channel 24

সর্বশেষ

  • এসএ গেমস: নেপালের কাছে ১-০ গোলে হেরে...

  • ফাইনালে যাওয়া হলো না বাংলাদেশের

  • বঙ্গবন্ধু বিপিএল-২০১৯ এর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  • বিএনপির নেতৃত্ব অস্তিত্ব সংকটে, পরিণত হবে মুসলিম লীগের মতো: কাদের

  • মাত্রা কমলেও ঘুষ যে নেই অস্বীকার করা যাবে না: দুদক চেয়ারম্যান

  • এনটিভির ভিডিও এডিটর আতিক হত্যা মামলায়...

  • একজনের মৃত্যুদণ্ড ও ২ জনের যাবজ্জীবন বহাল

  • সিরাজগঞ্জে সরকারি কলেজের বিজয় র‍্যালি ঘিরে আ.লীগ-বিএনপির সংঘর্ষ

  • রংপুরের বোতলায় অন্তঃসত্ত্বা মা ও ২ সন্তানের মরদেহ উদ্ধার...

  • পুলিশের দাবি শ্বাসরোধ করে হত্যা; স্বামী আটক, হত্যার দায় স্বীকার

  • এসএ গেমস: আর্চারিতে দলগত ৩ ইভেন্টে বাংলাদেশের স্বর্ণ জয়

  • এসএ গেমসে আজ নেপালকে হারাতে পারলে...

  • ফুটবলারদের ৪০ হাজার ডলার বোনাস দেবে ফুটবল ফেডারেশন

  • নারী ক্রিকেট: শ্রীলঙ্কাকে ২ রানে হারিয়ে স্বর্ণ জিতেছে বাংলাদেশ...

  • স্কোর: বাংলাদেশ ৯১/৮, শ্রীলঙ্কা ৮৯/৯ (নাহিদা ২/৯)

১৭ বছর পর ভাঙলো ভুল, কারাগারেই আবারও বিয়ে

১৭ বছর পর ভাঙলো ভুল, কারাগারেই আবারও বিয়ে

বিয়ে করেছিলেন। সন্তানও হয়েছিলো। কিন্তু পরিবারের চাপে স্ত্রী ও সন্তানের স্বীকৃতি দেননি স্বামী। অবশেষে ধর্ষণ মামলায় কারাগারে। কিন্তু ১৭ বছর পর ভুল ভাঙে পরিবারের। নজিরবিহীন এক আদেশে, মানবিকতার বিবেচনায় আপিল বিভাগ জামিন দেন কারাবন্দি ইসলামকে। শুধু তাই নয়, কারাগারে ফের বিয়েও হয় ওই দম্পতির।

ভূলের মাশুলে সতের বছর কারাবাস। অত:পর মুক্তির আকাংখায় দেশের সর্বোচ্চ আদালতে। যে ঘটনার শুরু ২ হাজার সালের ফেব্রয়ারিতে।

ঝিনাইদহ জেলার বাসিন্দা ইসলাম আর মালা অনেকটা নিজেদের পছন্দে বিয়ে করেছিলেন। তবে মালার পরিবার মানলেও ইসলামের পরিবার তা মানেনি। মানেনি মো. ইসলামও। বিয়ে অস্বিকার করে মেয়ের পরিবারের পক্ষ থেকে ধর্ষন মামলায় জেলে যেতে হয় ইসলামকে। ইসলাম যখন জেলে মালার কোল জুড়ে আসে এক পুত্র সন্তান। ক্ষোভের বশে সন্তাকে অস্বিকার করে বসে খোদ জন্মদাতা পিতা। এভাবেই ইসালামের জেলে কেটে যায় সতের বছর।

অত:পর বোধদয় দুই পরিবারের। সবার সম্মতিতে আবার ইসলামকে মুক্ত করতে এক হয় সর্দার আর মৃধা পরিবার।

আপিল বিভাগেও যাবজ্জীবন সাজা বহাল থাকে। দুই পরিবারের সম্মতিতে ৩১ জুলাই যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে আবারও বিয়ে হয় মালা ও ইসলামের। যার কাবিননামা বৃহস্পতিবার দেশের সর্ব্বোচ্চ আদালতেও দাখিল করা হয়। আপিল বিভাগ নজিরবিহীন সেই মামলায় যাবজ্জীবন প্রাপ্ত ইসলামকে ১ মাসের জামিন দিয়েছেন। দুই পরিবারকে একটি বিয়ের অনুষ্ঠান করতে বলা হয়েছে। আপিল বিভাগে তৈরী হয় এক আবেগঘন দৃশ্যের। আপিল বিভাগ বলেন মানবিক দিক বিবেচনায় ইসলামকে জামিন দেয়া হলো। তবে তার সাজা কমবে কি না। তা একমাস পর জানা যাবে।

১৯ বছর পর এসে ইসলামের বাবা কাশেম আলী মৃধা বলছেন, তার ভুলেই তার ছেলে ১৭ বছর ধরে জেলে আছেন।

যেই সন্তানকে ঘিরে এত মান অভিমান। সেই সন্তান এখন প্রায় ২০ বছরের টগবগে যুবক। যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রায় নিজের বাবাকে খাওয়াতে ভাত নিয়ে হাজির হোন। বাবা ছেলের মান অভিমান পর্বও ভেঙ্গেছে অনেক আগে। শুধু জেল জীবনটা পার হয়নি বাবার।

আপিল বিভাগের আদেশে খুশি মালা বেগমও। তিনি বলছেন, ইসলামের জন্য তিনি আর বিয়েও করেননি।

জণাকীর্ণ আদালতে যখন মামলাটির শুনানি হয় তখন অনেক জ্যেষ্ঠ আইনজীবীও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। সবার কন্ঠে একই সুর এমন অদ্ভুত মামলা তারা আর কখনো দেখেননি।

নিউজটির ভিডিও প্রতিবেদন-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর