channel 24

সর্বশেষ

  • রাষ্ট্রীয় ব্যস্ততার কারণেই ভারত যাননি স্বরাষ্ট্র-পররাষ্ট্রমন্ত্রী: কাদের

  • খালেদা জিয়াকে জামিন না দেয়ার সিদ্ধান্ত আদালতের নয়, সরকারের: রিজভী

  • কেরাণীগঞ্জের প্লাস্টিক কারখানার অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ আরও ১০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক

  • ব্রিটেনের নির্বাচনে টিউলিপসহ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ৪ নারীর জয়

  • যুক্তরাজ্যে নির্বাচনে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেল কনজারভেটিভ পার্টি

মধ্যপ্রাচ্যে আইএসের অবসান, জঙ্গিদের দেশে ফেরার সুযোগ নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মধ্যপ্রাচ্যে আইএসের অবসান, জঙ্গিদের দেশে ফেরার সুযোগ নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মধ্যপ্রাচ্যে আইএসের কথিত খেলাফতের অবসানের পর, নিজ দেশে ফিরতে চাইছে, জঙ্গিগোষ্ঠীটির সদস্য ও তাদের স্ত্রী-সন্তানরা। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলছেন, তাদের এমন সুযোগ দিলে, হুমকিতে পড়তে পারে, জাতীয় নিরাপত্তা। তবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের সাফ জবাব, সে সুযোগ নেই।

সিরিয়া ও ইরাকে আইএসের তথাকথিত খেলাফতের আনুষ্ঠানিক পতন হয়েছে চলতি বছরের মার্চে। বিশ্বের ৮০টি দেশ থেকে প্রায় ৪০ হাজার যোদ্ধা যায় ইরাক-সিরিয়ায়।

এদের অনেকেই যেমন স্ত্রী-সন্তানসহ গিয়েছিলো আবার অনেকের সন্তান হয়েছে সেখানেই। যুদ্ধে মৃত্যু কিংবা পালিয়ে যাওয়ায় বেশিরভাগই স্ত্রী সন্তানদের নিতে পারেনি।

বন্দিশিবিরগুলোতে এমন স্ত্রী-সন্তানের সংখ্যা প্রায় ৫০ হাজার। এদের অনেকেই দেশে ফিরতে চান। তাদেরই একজন স্বেচ্ছায় আইএসে যোগ দেয়া ব্রিটিশ নাগরিক শামীমা বেগম।

যদিও যুক্তরাজ্য সরকার তাকে বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত দাবি করে দায় বাংলাদেশের ওপর চাপাতে চাইছিলো। কিন্তু পররাষ্ট্র মন্ত্রী এ কে আবুল মোমেন সাফ জবাব, শুধু শামীমা নয় এমন কর্মকাণ্ডে জড়িত কাউকেই দেশে ঢুকতে দেয়া হবে না।

একইসাথে পশ্চিমা গণমাধ্যমের সমালোচনাও করেন মন্ত্রী।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলছেন, আইএসের পক্ষে যুদ্ধ করা কেউ দেশে ফেরার চেষ্টা করলে তা হবে জাতীয় নিরাপত্তার জন্য ঝুঁকি।

পশ্চিমা দেশগুলোর বেশিরভাগই এমন জঙ্গিদের নাগরিকত্ব বাতিলের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করেছে। বাংলাদেশেরও এক্ষেত্রে সজাগ থাকতে হবে বলে মত বিশ্লেষকদের।

তবে দুই বিশ্লেষকই একমত, আইএস সদস্যদের স্ত্রী-সন্তানদের জঙ্গি মানসিকতা থেকে বের না করতে পারলে বিশ্ব নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়ার আশঙ্কা আছে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর