channel 24

সর্বশেষ

  • করোনা প্রতিরোধে সরকারের কোনো সমন্বয় নেই: ফখরুল

  • আ.লীগের সাবেক এমপি হাজী মকবুলের দাফন সম্পন্ন

  • ভিন্ন এক প্রেক্ষাপটে এলো এবারের ঈদ

  • ৮ বছর পেরিয়ে নয়ে পা রাখলো চ্যানেল টোয়েন্টিফোর

  • করোনায় মারা গেলেন আ.লীগের সাবেক এমপি হাজী মকবুল

  • অনির্দিষ্টকাল মানুষের আয়ের পথ বন্ধ রাখা সম্ভব নয় জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী

  • ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে শেখ হাসিনার ভাষণ

  • মহামারিতে কাল বিষাদের ঈদ

  • শারীরিক দূরত্ব মেনে বায়তুল মোকাররমে ৫টি জামাত

  • হালদা নদীতে আরও একটি ডলফিন মারা পড়লো

  • ৮ জুন থেকে লা লিগা ফিরতে বাধা নেই

  • স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদ উদযাপনের আহ্বান কাদেরের

  • পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার তৌফিক উমর করোনায় আক্রান্ত

  • জয়পুরহাটে অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়েছে 'করোনা যুদ্ধে আমরা' সংগঠন

  • করোনায় ভেঙে পড়েছে ই-কমার্স খাত

শ্রমিক সংকটে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর

শ্রমিক সংকটে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর

শ্রমিক সংকটে ভুগছে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান শ্রমিকদের মজুরি ঠিকঠাক না মেটানোয় এই সংকট। নির্ধারিত চার্জের বাইরেও পণ্য খালাসের জন্য শ্রমিক বাবদ আমদানিকারকদের গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত টাকা। সমস্যার কথা স্বীকারও করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

ভোমরা বন্দরে প্রতিদিন আড়াইশ থেকে তিনশ ট্রাক পণ্য আসে ভারত থেকে। এই পণ্য খালাসের পর সরবরাহ করতে শ্রমিক প্রয়োজন দুই থেকে আড়াইহাজার। শ্রমিক মজুরি বাবদ ব্যবসায়ীরা টনপ্রতি ৫৪ টাকা চার্জ দেন বন্দর কর্তৃপক্ষকে।

নিয়ম অনুযায়ী পণ্য লোড-আনলোডের জন্য শ্রমিক সরবরাহের কথা বন্দর কর্তৃপক্ষ নিয়োজিত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ড্রপ কমিউনিকেশনের। তবে টাকা নিলেও, প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় শ্রমিক জোগান না দেয়ার অভিযোগ আমদানিকারকদের।

আমদানিকারকরা বলছেন, ৫৪.৫৮ টাকা টনপ্রতি আমরা বন্দর কর্তৃপক্ষকে চার্জ দেই, তারপরেও বন্দরের ঠিকাদাররা আমাদের শ্রমিক সরবরাহ করে না।

ভোমরা বন্দরের সি এন্ড এফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি মোস্তাফিজুর রহমান নাসিম বলেন, সরকার মনোনিত একজন শ্রমিক ঠিকাদার শ্রমিক না দিয়েই টাকা নিয়ে চলে যায়।

বন্দর কর্তৃপক্ষ টনপ্রতি চার্জ নিলেও, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান শ্রমিকদের মজুরি দেয় ট্রাকপ্রতি। শ্রমিক ও শ্রমিক সর্দাররাও বলছেন, এই টাকার পরিমাণ খুবই কম।

শ্রমিকরা বলছে, তারা ট্রাকপ্রতি মাত্র ২৬০ টাকা মজুরি পায়।

বন্দর কর্তৃপক্ষও জানেন এই সংকটের কথা।

সার্বিক অবস্থায় স্থল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান বলেন, সমস্যার সমাধানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

শ্রমিক সংকট প্রভাব ফেলতে পারে বন্দরের রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা পূরণেও।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর