channel 24

সর্বশেষ

  • ক্রিকেটারদের আন্দোলন অপ্রত্যাশিত: নাজমুল হাসান...

  • ক্রিকেটাররা যখন যা চেয়েছে, সবকিছুই দিয়েছে বিসিবি...

  • ক্রিকেটারদের চাহিদামতোই ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ চলবে...

  • এমন সিদ্ধান্ত আগেই নেয়া হয়েছে...

  • চুক্তিভিত্তিক ক্রিকেটারের সংখ্যা বাংলাদেশেই সর্বোচ্চ

  • মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে আজ থেকে টেলিফোনের নতুন ও...

  • পুনঃসংযোগ ফি সম্পূর্ণ মওকুফ: টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

  • সীমানা পেরিয়ে বরগুনায় ভারতীয় জেলেদের ইলিশ শিকার; আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারি বাড়ানোর দাবি স্থানীয়দের।

  • সড়ক দুর্ঘটনা ঠেকাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে পুলিশের উদ্যোগ; বেপরোয়া গতি ও মাদকাসক্ত চালক ধরা পড়বে সহজেই।

  • শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক সড়ক যেন মরণফাঁদ; চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা

  • ফের আলোচনায় ডাকসু জিএস রাব্বানী; এমফিলে ভর্তির বিষয়টি জানতো না সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ

ক্ষমতার মোহে নৃশংসতা!

ক্ষমতার মোহে নৃশংসতা!

সাবেকুন নাহার সনি থেকে আবরার ফাহাদ। বুয়েটের সর্বোচ্চ মেধাবীদের ঝরে পড়ার গল্প। সনি যে দুপক্ষের গোলাগুলিতে মারা গিয়েছিলো, সাক্ষীর অভাবে মৃত্যুদন্ড দিতে পারেনি আপিল বিভাগ। তাই আবরার হত্যার বিচার নিয়ে আশংকা থেকেই যাচ্ছে খুনীরা সর্বোচ্চ সাজা পাবে পাবে কি-না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকল্যাণের শিক্ষক তৌহিদুল হক বলছেন ক্ষমতার মোহ এমন খুনী বানাচ্ছে মেধাবীদের।

২০০২ সালের ৮ জুন বুয়েটের বড় অংকের টেন্ডার নিয়ে ছাত্রদলের দুগ্রুপের গোলাগুলিতে  নিহত হন সাবেকুন নাহার সনি। বুয়েটে হত্যার নৃশংসতার শুরু সেখানেই। যদিও শেষ পর্যন্ত আপিল বিভাগ মুল আসামী মুকিত, টগরের মৃত্যুদন্ড বাতিল করে যাবজ্জীবন দেন। যাদের মৃত্যুদন্ড হয় তাদের মধ্য নুরুসহ দুজন এখনো পলাতক।

৯ এপ্রিল ২০১৩, হেফাজত ইসলামের চাপাতির কোপে নিহত বুয়েটের শিক্ষার্থী আরিফ রায়হান দ্বীপের বিচার হয়নি আজও। অভিযুক্ত হেফাজত কর্মী স্থাপত্য বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র মেজবাহ উদ্দিন জামিন পেয়ে এখন ফেরারি।

এবার ছাত্রলীগের বুয়েট শাখার নেতাকর্মীদের উন্মত্ত বর্বরতায় শিকার আবরার ফাহাদ।  রাতের আধাঁরে পিটিয়ে হত্যা করা হয় দ্বিতীয় বর্ষের এই মেধাবী শিক্ষার্থীকে। এর প্রতিবাদে ফের উত্তাল শিক্ষাঙ্গণ।

কিন্তু এর শেষ কোথায়? আইনজীবীরা বলছেন, অতিতের ঘটনাগুলোর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হলে এভাবে প্রাণ দিতে হতো না আবরারকে।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, কোন রাজনৈতিক দলের সীলমোহর লাগলেই আপনি যা কিছু করার লাইসেন্স পেয়ে যাচ্ছেন। আপনাকে প্রশ্ন করার কেউ থাকছে না। আবরারকে শিবির সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদ করার কি অধিকার আছে ছাত্রলীগের?

দলকে শক্ত ভূমিকা পালনের কথা বলে সাবেক আইনমন্ত্রী বলেন, যেন দলীয় সম্পর্কের কথা বলে এমন নৃশংসকারীরা নিষ্কৃতি পেয়ে না যেতে পারে।
 
কি কারনে মেধাবী শিক্ষার্থীরা এমন নৃশংস হয়ে উঠছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ কল্যান বিভাগের শিক্ষক তৌহিদুল হক বলছেন, ক্ষমতার মোহ নৃশংস হতে বাধ্য করছে তাদের।

তিনি বলেন, এটি পরিবার থেকে নয় বরং পারিপাশ্বিক অবস্থার কারণেই তারা এই বর্বর আচরণগুলো রপ্ত করছে। আর তাদের এই বর্বর আচরণের কারণে তাদের আশেপাশে পরিস্থিতি এবং তাদের নিজেদের জীবনও হুমকির মধ্যে বেড়ে উঠছে।

এদিকে ২০১০ সালের স্যার এ এফ রহমান হলের সিট দখল নিয়ে ছাত্রলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে প্রাণ যায় আবু বকর সিদ্দিকের। কিন্তু  ২০১৭ সালে আদালতের রায়ে ছাত্রলীগের সবাই খালাস পান।

এবার আশংকা আবরার হত্যায় এমন কিছু হবে না-তো?

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর