channel 24

সর্বশেষ

  • ঈদের আগের ৭ ও পরের ৫ দিন সিএনজি ও পেট্রোল পাম্প ২৪ ঘণ্টা খোলা...

  • আগের ৩ দিন ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান চলাচল বন্ধ থাকবে: কাদের

  • ভারতের লোকসভা নির্বাচন: বিজেপি জোট এগিয়ে ৩২৬ আসনে...

  • কংগ্রেস জোট ১০৫ আসনে; পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি-তৃণমূল হাড্ডাহাড্ডি লড়াই...

  • বসিরহাটে এগিয়ে নুসরাত; যাদবপুরে মিমি চক্রবর্তী; ঘাটালে এগিয়ে দেব

আম সংগ্রহে জেলাভিত্তিক পঞ্জিকা

আম সংগ্রহে জেলাভিত্তিক পঞ্জিকা

প্রতি বছরের মতো এবারও আম সংগ্রহের নতুন পঞ্জিকা করেছে সরকার। তবে এবার তা তৈরি করা হয়েছে জেলাভিত্তিক। কেননা, জলবায়ুগত ভিন্নতার কারণে জাতভিত্তিক যে পঞ্জিকা ছিল, তা নিয়ে আপত্তি ছিল অনেকেরই। নতুন পঞ্জিকা অনুযায়ী সবার আগে আম সংগ্রহ শুরু হবে সাতক্ষীরায়, হিমসাগর দিয়ে। এরপর যশোর, মেহেরপুর, কুষ্টিয়া, রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ হয়ে রংপুরের হাঁড়িভাঙ্গা আম। আর সবার শেষে সংগ্রহ হবে দিনাজপুরের সূর্যপুরী।

পরমযত্নেই আমবাগান পরিচর্যা করেন চাষিরা। শুধু আমের দেশ রাজশাহী নয়, দেশের ১৩ টি জেলায় বাণিজ্যিকভাবে চাষ হচ্ছে আম।

তবে অপরিপক্ক আম রাসায়নিক দিয়ে পাকিয়ে বাজারজাত বন্ধে কয়েক বছর ধরে জাতভিত্তিক আম সংগ্রহ করার তারিখ ঠিক করে দেয় সরকার। কিন্তু জেলায় আবহাওয়ার পার্থক্য হওয়ায় তা নিয়ে বিভ্রান্তি দেখা দেয়। তাই নতুন করে জেলাভিত্তিক আমের পঞ্জিকা করেছে কৃষি মন্ত্রণালয়।

পঞ্জিকা অনুযায়ী:

► সবার আগে আম পাকবে সাতক্ষীরায়। জেলাটির হিমসাগর ও গোপালভোগ আম সংগ্রহ হবে মের ২য় সপ্তাহে।

► এছাড়া যশোরে গাছ থেকে আম সংগ্রহ শুরু হবে মে মাসের ২২ তারিখের পর।

► মেহেরপুরের আম বাজারে আসবে মে মাসের ৩য় সপ্তাহ থেকে।  

► ঝিনাইদহের আম পাকা শুরু হবে মে মাসের শেষ সপ্তাহে।

► কুষ্টিয়ার আম মিলবে মের ৩য় সপ্তাহে।

► চুয়াডাঙ্গার হিমসাগর ও ল্যাংরা জুনের ১ম সপ্তাহে, আম্রপালি ও ফজলি জুলাইয়ের ১ম সপ্তাহে।

► রাজশাহীর গোপালভোগ মের ২য় সপ্তাহে, হিমসাগর জুনে ১ম সপ্তাহে, ল্যাংরা ও লক্ষণভোগ জুনের ২য় সপ্তাহে।

► আমের রাজধানী চাপাইনবাবগঞ্জের গোপালভোগ মের ৪র্থ সপ্তাহে, হিমসাগর জুনের প্রথম সপ্তাহে আর ফজলি মিলবে জুনের ৪র্থ সপ্তাহে।

► রংপুরের  হারিভাঙ্গা আম পাকা শুরু করবে জুনের শেষ সপ্তাহে।

► বান্দরবান ও রাঙ্গামাটিতে বাণিজ্যিকভাবে চাষ হওয়া আম্রপালি মিলবে জুনের ৩য় সপ্তাহে।

► আর মৌসুমের শেষ আম দিনাজপুরের সূর্যপূরী পাকবে আগষ্টের ৩য় সপ্তাহে।

সাপ্লাইচেইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই পঞ্জিকা আমের অপচয় রোধে রাখবে ভূমিকা।  

আর পুষ্টিবিজ্ঞিানীরা বলছেন,  পঞ্জিকাটি কার্যকর হলে দেশের মানুষ কমপক্ষে ৪ মাস আমের পুষ্টি গ্রহন করতে পারবে।  

তবে সরকারের দেয়া এই পঞ্জিকা নিয়ে আম চাষীদের মধ্যে রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

সারাবিশ্বে সাড়ে ৩শ জাতের আম চাষ হলেও মাত্র ১২টি জাতের আম বাণিজ্যিক ভাবে চাষ করে বিশ্বে ৮ম স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর