত। সময় পাল্টেছে, বদলাচ্ছে প্রযুক্তি। কিন্তু একই আছেন জাকির হোসেন।যদিও শহুরে ডাকঘরের চিত্র একটু ভিন্ন। পালাবদলের দোলা লেগেছে সবখানে। রেজিস্ট্রি খাতার পাশাপাশি আছে কম্পিউটার। 

এরমাঝেই প্রতিনিয়ত ছুটে চলছেন ডাকপিয়ন আসাদুজ্জামান। সরকারি চিঠিপত্র আর মানি অর্ডারেই সীমাবদ্ধ কাজ। তাই শঙ্কা, একদিন হয়তো এই পদও থাকবে না। সময়ের সাথে প্রযুক্তি যতই আসুক, গ্রামের মানুষের কাছে ডাকপিয়ন এখনও এক বিশ্বস্ততার নাম। যদিও ভিন্ন মত, ইন্টারনেট নির্ভরশীলদের।

ডাক বিভাগের এই কর্তার জানালেন, চিঠিপত্রের আদানপ্রদান কিছুটা কমেছে ঠিকই, তবে কার্যক্রম ও সেবার মান আগের চেয়ে বেড়েছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ব্যক্তিগত চিঠি আদান-প্রদানে সুযোগ-সুবিধা কমে যাওয়ায় আগের তুলনায় ৭০ ভাগ কমেছে এর কার্যক্রম। 

 

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর