channel 24

সর্বশেষ

  • মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়া হলেও ধ্বংস হয়েছে বন...

  • বৃক্ষমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা...

  • পরিবেশ দূষণ রোধে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহবান

  • চট্টগ্রাম থেকে নিখোঁজের ১১ দিন পর বনানীর বাসায় পৌঁছেছেন...

  • সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজের ভাগনে সৌরভ

  • জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার নথি প্রস্তুত...

  • আজ হাইকোর্টে আসার সম্ভাবনা, রোববার জামিন আবেদন: জয়নুল আবেদীন

  • নুসরাত হত্যা: আদালতে হাজির করা হয়েছে ১৬ আসামিকে

  • পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক নিহতের ঘটনায় তদন্ত কাজ শুরু...

  • ৭ কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ জেলা প্রশাসকের

  • বিশ্বকাপ: বিকাল সাড়ে ৩টায় অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি বাংলাদেশ

শান্তিরক্ষা মিশনে পুরুষের সাথে সমান তালে এগিয়ে বাংলাদেশের নারী

শান্তিরক্ষা মিশনে পুরুষের সাথে সমান তালে এগিয়ে বাংলাদেশের নারী

শান্তিরক্ষা মিশনে পুরুষের সাথে সমান তালে এগিয়ে বাংলাদেশের নারীরাও। দুই দশক আগে মাত্র ৫ জন নারী সদস্য নিয়ে যাত্রা শুরু করা এই বহরে এখন শুধু সেনাবাহিনীরই আছেন তিন শতাধিক নারী। যদিও আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠায় নিবেদিত এই নারীর সংখ্যা এখনও পুরুষের তুলনায় অনেক কম। তাই ভবিষ্যতে এই সংখ্যা মোট সদস্যের অন্তত ২৫ ভাগ করতে চায় জাতিসংঘ।

৮০ দশকের শেষের দিকে বাংলাদেশ শান্তিরক্ষা মিশনে নাম লেখালেও নারীদের অংশগ্রহণে সময় লাগে আরো এক যুগ।

২০০০ সালে ৫ জনের একটি নারী প্রতিনিধিদল প্রথমবারের মতো শান্তির বার্তা নিয়ে যায় পূর্ব তিমুরে। এরও এক দশক পর ২০১০ সালে কঙ্গো মিশনে যান পুলিশের ৮১ জন নারী সদস্য।  

গেলো ২ দশকে বিভিন্ন দেশে মিশন করেছেন দেড় হাজারের বেশি বাংলাদেশি নারী। বাহিনী বিচারে এ তালিকায় ২য় সেনাবাহিনী। বর্তমানে বিভিন্ন দেশে নিয়োজিত আছেন বাহিনীর ৬৮ জন নারী অফিসার। পুরুষদের পাশপাশি শান্তি প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখছেন তারাও।

কেবল দাপ্তরিক কিংবা সামাজিক কাজ নয় নেতৃত্বের গুণাবলীতেও ভাস্বর বাংলাদেশের নারীরা। এ যাবৎ জাতিসংঘে ৩টি মেডিকেল কোরের কন্টিনজেন্ট কমান্ডারও ছিলেন নারী সেনা কর্মকর্তা।

সদ্য মিশন শেষ করা (মেজর সানিয়া, মেজর রিফাত) এ দুই নারীই মনে করেন শান্তিরক্ষা মিশনে নারীর অংশগ্রহণ বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে আরো। স্বপ্ন দেখেন জাতিসংঘ মিশনের উচ্চপদগুলোতেও একদিন আলো ছড়াবেন বাংলার নারীরা।

এতোদিন সেনাবাহিনীর নারী অফিসারদেরই কেবল মিশনের সুযোগ থাকলেও সম্প্রতি এ তালিকায় যুক্ত হয়েছেন নারী সৈনিকরাও। প্রথম ধাপে ৩১১ জনকে পাঠানো হয়েছে বিভিন্ন মিশনে।

এক কর্মকর্তার আশা, ২০২৮ সালের মধ্যে শান্তিরক্ষা মিশনে ২৫ শতাংশ নারী সদস্য নিশ্চিতে জাতিসংঘের যে লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে তা বাস্তবায়নে সফল হবে বাংলাদেশ।

ভিডিওতে শান্তিরক্ষা মিশনের প্রতিবেদন-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর