channel 24

সর্বশেষ

  • ক্রিকেটারদের আন্দোলন অপ্রত্যাশিত: নাজমুল হাসান...

  • ক্রিকেটাররা যখন যা চেয়েছে, সবকিছুই দিয়েছে বিসিবি...

  • ক্রিকেটারদের চাহিদামতোই ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ চলবে...

  • এমন সিদ্ধান্ত আগেই নেয়া হয়েছে...

  • চুক্তিভিত্তিক ক্রিকেটারের সংখ্যা বাংলাদেশেই সর্বোচ্চ

  • মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে আজ থেকে টেলিফোনের নতুন ও...

  • পুনঃসংযোগ ফি সম্পূর্ণ মওকুফ: টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

  • সীমানা পেরিয়ে বরগুনায় ভারতীয় জেলেদের ইলিশ শিকার; আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারি বাড়ানোর দাবি স্থানীয়দের।

  • সড়ক দুর্ঘটনা ঠেকাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে পুলিশের উদ্যোগ; বেপরোয়া গতি ও মাদকাসক্ত চালক ধরা পড়বে সহজেই।

  • শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক সড়ক যেন মরণফাঁদ; চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা

  • ফের আলোচনায় ডাকসু জিএস রাব্বানী; এমফিলে ভর্তির বিষয়টি জানতো না সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে চলছে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষের গবেষণা

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে চলছে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষের গবেষণা

রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হয়েছে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষের গবেষণা। যা নিরাপদ মাছ উৎপাদনের পদ্ধতি বলে এরইমধ্যে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পেয়েছে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, দেশীয় জাতের মাছকে চাষ উপযোগী করতেই তারা এই প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণা করছেন। এটি সফল হলে মাছের উৎপাদন খরচ অর্ধেকে নেমে আসবে বলেও আশা করছেন তারা।

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের ভবনের ছাদে, মাত্র ৬শ বর্গফুটের এই ঘরেই চাষ হচ্ছে দেশীয় প্রজাতির মাগুর মাছ।

কোনো ধরনের রাসায়নিকের ব্যবহার ছাড়া, ঘরের ভেতর খাঁচার মধ্যে মাছ চাষের এই পদ্ধতি পরিচিত বায়োফ্লক নামে। যেখানে মাছের খাবার হিসেবে ব্যবহার করা হয় অনুজীব। মূলত উপকারী ব্যকটেরিয়া দিয়ে পানিতে উচ্চ কার্বন-নাইট্রোজেন অনুপাত নিশ্চিত করে, ক্ষতিকর এমোনিয়াকে রূপান্তর করা হয় অনুজীব আমিষে। যা খেয়েই বড় হয় মাছ।

ইতিমধ্যে বহিঃবিশ্বে এই প্রযুক্তি জনপ্রিয় হলেও অতিসম্প্রতি এ নিয়ে গবেষণা শুরু হয়েছে দেশেও। উদ্দেশ্য দেশীয় জাতের মাছকে এই প্রযুক্তির সাথে খাপ খাওয়ানো।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, ১ হাজার বর্গফুটের একটি ছোট জায়গায় বায়োফ্লক পদ্ধতিতে বছরে কমপক্ষে ১ হাজার কেজি মাছ উৎপাদন সম্ভব। এজন্য দরকার উপকারী ব্যাকটেরিয়ার উৎস, নিয়িমত পানির গুনাগুন পরীক্ষা, তাপমাত্রার নিয়ন্ত্রণ ও সার্বক্ষণিক বিদ্যুত সরবরাহ।

তারা আরও বলছেন, এই পদ্ধতির ব্যবহার শুরু হলে দেশে মাছ চাষের জমির ব্যবহারই শুধু কমবে না কমবে মাছের দামও।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর