channel 24

সর্বশেষ

  • খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে আন্তর্জাতিক মহলকে অবহিত করা হবে: ফখরুল

  • বকেয়া পরিশোধ না হলে চামড়া বিক্রি বন্ধ: আড়তদার সমিতি

  • ধ্বংসাত্মক রাজনীতির কারণে ভুলের চোরাবালিতে বিএনপি: ওবায়দুল কাদের

  • ভারতের নয়াদিল্লিতে অল ইন্ডিয়া মেডিকেল ইনস্টিটিউটের আগুন নিয়ন্ত্রণে

  • অবসর বিষয়ে মাশরাফীর সিদ্ধান্ত দুই মাস পর: বিসিবি সভাপতি

  • ক্রিকেট দলের নতুন হেড কোচ দক্ষিণ আফ্রিকার রাসেল ক্রেগ ডোমিঙ্গো...

  • দায়িত্ব নেবেন ২১ আগস্ট, চুক্তি দুই বছরের: বিসিবি সভাপতি

  • গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ভর্তি ১ হাজার ৪শ' ৬০: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

  • ডেঙ্গুতে ঢাকা মেডিকেলে নারী ও ফরিদপুর মেডিকেলে কলেজছাত্রের মৃত্যু

  • ডেঙ্গু প্রতিরোধ: ঢাকা উত্তরের প্রতিটি ওয়ার্ডকে...

  • ১০ ভাগে ভাগ করে চিরুনি অভিযান: মেয়র আতিকুল

  • ঢাকাকে হংকং, সিঙ্গাপুর বানানোর ঘোষণা স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর

  • বকেয়া পরিশোধ না করায় ট্যানারিতে আপাতত...

  • চামড়া না দেয়ার ঘোষণা পোস্তার আড়তদারদের...

  • কাল সরকারের সাথে বৈঠকের পর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত...

  • চামড়া বিক্রি করা না করা তাদের নিজস্ব ব্যাপার...

  • বকেয়া পরিশোধ হবে কেস টু কেস ভিত্তিতে: ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশন

  • সুপরিকল্পিতভাবে রাজনীতিকে শূন্য করার চক্রান্ত চালাচ্ছে সরকার: ফখরুল

  • কলকাতায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশি নিহত

পাকস্থলিতে করে হাজার হাজার ইয়াবা পাচার

পাকস্থলিতে করে হাজার হাজার ইয়াবা পাচার

চোরাচালানের মূলকেন্দ্র টেকনাফ থেকে সারা দেশে ইয়াবা পাচার হচ্ছে নানা কৌশলে। তার একটি পাকস্থলিতে ইয়াবা বহন। বিভিন্ন উপায়ে খাওয়ার পর, হাজার হাজার ইয়াবা নিয়ে যাওয়া হচ্ছে গন্তব্যে। শনাক্ত করার যন্ত্র নেই বলে সড়ক ও আকাশ পথে ছোট চালানের জন্য এই কৌশলই বেশি কাজে লাগাচ্ছে পাচারকারীরা। অনুসন্ধানে এমন একটি চক্রের সন্ধান পেয়েছে চ্যানেল টোয়েন্টিফোর।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানের মুখে নিয়মিতই পরিবর্তন হচ্ছে ইয়াবা কৌশল। তার একটি, পেটের ভিতরে ঢুকিয়ে বিভিন্নস্থানে পৌঁছে দেয়া।

অনুসন্ধানে তথ্য মিলেছে, টেকনাফ হয়ে ইয়াবা আসার পর তা কক্সবাজার থেকে নতুন এই কৌশলে দেশের বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে যায় অনেকে। বেশ কয়েকদিন চেষ্টার পর এমন একজনের আস্তানায় পৌছাতে সক্ষম হয় চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের টিম।  

এই ইয়াবা পাচারকারী জানান, পাকস্থলিতে ইয়াবা শনাক্তের কোন পদ্ধতি নেই। তাই ঝুঁকিপূর্ণ হলেও এই কৌশলকেই এখন বেশি নিরাপদ মনে করছেন তারা। তাতে একজন নিতে পারে সর্বোচ্চ সাত হাজার ইয়াবা। এজন্য সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত পেয়ে থাকে বাহকরা।

নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌছানোর পর তা বের করা হয় পেট থেকে। তবে প্রয়োজন পড়েনা অস্ত্রোপচারের।  

কক্সবাজার থেকে এভাবে ইয়াবা যাচ্ছে সড়ক এবং আকাশ পথে। বিষয়টি জানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও। তাই এভাবে ইয়াবা পাচার ঠেকাতে কিছু কৌশল প্রয়োগের কথা জানালেন পুলিশের এক কর্মকর্তা।

পেটের ভিতরে করে ইয়াবা পাচারে জড়িতদের একটি বড় অংশই রোহিঙ্গা বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তারা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর