channel 24

সর্বশেষ

  • ক্রিকেটারদের আন্দোলন অপ্রত্যাশিত: নাজমুল হাসান...

  • ক্রিকেটাররা যখন যা চেয়েছে, সবকিছুই দিয়েছে বিসিবি...

  • ক্রিকেটারদের চাহিদামতোই ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ চলবে...

  • এমন সিদ্ধান্ত আগেই নেয়া হয়েছে...

  • চুক্তিভিত্তিক ক্রিকেটারের সংখ্যা বাংলাদেশেই সর্বোচ্চ

  • মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে আজ থেকে টেলিফোনের নতুন ও...

  • পুনঃসংযোগ ফি সম্পূর্ণ মওকুফ: টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

  • সীমানা পেরিয়ে বরগুনায় ভারতীয় জেলেদের ইলিশ শিকার; আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারি বাড়ানোর দাবি স্থানীয়দের।

  • সড়ক দুর্ঘটনা ঠেকাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে পুলিশের উদ্যোগ; বেপরোয়া গতি ও মাদকাসক্ত চালক ধরা পড়বে সহজেই।

  • শরীয়তপুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক সড়ক যেন মরণফাঁদ; চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা

  • ফের আলোচনায় ডাকসু জিএস রাব্বানী; এমফিলে ভর্তির বিষয়টি জানতো না সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ

শ্রমিক সংকটে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর

শ্রমিক সংকটে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর

শ্রমিক সংকটে ভুগছে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান শ্রমিকদের মজুরি ঠিকঠাক না মেটানোয় এই সংকট। নির্ধারিত চার্জের বাইরেও পণ্য খালাসের জন্য শ্রমিক বাবদ আমদানিকারকদের গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত টাকা। সমস্যার কথা স্বীকারও করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

ভোমরা বন্দরে প্রতিদিন আড়াইশ থেকে তিনশ ট্রাক পণ্য আসে ভারত থেকে। এই পণ্য খালাসের পর সরবরাহ করতে শ্রমিক প্রয়োজন দুই থেকে আড়াইহাজার। শ্রমিক মজুরি বাবদ ব্যবসায়ীরা টনপ্রতি ৫৪ টাকা চার্জ দেন বন্দর কর্তৃপক্ষকে।

নিয়ম অনুযায়ী পণ্য লোড-আনলোডের জন্য শ্রমিক সরবরাহের কথা বন্দর কর্তৃপক্ষ নিয়োজিত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ড্রপ কমিউনিকেশনের। তবে টাকা নিলেও, প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় শ্রমিক জোগান না দেয়ার অভিযোগ আমদানিকারকদের।

আমদানিকারকরা বলছেন, ৫৪.৫৮ টাকা টনপ্রতি আমরা বন্দর কর্তৃপক্ষকে চার্জ দেই, তারপরেও বন্দরের ঠিকাদাররা আমাদের শ্রমিক সরবরাহ করে না।

ভোমরা বন্দরের সি এন্ড এফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি মোস্তাফিজুর রহমান নাসিম বলেন, সরকার মনোনিত একজন শ্রমিক ঠিকাদার শ্রমিক না দিয়েই টাকা নিয়ে চলে যায়।

বন্দর কর্তৃপক্ষ টনপ্রতি চার্জ নিলেও, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান শ্রমিকদের মজুরি দেয় ট্রাকপ্রতি। শ্রমিক ও শ্রমিক সর্দাররাও বলছেন, এই টাকার পরিমাণ খুবই কম।

শ্রমিকরা বলছে, তারা ট্রাকপ্রতি মাত্র ২৬০ টাকা মজুরি পায়।

বন্দর কর্তৃপক্ষও জানেন এই সংকটের কথা।

সার্বিক অবস্থায় স্থল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান বলেন, সমস্যার সমাধানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

শ্রমিক সংকট প্রভাব ফেলতে পারে বন্দরের রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা পূরণেও।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর