channel 24

সর্বশেষ

  • আবরার হত্যার আসামি নাজমুস সাদাত ৫ দিনের রিমান্ডে

  • ঋণ খেলাপিদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সিদ্ধান্ত সঠিক...

  • এ নিয়ে রিট গ্রহণযোগ্য নয়: হাইকোর্টকে অর্থ মন্ত্রণালয়

  • বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা: ২০ জনের জামিন; ৩ জন কারাগারে

  • রংপুরে পুলিশ হেফাজতে আসামির মৃত্যুর ঘটনায় ৫ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

  • সড়ক দুর্ঘটনা এড়াতে সবাইকে সচেতন হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী...

  • ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন..

  • ঢাকা-কুড়িগ্রাম আন্তনগর ট্রেন সার্ভিসের উদ্বোধন

  • আবরার হত্যা: চার্জশিট হওয়ার আগ পর্যন্ত একাডেমিক অসহযোগ থাকবে...

  • চার্জশিটের পর স্থায়ী বহিষ্কার সাপেক্ষে সিদ্ধান্ত: আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা...

  • তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের পর জড়িতদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত: বুয়েট ভিসি

  • মানবতাবিরোধী অপরাধ: এনএসআইয়ের সাবেক মহাপরিচালক...

  • ওয়াহিদুলের বিচার শুরু; সাক্ষ্যগ্রহণ ২৪ নভেম্বর

  • দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায়...

  • ২০ জনের জামিন মঞ্জুর; ৩ জনকে কারাগারে প্রেরণ

  • অবৈধ সম্পদ অর্জন: গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের...

  • প্রশাসনিক কর্মকর্তা ওবায়দুলসহ ৯ জনকে দুদকে তলব

  • রংপুরের পীরগঞ্জে আসামিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ...

  • এলাকাবাসীর বিক্ষোভ; পুলিশ দাবি আত্মহত্যা

২৯ বছরেও নিষ্পত্তি হয়নি লাখ লাখ টাকার যন্ত্রপাতি ডাকাতির মামলা

২৯ বছরেও নিষ্পত্তি হয়নি লাখ লাখ টাকার যন্ত্রপাতি ডাকাতির মামলা

২৯ বছর আগের তেজগাঁওয়ে বিএডিসির ডাকাতি মামলা। মারা গেছেন বাদীসহ কয়েকজন তদন্ত কর্মকর্তা। অথচ বিচারই এখনও শেষ হয়নি। আসামীদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নিয়েছিলেন ঢাকার আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে কর্মরত আলী ইমাম মজুমদার। যিনি পরবর্তীতে মন্ত্রিপরিষদ সচিব হয়ে অবসরে গিয়েছেন। সাক্ষ্য দিয়েছেন আরও দুই সচিবও। কবে নাগাদ শেষ হবে এ মামলা?

১৬ মে ১৯৯১। রাজধানীর তেজগাঁওয়ে বিএডিসির কেন্দ্রীয় সংরক্ষণাগারে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। লুট করা হয় লাখ লাখ টাকার যন্ত্রাংশ। এ ঘটনায় মামলা হয় পরদিনই।

এরপর কেটে গেছে ২৯ বছর, শেষ হয়নি মামলা। সবশেষ অবস্থা জানতে অনুসন্ধানে যায় চ্যানেল টুয়েন্টিফোরের লেন্স। দেখা গেলো ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে মামলাটির বিচার কাজ চলছে। নথি ঘেটে পাওয়া গেলো আরও মজার তথ্য। মামলার তদন্তেই পার হয়েছে দেড় যুগ। এরমধ্যে হাইকোর্টের আদেশে স্থগিত ছিলো ১৫ বছর।

এ মামলায় বদল হয়েছে চারজন তদন্ত কর্মকর্তা। মারা গেছে মামলার বাদীও। সবশেষ ২০১০ সালে ১১ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশীট দেয়া হয়। বিচার শুরু হয় ২০১১ সালে।

এরপরও পেরিয়ে গেছে ৮ বছর শেষ হয়নি বিচারকাজ। গেলো এপ্রিলে এ মামলায় সাক্ষ্য দিয়েছেন সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদারসহ তিন সচিব। এরা সবাই ঢাকা আদালতে ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে দায়িত্ব পালনের সময় গ্রেপ্তারকৃতদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নিয়েছিলেন।

এ মামলায় আসামীপক্ষের আইনজীবীরাও এখন ক্লান্ত । কবে নাগাদ মামলা শেষ হবে জানেন না তারাও।

রাষ্ট্রপক্ষ আশা করছে এ বছর এ মামলাটি শেষ করবেন। তবে আদৌ পারবেন কি-না তা সময়েই বলে দেবে।

নিউজটির বিস্তারিত ভিডিও প্রতিবেদন-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর