channel 24

সর্বশেষ

  • কমলাপুর স্টেশনে ট্রেনের বগি থেকে নারীর মরদেহ উদ্ধার

  • ২২ তারিখের বৈঠকে বকেয়া বিষয়ে সিদ্ধান্ত: ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশন...

  • পাওনা পরিশোধের নির্দেশনা না এলে...

  • তৈরি হবে অচলাবস্থা: হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন

  • জাতীয় স্কুল মিল নীতিমালার খসড়া মন্ত্রিসভায় অনুমোদন...

  • প্রাথমিকে মোট ক্যালরির ৩০ ভাগ পূরণ করতে হবে স্কুলকে

  • নকশা জালিয়াতি: বনানীর এফ আর টাওয়ারের মালিক ফারুক গ্রেপ্তার

  • খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে না পেরে বিদেশে নালিশ করছে বিএনপি: সেতুমন্ত্রী

  • ডেঙ্গু: ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ১,৬১৫ জন: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

  • ঢাকা, বরিশাল, খুলনা, ফরিদপুর ও ময়মনসিংহে ৬ জনের মৃত্যু

  • বঙ্গবন্ধু হত্যায় জিয়া নয়, আ.লীগের লোকজন জড়িত: ফখরুল

  • জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা ভিপি নুরের

  • নবম ওয়েজ বোর্ড নিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের ওপর আদেশ কাল...

  • সাংবাদিক ছাড়া গণমাধ্যম মালিকদের অস্তিত্ব নেই: আপিল বিভাগ

  • খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কার্যালয়ে দুদকের অভিযান চলছে

  • তিন দিনের সফরে রাতে ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

দশ বছরে ঢাকার তাপমাত্রা বেড়েছে ৫ থেকে ৭ ডিগ্রি

দশ বছরে ঢাকার তাপমাত্রা বেড়েছে ৫ থেকে ৭ ডিগ্রি

১০ বছরের ব্যবধানে ঢাকার তাপমাত্রা বেড়েছে ৫ থেকে ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গড় তাপমাত্রা ছাড়িয়েছে ৩৩ থেকে ৩৫ ডিগ্রি। শুধু তাই নয়, যে কোনো বিভাগীয় ও জেলা শহরের চেয়ে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বেশি এই শহরে। তাপমাত্রার পারদের এই ঊর্ধ্বমুখিতার প্রভাব সরাসরি পড়ছে ব্যক্তিজীবনে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রকৃতির এই বাড়াবাড়ির জন্য দায়ী মানুষ নিজেই।

ঠাস বুনটের শহর রাজধানী ঢাকা। ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে সবুজ, নিঃশেষ হচ্ছে জলাধার। গত এক দশকে রাজউকের ডিটেইলড এরিয়া প্ল্যানের (ড্যাপ) আওতাভুক্ত ২২ শতাংশ জলাশয় ভরাট হয়েছে। জায়গা করে নিয়েছে ইট আর কংক্রিট।

বছর দশেক আগেও, গ্রীষ্মের এই সময়ে, ঢাকার গড় তাপমাত্রা থাকতো ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে। এখন তা ঠেকেছে ৩৫ ডিগ্রী সেলসিয়াসের উপরে।

    সাল                                           তাপমাত্রা                      
১৯৯১-২০০০                             ২৭.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস
২০০১-২০১০                              ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস
মে, ২০১৯                                  ৩৩-৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপরে

প্রকৃতির এই উঞ্ষতায় নাগরিক কোলাহল যখন ভীষণরকম হাঁসফাস এমন সময় ক্লান্তমন চায় একচিলতে ছায়া, আর বিশুদ্ধ শীতল বাতাস। তবে প্রিয় শহর এই ঢাকা যখন, ঢাকা থাকে কংক্রিটে তখন স্বস্তির সেই একটুকরো আশাও বলে হতাশার গল্প।

তাপমাত্রার এই লাগামহীন বৃদ্ধির জন্য গবেষকরা দায়ী করছেন কংক্রিট আর কাঁচে ঢাকা ভবন বেড়ে যাওয়াকে।

গাছপালা না থাকায় ঘাটতি দেখা দিচ্ছে বাতাসে অক্সিজেনের পরিমাণেও। যার প্রভাব পড়ছে মানুষের আচার আচরণে।

এই যখন অবস্থা, তখন এর প্রতিকারে স্থপতিরা দিচ্ছেন কিছু সমাধান। এর মধ্যে যেমন রয়েছে ভবনগুলোর ছাদ কিংবা বেলকোনিতে সবুজায়ন। তেমনি বিল্ডিং কোডে পরিবর্তনের মতো বিষয়ও।

একটি সুস্থ পরিবেশে আগামীর প্রজন্মকে বেড়ে ওঠার সুযোগ করে দিতে দায়িত্ব নিতে হবে এই তিলোত্তমার নাগরিকদেরকেই।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর