channel 24

সর্বশেষ

  • কক্সবাজারকে দেশের প্রথম রেড জোন ঘোষণা

  • ঢাকাতেই করোনা আক্রান্ত সাড়ে ৭ লাখের বেশি: দ্য ইকোনমিস্ট

  • টর্নেডোর তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চার গ্রাম, নিহত ১

  • রংপুরে বিভিন্ন মসজিদের নামে সরকারি বরাদ্দের টাকা আত্মসাৎ

  • আবহওয়া অনুকূলে থাকায় ব্রাক্ষণবাড়িয়ায় লিচুর বাম্পার ফলন

  • বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও গ্যাস অনুসন্ধানে আগ্রহী সরকার

  • বাজেটে কর অবকাশ সুবিধা চান ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প সংশ্লিষ্টরা

  • করোনায় জীবনের মায়া ভুলে সেবা দিয়েও ৫ মাস বেতনহীন

  • সব সংকটে শক্ত হালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  • করোনা চিকিৎসা: 'আমরা চাই না হাসপাতালটি বন্ধ হোক'

  • যুক্তরাষ্ট্রে বিমান দুর্ঘটনা, দুই শিশুসহ নিহত ৫

  • সাবেক মেয়র কামরান করোনায় আক্রান্ত

  • করোনায় মৃতের সংখ্যায় তৃতীয় স্থানে ব্রাজিল; প্রতি মিনিটে এক জনের মৃত্যু

  • জর্জ ফ্লয়েড হত্যায় যুক্তরাষ্ট্রসহ প্রতিবাদ চলছে পুরো বিশ্বে

  • বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভে হাঁটু গেড়ে সংহতি জানালেন ট্রুডো

হাইকোর্টের নির্দেশে ৩০ বছর আগের হত্যা মামলা ২৮ বছর ধরে স্থগিত

হাইকোর্টের নির্দেশে ৩০ বছর আগের হত্যা মামলা ২৮ বছর ধরে স্থগিত

রাজধানীর ভিকারুন নূন নিসা স্কুলের ৮ বছরের শিশু সাহারাত অপেক্ষায় ছিলো মায়ের। কিন্তু বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা আসেননি মা। ছোট্ট শিশু মায়ের দেখা পেয়েছিল, হাসপাতালের মর্গে। ছিনতাইকারীর গুলিতে নিহত হন তিনি। ছোট্ট সেই সাহারাত এখন নিজেই মা। কিন্তু ৩০ বছর আগের সেই ঘটনার বিচার পাননি তিনি। হাইকোর্টের এক আদেশে আটকে আছে পুরো প্রক্রিয়া। আশার কথা পুনরায় মামলার শুনানি শুরু হবে আগামী সপ্তাহে।

সাল ১৯৮৯, সময় বিকাল ৫.১০, রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী এলাকা। প্রতিদিনের মত মেয়ে সাহারাতকে ভিকারুন্নিসা নুন স্কুল থেকে আনতে যাচ্ছিলেন মা সাগিরা মোর্শেদ সালাম।

কিন্তু স্কুলে পৌছানোর আগেই ছিনতাইকারীরা তার স্বর্ণের চেন ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। তিনি বাধা দিতে চাইলে সেখানেই তাকে পেছন থেকে গুলি করা হয়। পরে হাসপাতালে মারা যান সাগিরা মোর্শেদ। ঐ রাতেই অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন তার স্বামী আবদুস সালাম।  

সেদিন ছিনতাইকারী একাধিক থাকলেও ১৯৯০ সালে এ মামলার চার্জশীট দেয়া হয় একজনের বিরুদ্ধে। দুজন সাক্ষী জানান, সাবেক স্বৈরশাসক এরশাদ সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদুল হাসানের ভাতিজা এ মামলার সাথে সরাসরি জড়িত। ঘুরে যায় মামলার পুরো দৃশ্যপট। সেই থেকে শুরু, এখন পর্যন্ত  এ মামলাটি ২৮ বছরে আর এক ইঞ্চিও আগায়নি। মামলার তদন্তের বিষয়টি সম্প্রতি রাষ্ট্রপক্ষকে জানান ডিবির কর্মকর্তা। পরে হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রারের সঙ্গে যোগাযোগ করে উদ্ধার করা হয় পুরো মামলার নথি।  

চ্যানেল টোয়েন্টিফোর এবার নামে সাগিরা মোর্শেদ সালমার পরিবারের সন্ধানে। রাজধানীর আউটার সার্কুলার রোডে তাদের বাসার ঠিকানা খুঁজে পেতে বেশ বেগ পেতে হলো। তবে সেখানে গিয়ে কাউকে পাওয়া গেল না। দুই সন্তান থাকেন দেশের বাইরে। পাওয়া গেলো বাদীর ভাই ডাক্তার হাসান আলীকে। পুরো ঘটনাটি মনে করতে পারলেও মামলার সবশেষ অগ্রগতি নিয়ে কিছই জানেন না তিনি।  

১৯৯১ সালে হাইকোর্টের যে বেঞ্চ এ মামলার তদন্ত স্থগিত করেছিলেন সেই বিচারপতি দুজনই মারা গেছেন অনেক আগেই। আশার কথা দীর্ঘ ২৮ বছর পর মামলাটির আবারও শুনানি শুরু হবে আগামী সপ্তাহে।

নিউজটির ভিডিও-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর