channel 24

সর্বশেষ

  • ‌আখেরি মোনাজাতে শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব

  • ঢাকা সিটি নির্বাচন: ইসির অযোগ্যতায় তারিখ বিভ্রাট: ফখরুল...

  • ভোটের তারিখ যেদিনই হোক, আমরা প্রস্তুত: তাবিথ...

  • নির্বাচন পেছানোর মাধ্যমে জনদাবির বিজয় হয়েছে: ইশরাক...

  • নির্বাচিত হলে ঢাকাকে আধুনিক নগরী গড়ে তোলা হবে: আতিক

  • নাইমুল আবরারের মৃত্যু: হাইকোর্টে প্রথম আলো সম্পাদক...

  • মতিউর রহমানসহ ৬ জনের আগাম জামিন আবেদন...

  • আদালতের বিষয়, গণমাধ্যমের স্বাধীনতার সাথে সম্পৃক্ত নয়: তথ্যমন্ত্রী

  • তথ্যপাচার ও ঘুষ লেনদেন: পুলিশের ডিআইজি মিজান ও...

  • দুদক পরিচালক এনামুল বাছিরের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট

  • রিফাত হত্যা: আসামি রাকিবুলকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট

  • মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার পাল্লাতল চা বাগানে...

  • একই পরিবারের তিন নারীসহ ৫ জনকে হত্যা...

  • পারিবারিক কলহের জেরে এ ঘটনা, ধারণা পুলিশের

চন্দ্র বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তি

চন্দ্র বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তি

চাঁদ কারো কাছে মামা আবার কারো প্রিয়তমাকে মনে করার উপলক্ষ্য কারও বা কবিতার অনুষঙ্গ। তবে বিজ্ঞানের ভাষায় পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ। মানুষের চন্দ্র বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তি আজ। যদিও এই উপগ্রহটিতে মানবের পা রাখা নিয়ে এখনও আছে জোর বিতর্ক। কিন্তু তাতে দমবার পাত্র নন বিজ্ঞানীরা। দেশের সৌখিন জ্যোতির্বিদরা বলছেন, মনোযোগ আকর্ষণের জন্য বিতর্ক ছড়ানো হয়েছে।

১৯৬৯ সালের ১৬ জুলাই বিশ্বের ইতিহাসে ঘটে যুগান্তকারী এক ঘটনা। অ্যাপোলো-১১ তে চড়ে চাঁদের বুকে পাড়ি দেন তিন দুঃসাহসী অভিযাত্রী নিল আর্মস্ট্রং, এডউইন অলড্রিন ও মাইকেল কলিন্স।

২০ জুলাই চাঁদের বুকে হেঁটে ইতিহাসে অমর হয়ে যান নিল আর্মস্ট্রং ও এডউইন অলড্রিন। টিভিতে এ ঘটনার সাক্ষী হন বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ। তবে এ ঘটনাকে এখনও ধাপ্পাবাজি মনে করেন অনেকে।

গত ৫০ বছর ধরে বিষয়টিকে ভুয়া প্রমাণে নানা প্রশ্নও রেখেছেন তারা। বিশেষ করে, ১৯৭৬ সালে সাংবাদিক বিল কেসিংয়ের বই 'উই নেভার ওয়েন্ট টু মুন: আমেরিকাস থার্টি বিলিয়ন ডলার সুইন্ডল' প্রকাশের পর এ সব অভিযোগের পালে আরও জোরে হাওয়া লাগে। যদিও সেসবের জবাবও দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

যেমন- চাঁদে বাতাস না থাকার পরও ছবিতে মার্কিন পতাকা উড়তে থাকা। জবাবে বিজ্ঞানীরা বলছেন, পতাকা কুঁচকে থাকায় উড়ছে মনে হয়েছে। চাঁদে যদি আসলেই মানুষ গিয়ে থাকে তবে এখন আর যায় না কেন? এমন প্রশ্নের উত্তর তারা বলছে, সেসময় স্নায়ুযুদ্ধের কারণে সোভিয়েত রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের জন্য চন্দ্রাভিযান ছিল গুরুত্বপূর্ণ।

চাঁদের প্রকাশিত ছবিতে তারা না দেখার অভিযোগের জবাবে বলা হয়েছে, চাঁদের আকাশে তারার আলো খুবই দুর্বল এবং মানুষের পায়ের ছাপের ছবি স্পষ্ট করতে ক্যামেরার এক্সপোজার টাইমও ছিল বেশি।

চাঁদে বাতাস না থাকা সত্ত্বেও মার্কিন পতাকা উড়লো কী করে এমন প্রশ্নের উত্তরে বৈজ্ঞানিক যুক্তিতে বলা হয়, বিজ্ঞানীরা বলছেন, পতাকা লাগানোর সময় তা কুঁচকে যাওয়ায় সেরকমই থেকে গিয়েছে কেননা, পৃথিবীর তুলনায় চাঁদের মধ্যাকর্ষণ শক্তি ৬ গুণ কম।

অনেকের প্রশ্ন, ছবিতে চাঁদের আকাশে কেন তারা দেখা যাচ্ছে না? বৈজ্ঞানিক যুক্তি বলছে, ক্যামেরার এক্সপোজার এমনভাবে রাখা হয়েছে যাতে পৃষ্ঠের ছবি স্পষ্ট থাকে। চাঁদে কোনো আদ্রর্তা না থাকায় নভোচারীরা যে পায়ের ছাপ রেখে এসেছিলেন সেটি নিয়েও প্রশ্ন অনেকের। এর পেছনের ব্যাখ্যা বলছে, চাঁদের মাটির কণা যেহেতু একটার সাথে একটা লেগে থাকে তাই জুতোর ছাপ পড়ার পর সেটি সেভাবেই থেকে যায়। আর সেখানে বাতাস না থাকায় এই পায়ের ছাপ থেকে যাবে লক্ষ লক্ষ বছর।

বাংলাদেশের সৌখিন জ্যোতির্বিদদের মতে, মানুষের মনোযোগ আকর্ষণেই এ সব অভিযোগের উৎপত্তি। শুধু নিল আর্মস্ট্রং ও এডউইন অলড্রিন নন, এ পর্যন্ত ১২ জন মানুষ চাঁদের বুকে পা রেখেছেন। ২০২৪ সালের মধ্যে আবারও চাঁদের বুকে মানব পদচিহ্ন আঁকতে কাজ করছেন নাসার বিজ্ঞানীরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর