channel 24

সর্বশেষ

  • অ্যালকোহল কারখানার বর্জ্যে দূষিত হচ্ছে নদীর পানি; হুমকিতে মাছসহ জলজ প্রাণী

  • অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রধান পিআরও কর্মকর্তার ইন্তেকাল

  • জ্বর ও সর্দি-কাশি নিয়ে আজও প্রাণ গেলো ৯ জনের

  • যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জো বাইডেনের মনোনয়ন নিশ্চিত

  • 'পোশাক কারখানার শ্রমিক ছাঁটাইয়ের কথা বলেননি বিজিএমইএ সভাপতি'

  • সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসকসহ ২৭৭ কর্মকর্তা-কর্মচারী বেতন পান না দু'মাস

  • ঢাকাতে করোনা নিয়ে 'দ্য ইকোনমিস্টের' তথ্য সঠিক নয়: স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়

  • শ'খানেক কর্মহীন পরিবার রাঁধেন এক হাঁড়িতে, পতিত জমিতে ফলান সবজি

  • ডিপ কোমায় সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম

  • পাবনায় ২ জনকে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা

  • গণপরিবহন চালুর ষষ্ঠ দিনেও তুলনামূলক যাত্রী কম রাজধানীতে

  • কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার প্রতিবাদে এখনও অগ্নিগর্ভ যুক্তরাষ্ট্র

  • ক্রিকেট বোর্ডের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন, ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত অনুশীলনের অনুমতি

  • পাকিস্তানি নারী ক্রিকেট দলের কোচ বরখাস্ত

  • জার্মান লিগে রাতে আলাদা ম্যাচে নামছে বায়ার্ন-ডর্টমুন্ড

হলি আর্টিজান হামলা: এখনও স্বজনদের তাড়া করে ফেরে সেই রাতের ভয়াবহতা

হলি আর্টিজান হামলা: এখনও স্বজনদের তাড়া করে ফেরে সেই রাতের ভয়াবহতা

২০১৬ সালের পয়লা জুলাই, রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে হয় দেশের ইতিহাসে ভয়াবহতম জঙ্গি হামলা। প্রিয়জন হারানোর কষ্ট এখনও পোড়ায় স্বজনের হৃদয়। আর বেঁচে ফেরাদের তাড়া করে ফেরে সেই রাতের ভয়াবহতা।

প্রাণবন্ত তরুণী অবিন্তা কবির এখন শুধুই ছবির ফ্রেমে বন্দি। তিন বছর আগে প্রাণ হারান হলি আর্টিজানে ভয়াবহ জঙ্গি হামলায়।

বাবা-মার একমাত্র সন্তান অবিন্তা ছোটবেলা থেকেই জড়িত ছিলেন নানা সামাজিক কর্মকাণ্ডে, পাশে দাঁড়িয়েছেন অস্বচ্ছল শিশুদের। এখন অবিন্তার অসমাপ্ত সেইসব কাজ করছে তার পরিবার। অবিন্তা কবিরের নামে ফাউন্ডেশন গঠন করে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য চালু করা হয়েছে স্কুল।

অবিন্তার নানী নিলু রওশন মুরশেদ জানান, উৎসব আনন্দ এখন ফিকে তাদের জীবনে। প্রতিনিয়ত হৃদয়ে হয় রক্ত ক্ষরণ।

এমন আরও অনেক পরিবার প্রিয়জনকে হারিয়েছিলেন ২০১৬ সালের ১ জুলাই গুলশানে হলিআর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায়। তবে ভাগ্য জোরে বেঁচে ফেরেন কেউ কেউ। তাদেরই একজন রকি। নিজের চোখে দেখা সেই দিনের ঘটনা এখনও তাড়া করে ফেরে তাকে।

ভয়াবহ সেই জঙ্গি হামলার স্বাক্ষী হয়ে ঠায় দাঁড়িয়ে আছে হলি আর্টিজান ব্যাকারির ভবনটি। সেদিন দেশি বিদেশী নাগরিকসহ নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিলো ২২ জনকে। জিম্মি করে রাখা হয়েছিলো অনেকেই। সেই দু:সহ স্মৃতি এখনও তাড়া করে ফেরে বেঁচে ফেরাদের। স্বজন ও প্রত্যক্ষদর্শীদের একটাই কথা, এমন নির্মম মৃত্যু আর দেখতে চান না তারা।

ভিডিওতে নিউজটির বিস্তারিত-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর