channel 24

সর্বশেষ

  • তথ্য গোপন: ছাত্রলীগ নেতার জামিন বাতিল করলেন হাইকোর্ট

  • ট্রাম্পের কথিত শান্তি পরিকল্পনার বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভ

  • প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে গ্যাজপ্রমের প্রতিনিধি দলের সাক্ষাৎ

  • অবৈধভাবে বালু তোলার সময় ২টি ড্রেজার পুড়িয়ে দিয়েছেন ইউএনও

  • মাধবদীতে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ; টেঁটাবিদ্ধসহ আহত ৭

  • নোয়াখালীর সুবর্ণচরে এবার ধর্ষণের শিকার বাক-প্রতিবন্ধী শিশু

  • আড়ংয়ের চেঞ্জরুমে গোপনে ভিডিও ধারণ করার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি

  • কাশিয়ানীতে ট্রেনের ধাক্কায় ৩ মোটর সাইকেল আরোহী নিহত

  • তেল-গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলনে গ্যাজপ্রমের সঙ্গে চুক্তি করলো বাংলাদেশ

  • প্রশ্নফাঁস: ৬৩ শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত সিন্ডিকেটে অনুমোদন

  • বিএনপি বহিরাগত অস্ত্রধারীদের ঢাকায় জড়ো করছে: কাদের

  • পাল্টে যাচ্ছে নীলফামারীর ভূমির প্রকৃতি

  • তাপসের পাশে সাঈদ খোকন

  • 'আমাদের পার্টি' বলতে পুলিশ সদস্য নিজ বাহিনীকেই বুঝিয়েছেন: সিইসি

  • প্রকল্প বাস্তবায়নে যন্ত্রপাতি চালানোর দক্ষ কর্মী আছে কি না, লক্ষ্য রাখার নির্দেশ

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগ ও পদোন্নতিতে অভিন্ন নীতিমালা করতে চায় ইউজিসি

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগ ও পদোন্নতিতে অভিন্ন নীতিমালা করতে চায় ইউজিসি

দেশের স্বায়ত্তশাসিত এবং পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক নিয়োগ ও পদোন্নতির জন্য অভিন্ন নীতিমালা করার তোড়জোড় চলছে। যদিও শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের এই উদ্যোগের বিরুদ্ধে এক হয়ে লড়ার ঘোষণা দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ফোরাম। তবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) দাবি, এই নীতিমালা উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়নে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।

বিশ্ববিদ্যালয় ধারণাটার আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে মুক্তচিন্তা আর কাজের স্বাধীনতা। প্রাচীন তক্ষশীলা থেকে এ যুগের প্রথম সারির এমআইটি, স্ট্যানফোর্ড কিংবা হার্ভার্ডে উচ্চশিক্ষায় এই চর্চা চলছে।

১৯৭৩ সালে ঢাকা, জাহাঙ্গীরনগর, রাজশাহী ও চট্টগ্রাম এই চারটি বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার জন্য পাশ হয় একটি অধ্যাদেশ। যার মাধ্যমে দেয়া হয় স্বায়ত্তশাসন। পরে অন্যান্য সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য করা হয় আলাদা আইন।

ভিন্ন ভিন্ন আইনে চলা এই স্বায়ত্তশাসিত ও সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মানোন্নয়নের কথা বলে দুই বছর আগে কাজ শুরু হয় অভিন্ন নীতিমালা প্রণয়নের।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর প্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় আর বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) কাজ করছে নিয়োগ ও পদোন্নতি বিষয়ক সমন্বিত নীতিমালা তৈরির। এর খসড়ায় পাঠদান বা গবেষণার সময়কেও বেঁধে দেয়া হয় সুনির্দিষ্ট কর্মঘণ্টায়।

তবে শুরু থেকেই এর বিরোধিতা করে আসছেন শিক্ষকরা। তাদের দাবি, এতে স্বাতন্ত্র্য হারাবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো।

তবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সদস্য মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন, উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়নই এই নীতিমালার উদ্দেশ্য। যদিও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বা বুয়েটের মতো প্রথিতযশা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সাথে, নতুন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরদের মানের পার্থক্যের বিষয়টি স্বীকার করেন ইউজিসির এই সদস্য।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর